Inqilab Logo

সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৬ মুহাররম ১৪৪৪

সুরমায় বাড়ছে পানি, কুশিয়ারায় ধীরে ধীরে, বাড়ছে বৃষ্টি সিলেটে !

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৯ জুন, ২০২২, ৪:১১ পিএম

ফের অস্বস্থি বাড়ছে সিলেটে। আবারও বাড়ছে সিলেট অঞ্চলের প্রধান দুই নদী সুরমা ও কুশিয়ারার পানি। অবশ্য কুশিয়ারার পানি বাড়ছে ধীরে। এখনো ভয়াবহ বন্যায় এখন বিপর্যস্ত সিলেট। সিলেট জুনের মধ্যভাগে আসা বন্যার পানি এখনও পুরোপুরি নামেনি। তবে নদ-নদীর পানি কিছুটা কমায় মানুষের মধ্যে স্বস্থি ছিল খানিকটা। সেই স্বস্থি উবে যেতে বসেছে। এদিকে, দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল তথা সিলেট অঞ্চলে বৃষ্টির প্রবণতা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর। দক্ষিণ-পশ্চিমা মৌসুমি বায়ুর (বর্ষা) সক্রিয়তার কারণে এই বৃষ্টির প্রবণতা বাড়বে, যা আগামী কয়েকদিন অব্যাহত থাকতে পারে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য মতে, গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে আজ বুধবার সকাল ৬টা অবধি সিলেট ও রংপুর অঞ্চলে বৃষ্টিপাত অন্যান্য অঞ্চলের চেয়ে বেশি ছিল। এ সময়ে বৃষ্টি হয়েছে সিলেটে ১১০ মিলিমিটার ।

অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মুহাম্মদ আবুল কালাম মল্লিক জানান, আজ সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়; রাজশাহী, ঢাকা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায় এবং খুলনা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে ভারি বর্ষণ হতে পারে। তিনি জানান, আগামী তিনদিন বৃষ্টিপাতের প্রবণতা অব্যাহত থাকতে পারে।নএদিকে, গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে সিলেটে বৃষ্টি হচ্ছে। কাল রাত থেকে বৃষ্টির প্রবণতা বেড়েছে। অনেক জায়গায় ভারি বৃষ্টি হওয়ায় পানিও বেড়েছে। এতে মানুষের মধ্যে বন্যা পরিস্থিতি অবনতির শঙ্কা কাজ করছে।

এছাড়া, সিলেট পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) থেকে প্রাপ্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী, সুরমা নদীর পানি সিলেট পয়েন্টে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায় ছিল ১০.৫৯ সেন্টিমিটার। আজ (বুধবার) দুপুর ১২টায় দাঁড়িয়েছে ১০.৭৫ সেন্টিমিটার। এ নদীর পানি কানাইঘাট পয়েন্টে গতকাল সন্ধ্যায় ১৩.৩৫ সেন্টিমিটার ছিল। আজ দুপুরে হয়েছে ১৩.৬৪ সেন্টিমিটার। বিপৎসীমার দশমিক ৮৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে বইছে পানি কানাইঘাটে সুরমা। কুশিয়ারা নদীর আমলশিদ পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ১.১৩ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। শেওলা পয়েন্টেও কুশিয়ারার পানি বিপজ্জনকভাবে বইছে। এখানে বিপৎসীমার দশমিক ৪২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে বইছে পানি। কুশিয়ারার পানি শেরপুর পয়েন্টে গতকাল সন্ধ্যায় ছিল ৮.০২ সেন্টিমিটার; আজ দুপুরে হয়েছে ৮.০৩। এ নদীর পানি ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে গতকালের মতো আজও ১০.৪৮ সেন্টিমিটারে রয়েছে। কানাইঘাট দিয়ে বয়ে যাওয়া লোভা নদীর পানি গতকাল সন্ধ্যায় ছিল ১৩.৬০ সেন্টিমিটার। আজ দুপুরে হয়েছে ১৩.৯০ সেন্টিমিটার। পানি বেড়েছে গোয়াইনঘাটের সারি নদেও। এটায় গতকাল সন্ধ্যা ৬টায় পানিসীমা ছিল ১০.৭৮ সেন্টিমিটার; আজ দুপুর ১২টায় হয়েছে ১১.৭৪ সেন্টিমিটার।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ