Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ০২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৮ মুহাররম ১৪৪৪

সৈয়দপুরে কিশোরী ধর্ষণ, বিজিবি সদস্যকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ হাইকোর্টের

সৈয়দপুর (নীলফামারী) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১ জুলাই, ২০২২, ১০:২৩ এএম

কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পাওয়া বিজিবি সদস্য আক্তারুজ্জামানকে চার সপ্তাহের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারিক আদালতের দেওয়া ওই অব্যাহতির আদেশের কার্যকারিতাও ৬ মাসের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। নীলফামারীর ওই কিশোরীর আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে গত (২৯ জুন) বুধবার বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি শাহেদ নূরউদ্দিনের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

মামলাটি পরিচালনাকারী সুপ্রিমকোর্ট লিগ্যাল এইডের আইনজীবী বদরুন নাহার সাংবাদিকদের বলেন, তিনটি মেডিক্যাল রিপোর্টে ধর্ষণের আলামত রয়েছে। কিন্তু পুলিশ তদন্তে সেটা পায়নি। তদন্ত প্রতিবেদনে আসামিকে অব্যাহতির আবেদন জানান তদন্ত কর্মকর্তা। এতে আদালত ওই আসামিকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেন। পরে বাদীপক্ষ নারাজি আবেদন দিলে আদালত তা নাকচ করে দেন। এরপর দরিদ্র পরিবারের মেয়েটি সরাসরি হাইকোর্টের এজলাসে এসে বিচার চান। গত ১৫ জুন ওই কিশোরী হাইকোর্টের ওই বেঞ্চে হাজির হয়ে ধর্ষণের বিচার চান। ওইদিন সকালে আদালতের বিচারিক কার্যক্রম শুরু হলে ওই কিশোরী তার মাকে নিয়ে ডায়াসের সামনে এসে দাঁড়ান। এ সময় আদালত জানতে চান, কী হয়েছে? আপনি কে? কী বলতে চান? কিশোরী নিজের পরিচয় দিয়ে বলেন, আমার বয়স ১৫ বছর। আমি ধর্ষণের শিকার।

একজন বিজিবি সদস্য আমাকে ধর্ষণ করেছে। কিন্তু নীলফামারীর আদালত তাকে খালাস দিয়ে দিয়েছে। আমরা গরিব মানুষ, আমাদের টাকা-পয়সা নাই। আমরা আপনার কাছে বিচার চাই।

এরপর আদালত জানতে চান তার কাছে মামলাসংক্রান্ত কোনো কাগজপত্র আছে কিনা। কিশোরী মামলার কাগজ আছে বলে জানান। ওই সময় সেখানে উপস্থিত সুপ্রিমকোর্ট লিগ্যাল এইডের আইনজীবী বদরুন নাহারকে মামলাটি দেখভাল করতে বলেন আদালত। এরপর ধর্ষণের অভিযোগ থেকে বিজিবি সদস্যকে অব্যাহতির আদেশ বাতিল চেয়ে ২৬ জুন হাইকোর্টে আপিল করেন আইনজীবী বদরুন নাহার।
নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার এক ভ্যানচালকের সন্তান ওই ভুক্তভোগী কিশোরী। বিজিবি সদস্য আক্তারুজ্জামানের বিরুদ্ধে ২০২০ সালের ২১ নভেম্বর ধর্ষণ মামলা করেন কিশোরীর মা। পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে গত ১৭ মে নীলফামারীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ধর্ষণ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ