Inqilab Logo

রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৫ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষায় ৯০ শতাংশই ফেল

‘খ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ২৮ জুন, ২০২২, ১২:০১ এএম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কলা অনুষদভুক্ত ‘খ’ ইউনিটের প্রথম বর্ষ (২০২১-২২) স্নাতক সম্মান ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে পাশের হার ৯ দশমিক ৮৭ শতাংশ। বাকি ৯০ দশমিক ১৩ শতাংশ শিক্ষার্থীই এই পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছেন। গতকাল সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে আনুষ্ঠানিকভাবে এই ফল প্রকাশ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মো. আখতারুজ্জামান।

এর আগে, গত ৪ জুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং সাতটি বিভাগীয় পর্যায়ের সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ বছর ‘খ’ ইউনিটে ১ হাজার ৭৮৮টি আসনের বিপরীতে লড়েছেন ৫৬ হাজার ৯৭২ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে লিখিত ও এমসিকিউ সমন্বিত পাস করেছেন ৫ হাজার ৬২২ জন। ছাত্রছাত্রীরা আগামী ৪ থেকে ২১ জুলাই পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে বিস্তারিত ফরম ও বিষয়ের পছন্দক্রম ফরম পূরণ করতে হবে।

ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ বিভিন্ন কোটায় আবেদনকারীদের ১৭ থেকে ২৪ জুলাইয়ের মধ্যে সংশ্লিষ্ট ফরম কলা অনুষদের ডিন অফিস থেকে সংগ্রহ করতে হবে এবং যথাযথভাবে ফরম পূরণ করে ওই সময়ের মধ্যে দিন অফিসে জমা দিতে হবে।

ফল নিরীক্ষণের জন্য ফি প্রদান সাপেক্ষে ২৯ জুন থেকে ৬ জুলাই পর্যন্ত কলা অনুষদের ডিন অফিসে আবেদন করা যাবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘খ’ ইউনিটের অধীন কলা, সামাজিক বিজ্ঞান, আইন, আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস এবং জীববিজ্ঞান অনুষদ। সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনিস্টিটিউট, স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউট, শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট, ইনস্টিটিউট অব ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ভালনারেবিলিটি স্টাডিজ এবং আধুনিক ভাষা ইনিস্টিটিউটের অধীনে ৪৪টি বিভাগ রয়েছে।

এদিকে এবারের ভর্তি পরীক্ষায় এই ইউনিটে প্রথম হয়েছেন সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের শিক্ষার্থী নাহনুল কবির নুয়েল। নুয়েল লিখিত ও এমসিকিউ পরীক্ষায় মোট ১০০ নম্বরের মধ্যে ৯৬ দশমিক ৫ পেয়েছেন। অপরদিকে ৯৬ দশমিক ২৫ মার্কস পেয়ে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় হয়েছেন বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী তাবিয়া তাসনিম ও মাদারীপুরের সরকারি নাজিমউদ্দিন কলেজের শিক্ষার্থী সাবরিন আক্তার কেয়া।



 

Show all comments
  • Harunur Rashid ২৮ জুন, ২০২২, ১২:৩৩ এএম says : 0
    These pupils have no time for study, too busy with this league , that league and so many other things on their mind. Shutdown this places of leagues for good. Country will be better off without any league.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ