Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯, ১০ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

ইউক্রেনের এক-তৃতীয়াংশ সেনার আত্মসমর্পণ

প্রতিশোধ নিতে পেন্টাগনের কোঅর্ডিনেট প্রকাশ রাশিয়ার রাশিয়ায় যোগ দিতে গণভোটের প্রস্তুতি নিচ্ছে খেরসন রুশ-বিরোধী নিষেধাজ্ঞা বিশ্বব্যাপী খাদ্য সঙ্কট বাড়িয়ে তুলেছে ইউরোপ জুড়ে মার্কিন স

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ জুন, ২০২২, ১২:০১ এএম

লুহানস্ক পিপলস রিপাবলিকের (এলপিআর) লিসিচানস্কের কাছে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর এক তৃতীয়াংশ সদস্য ইতিমধ্যে আত্মসমর্পণ করেছে। গতকাল রাশিয়ায় এলপিআর-এর দূত রডিয়ন মিরোশনিক এ তথ্য জানিয়েছেন। ‘লিসিচানস্কের কাছে সক্রিয় লড়াই চলছে, যেখানে সাম্প্রতিক প্রতিবেদন অনুসারে, প্রচুর হতাহতের সাথে বেশ রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ চলছে। সেখানে ইউক্রেনীয় সামরিক বাহিনীর প্রায় এক তৃতীয়াংশ সদস্য আত্মসমর্পণ করেছে, বাকি দুই তৃতীয়াংশ অবরুদ্ধ অবস্থায় রয়েছে,’ সলোভিয়েভ লাইভ টিভি চ্যানেলের একটি সম্প্রচারের সময় মিরোশনিক বলেছিলেন।

এলপিআরের রাষ্ট্রদূত বলেছেন যে, ‘লিসিচানস্কে অভিযান শেষ হওয়ার সাথে সাথে ডনবাস প্রজাতন্ত্রকে মুক্ত করার অভিযান শেষ করা হবে।’ প্রায় ৫ থেকে ৭ হাজার ইউক্রেনীয় সৈন্যকে একটি শক্তিশালী ঘাঁটি গঠনের প্রয়াসে সøাভিয়ানস্ক থেকে সেভারস্ক পর্যন্ত মোতায়েন করা হতে পারে, তবে সেখানে একটি শক্তিশালী প্রতিরোধ গড়ে তোলা খুব কমই সম্ভব হবে, মিরোশনিক বলেছেন। এর আগে, এলপিআর-এর অভ্যন্তরীণ মন্ত্রী ভিটালি কিসিলিভের সহযোগী বার্তা সংস্থা-কে বলেছিলেন যে, লিসিচানস্কের কাছে ১ হাজারেরও বেশি ইউক্রেনীয় সেনা নিহত হয়েছে, বেশ কয়েকজন অফিসারকে বন্দী করা হয়েছে।

প্রতিশোধ নিতে পেন্টাগনের কোঅর্ডিনেট প্রকাশ : পশ্চিমা স্যাটেলাইট অপারেটররা রাশিয়ার শত্রু ইউক্রেনের জন্য কাজ করছে। এ কারণে, রাশিয়ার মহাকাশ সংস্থা মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের পেন্টাগন এবং ন্যাটোর শীর্ষ সম্মেলনের স্থান সহ পশ্চিমা প্রতিরক্ষা সদর দফতরের স্থানাঙ্ক প্রকাশ করেছে। এ ফলে জায়গাগুলোর নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে। রোসকসমসের প্রধান দিমিত্রি রোগোজিন রাশিয়ান আরআইএ নভোস্তি বার্তা সংস্থাকে বলেছেন, ‘ব্যক্তিগত এবং রাষ্ট্রীয় অরবিটাল গ্রুপিংয়ের পুরো দল এখন আমাদের শত্রুর জন্য একচেটিয়াভাবে কাজ করছে।’ মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোটের সদস্যরা রাশিয়ার আক্রমণ প্রতিহত করতে ইউক্রেনকে সহায়তা করার জন্য অস্ত্র পাঠাচ্ছে ও গোয়েন্দ তথ্য দিচ্ছে বলে নিজেরাই স্বীকার করেছে।
ইউএস স্যাটেলাইট ইমেজরি কোম্পানি ম্যাক্সার, যার ক্লায়েন্টদের মধ্যে মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে, ফেব্রুয়ারিতে আক্রমণ শুরু হওয়ার আগে থেকে ইউক্রেন এবং রাশিয়ার দখলে নেয়া ছবিগুলি বেশ কয়েকবার প্রকাশ করেছে। তারা ইউক্রেনের কাছে রাশিয়ার সামরিক বিল্ড আপের চিত্রগুলি অন্তর্ভুক্ত করেছিল। ‘আজ, মাদ্রিদে ন্যাটো শীর্ষ সম্মেলন শুরু হচ্ছে, যেখানে পশ্চিমা দেশগুলি রাশিয়াকে তাদের সবচেয়ে খারাপ শত্রু ঘোষণা করবে,’ রোগজিন তার টেলিগ্রাম সোশ্যাল মিডিয়া চ্যানেলে লিখেছেন, রসকসমস শীর্ষ সম্মেলন স্থান এবং ইউক্রেনীয় জাতীয়তাবাদীদের সমর্থনকারী ‘সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের’ স্যাটেলাইট ফটোগ্রাফ প্রকাশ করেছে।’

পোস্টিংটিতে মাদ্রিদে শীর্ষ সম্মেলন স্থান, পেন্টাগন, ওয়াশিংটনের হোয়াইট হাউস, সেন্ট্রাল লন্ডনে ব্রিটিশ সরকারী ভবন, বার্লিনে জার্মান চ্যান্সেলারি এবং রাইখস্টাগ পার্লামেন্ট ভবন, ব্রাসেলসে ন্যাটো সদর দপ্তর এবং প্যারিসের অন্যান্য সরকারি ভবন সহ ফরাসি প্রেসিডেন্টের বাসভবনের রাশিয়ান স্যাটেলাইট ছবি অন্তর্ভুক্ত ছিল। এসব স্থানাঙ্ক, অক্ষাংশ এবং দ্রাঘিমাংশের ডিগ্রী হিসাবে প্রকাশ করা হয়েছে যা সবার জন্য অবাধে উপলব্ধ।
রাশিয়ায় যোগ দিতে গণভোটের প্রস্তুতি নিচ্ছে খেরসন : খেরসন অঞ্চলের কর্তৃপক্ষ রাশিয়ায় যোগদানের বিষয়ে গণভোট আয়োজনের প্রস্তুতি শুরু করেছে। গতকাল আঞ্চলিক সামরিক-বেসামরিক প্রশাসনের উপ-প্রধান কিরিল স্ট্রেমাসভ এ তথ্য জানিয়েছেন। ‘আমরা প্রকৃতপক্ষে একটি গণভোটের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি, এবং আমরা এটি অনুষ্ঠিত করব। আশ্চর্যজনকভাবে, খেরসন অঞ্চল রাশিয়ায় যোগদানের সিদ্ধান্ত নেবে এবং এটি একটি পূর্ণাঙ্গ উপাদান সত্তা হয়ে উঠবে,’ তিনি টেলিগ্রামে পোস্ট করা একটি ভিডিওতে বলেছেন। দক্ষিণ ইউক্রেনের খেরসন অঞ্চলটি ক্রিমিয়ার সীমান্তে অবস্থিত। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় মার্চের মাঝামাঝি বলেছিল যে, রুশ সেনারা এই অঞ্চলের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। এপ্রিলের শেষ দিকে সেখানে সামরিক-বেসামরিক প্রশাসন গঠন করা হয়। আঞ্চলিক কর্তৃপক্ষ পরে রাশিয়ায় যোগদানের পরিকল্পনা ঘোষণা করে।

রুশ-বিরোধী নিষেধাজ্ঞা বিশ্বব্যাপী খাদ্য সঙ্কট বাড়িয়ে তুলেছে : ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযানের উপর আরোপিত পশ্চিমের রুশ-বিরোধী নিষেধাজ্ঞার সাম্প্রতিক তরঙ্গ বিশ্বব্যাপী খাদ্য সঙ্কটকে আরও বাড়িয়ে তুলেছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আনাতোলি আন্তোনোভ বলেছেন। ‘খাদ্য নিরাপত্তার ক্ষেত্রে, এটি ছিল মার্কিন নেতৃত্বাধীন সম্মিলিত পশ্চিমাদের দ্বারা আরোপিত রুশ-বিরোধী বিধিনিষেধের তরঙ্গ, যা বিশ্বব্যাপী খাদ্য সঙ্কটকে উৎসাহিত করেছিল। এর মূল কারণগুলি হল বেশ কয়েকটি উন্নত দেশগুলির দ্বারা নেয়া অযোগ্য সামষ্টিক অর্থনৈতিক পদক্ষেপ, জলবায়ু পরিবর্তন এবং কোভিড-১৯ মহামারী,’ দূতাবাসের প্রেস সার্ভিস রাষ্ট্রদূতকে উদ্ধৃত করে বলেছে। কূটনীতিকের মতে, সঙ্কট সমাধান করা যেতে পারে ‘শুধুমাত্র রাশিয়ান সহ শস্য ও সার বৈশ্বিক বাজারে বিনামূল্যে প্রবেশাধিকারের মাধ্যমে।’

ইউরোপ জুড়ে মার্কিন সৈন্য বাড়ানোর ঘোষণা বাইডেনের : মাদ্রিদে ন্যাটো জোটের শীর্ষ বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেন ঘোষণা দিয়েছেন, পুরো ইউরোপের স্থল, আকাশ এবং সমুদ্র জুড়ে আমেরিকান সেনা উপস্থিতি বাড়ানো হবে। তিনি বলেন, রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন ইউরোপের ‘শান্তি’ ধ্বংস করে দিয়েছেন বলেই আমেরিকার এই সিদ্ধান্ত। বাইডেনকে উদ্ধৃত করে মার্কিন টিভি নেটওয়ার্ক সিএনএন জানাচ্ছে, পোল্যান্ডে মার্কিন সেনাবাহিনীর ‘ফিফথ কোর’ সেনাদলের একটি স্থায়ী সদর দপ্তর তৈরি করা হবে। রোমানিয়াতে আরো তিন হাজার সৈন্য মোতায়েন করা হবে। বাল্টিক দেশগুলোতে আমেরিকার সৈন্য সংখ্যা বাড়ানো হবে। শুধু পূর্ব ইউরোপই নয়, পশ্চিম ইউরোপেও আমেরিকার সামরিক উপস্থিতি বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন বাইডেন।
ব্রিটেনে সর্বাধুনিক এফ-৩৫ যুদ্ধ বিমানের আরো দুটো স্কোয়াড্রন মোতায়েন করা হবে। সেইসাথে, ইটালি এবং জার্মানির বিমান এবং ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা আরো জোরদার করা হবে। সেইসাথে ইউরোপে মার্কিন নৌ-বাহিনীর শক্তি বাড়াতে স্পেনের রোটা ন্যাভাল স্টেশনে আরো দুটো ডেস্ট্রয়ার পাঠানো হবে। ন্যাটো মহাসচিব ইয়েন্স স্টোলটেনবার্গের সাথে গতকাল এক বৈঠকের পর বাইডেন বলেন, ‘মিত্রদের সাথে মিলে আমরা নিশ্চিত করবো যে কোনো জায়গায় যে কোনো ধরণের হুমকি মোকাবেলায় ন্যাটো প্রস্তুত।’

বিশ্লেষকরা বলছেন, ন্যাটো জোটের শক্তি বাড়াতে যে পরিকল্পনা করা হচ্ছে - শীতল যুদ্ধ শেষ হওয়ার পর তার নজির আগে আর দেখা যায়নি। ন্যাটো শীর্ষ বৈঠক শুরুর ঠিক আগে সোমবার জোটের মহাসচিব ইয়েন্স স্টেভলটেনবার্গ বলেন, ‘যুদ্ধের জন্য সর্বদা প্রস্তুত’ এমন সৈন্য সংখ্যা বর্তমানের ৪০ হাজার থেকে প্রায় দশগুণ বাড়িয়ে তিন লক্ষাধিকে নেয়া হবে। নতুন এই কৌশলগত পরিকল্পনা মাদ্রিদের এই শীর্ষ সম্মেলনে অনুমোদিত হতে পারে। সূত্র : বিবিসি নিউজ, তাস, ইউএস নিউজ।



 

Show all comments
  • Md Bashar ৩০ জুন, ২০২২, ৫:৫২ এএম says : 0
    রাশিয়া এভাবে আমেরিকা ইউরোপকে হাতে হারিকেন ধরিয়ে দিল।
    Total Reply(0) Reply
  • Syed Mustakim Shopon ৩০ জুন, ২০২২, ৫:৫২ এএম says : 0
    ইউক্রেনের মানুষেরা একসময় আফগান, ইরাক ও ফিলিস্তিনের মানুষদের মরতে দেখেও তারা আগ্রাসী শক্তিগুলোর পক্ষালম্বন করেছিল। এবার তারা দেখুক আপনজনের মৃত্যু কতটা কষ্টের
    Total Reply(0) Reply
  • Rashidul Islam Mubin ৩০ জুন, ২০২২, ৫:৫২ এএম says : 0
    রাশিয়ার দখলকৃত ইউক্রেনীয় জায়গা রোহিঙ্গাদের জন্য বসতি স্থাপনের ব্যবস্থা করা উচিত । যেভাবে ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।
    Total Reply(0) Reply
  • মেহেদী পাতা ৩০ জুন, ২০২২, ৫:৫৩ এএম says : 0
    সারা বিশ্বে মুসলিম দেশ দখল করে অসংখ্য নিরঅপরাধ নারী,শিশু,পুরুষদের গনহারে প্রতিদিন ধুলায় মিশিয়ে দিচ্ছে ইসলাম ও মুসলিম বিরোধী শক্তিগুলো সেই সব ভয়াল চিত্র দেখে অাসছি যুগে যুগে তাই বড় বড় গন হত্যা দেখে অভ্যস্হ্য হয়েছি ছোটকে নিয়ে এখন ভাবিনা,এটাই বাস্তবতা।
    Total Reply(0) Reply
  • মেহেদী পাতা ৩০ জুন, ২০২২, ৫:৫৩ এএম says : 0
    সারা বিশ্বে মুসলিম দেশ দখল করে অসংখ্য নিরঅপরাধ নারী,শিশু,পুরুষদের গনহারে প্রতিদিন ধুলায় মিশিয়ে দিচ্ছে ইসলাম ও মুসলিম বিরোধী শক্তিগুলো সেই সব ভয়াল চিত্র দেখে অাসছি যুগে যুগে তাই বড় বড় গন হত্যা দেখে অভ্যস্হ্য হয়েছি ছোটকে নিয়ে এখন ভাবিনা,এটাই বাস্তবতা।
    Total Reply(0) Reply
  • Jashim Uddin ৩০ জুন, ২০২২, ৫:৫৩ এএম says : 0
    আমিরিকা ও রাশিয়া এদের কাজেই হচ্ছে দুনিয়ার বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জাইগায় বিভিন্ন কায়দায় এভাবে মানুষ হত্যা করা,
    Total Reply(0) Reply
  • আশফাকুর রহমান সুজাত ৩০ জুন, ২০২২, ৫:৫৪ এএম says : 0
    জেলেনোস্কি কে বন্দি করে কারাগারে পাঠানোর জোড়ালো দাবি জানাচ্ছি
    Total Reply(0) Reply
  • Mohmmed Dolilur ৩০ জুন, ২০২২, ৭:৫৬ এএম says : 0
    ইউক্রেনের জনগণ বোকা,তাই একজন নাট্যকার এখনও তাদের প্রেসিডেনট,ইউক্রেনের জনগণ কে জেলেনসকি নাটকের মাধ্যমে হত্যা করে মারবে,আর ইউরোপ আমেরিকা মজা নিবে,তাদের পুরানা অস্রের চালান গুলি ইউক্রেন কে দিয়ে ইউক্রেন কে ঋনের বোঝা মাথায় দিয়ে দিবে,আছতে আছতে ইউক্রেন এর সম্পদ নিয়ে যাবে,রাশিয়ার কিছু করতে পারবে না।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউক্রেনের রাশিয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ