Inqilab Logo

শনিবার, ২০ আগস্ট ২০২২, ০৫ ভাদ্র ১৪২৯, ২১ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

পদ্মা সেতুতে যাতে নাশকতা না হয়, সেজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সজাগ রয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ জুন, ২০২২, ১০:০৬ পিএম

পদ্মা সেতুতে যাতে কোনো ধরনের নাশকতা না হয়, সেজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সবসময় সজাগ আছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বুধবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে এবং শিল্পাঞ্চলে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

পদ্মা সেতুর দু’পাড়ে দু’টি নতুন থানা স্থাপন করা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘সেখানে যথেষ্ট সংখ্যক পুলিশ নিয়োজিত রয়েছে। যাতে কোনো নাশকতা কিংবা কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেইজন্য আমরা সবসময়ই সজাগ রয়েছি।’ সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পদ্মা সেতুতে ক্যামেরা বসানো আছে, সব নজরদারিতে রয়েছে।
আসন্ন কোরবানির ঈদকে ঘিরে এখন পর্যন্ত কোনও নাশকতা আশঙ্কার খবর আসেনি বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ঈদে যেকোনও নাশকতা প্রতিরোধে সারাদেশে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি গোয়েন্দারা সজাগ থাকবে। ঈদুল আজহায় নাশকতার কোনও আশঙ্কা নেই বলেও জানান তিনি।

এ বছর বাস, লঞ্চ, ট্রেন ও ফেরিঘাট ছাড়াও পদ্মা সেতুর দু’পাড়ে গোয়েন্দা নজরদারি থাকবে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কাঁচা চামড়া বিদেশে যাতে পাচার না হতে পারে, সেদিকেও নজরদারি থাকবে। পোশাক কারখানার সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের শাখা ৮ ও ৯ জুলাই এবং চাঁদ দেখা সাপেক্ষে বাংলাদেশ ব্যাংক তাদের ঘোষণায় জানিয়ে দেবে।

তিনি বলেন, ‘ঈদযাত্রা যানজটমুক্ত করতে সারাদেশে হাইওয়ে পুলিশের ১০৯টি টহল দল, ৮৪টি কুইক রেসপন্স দলসহ ওয়াচ টাওয়ার, রেকার ও অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা থাকবে। ঈদের ছুটিতে মহানগর, জেলা, উপজেলায় হাটবাজারে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, সন্ত্রাসী কার্যকলাপ প্রতিরোধে পুলিশ, র‌্যাব ও গোয়েন্দা তৎপরতা বাড়ানো হবে। কোনও পশুবাহী নৌযান বা ট্রাককে জোরপূর্বক কোনও নির্দিষ্ট স্থানে বা হাটে যেতে বাধ্য করা যাবে না।

মন্ত্রী জানান, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ১০টি ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ১২টিসহ সারাদেশে ৪ হাজার ৪০৭টি পশুর হাট বসবে। সংখ্যা হয়তো দু-একটা বেশি কম হতে পারে। হাটগুলোতে প্রয়োজন অনুযায়ী আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী থাকবে। পশুর হাটের টাকা পুলিশের সহযোগিতায় ব্যবসায়ীরা বহন করতে পারবেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন