Inqilab Logo

শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ০৪ ভাদ্র ১৪২৯, ২০ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

ভাঙ্গা-মাওয়া মহাসড়কের এক্সপ্রেসওয়ের টোলপ্লাজায় টোল আদায় শুরু

ফরিদপুর থেকে আনোয়ার জাহিদ | প্রকাশের সময় : ১ জুলাই, ২০২২, ৬:৫৮ পিএম | আপডেট : ৮:৪৩ পিএম, ১ জুলাই, ২০২২

সপ্নের সেতু পদ্মা সেতু দিয়ে চলাচলকারী দুরপাল্লার যানবাহনের জন্য ফরিদপুরের ভাঙ্গা-মাওয়া মহাসড়কের ভাঙ্গা ভাঙ্গা একপ্রেস ওয়ের বগাইল টোলপ্লাজা থেকে সরকার নির্ধারিত টোল আদায়ের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুকবার (১জুলাই) সকালে থেকে শুরু হয়েছে।

সকাল ১১টার দিকে টোল প্লাজার চারটি বুথ থেকে ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের কর্মরত সদস্যরা দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন রুটের যানবাহন (বিশেষ করে পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে যেসব যানবাহন ঢাকার পথে যাচ্ছে) ও ঢাকা থেকে আসা যাত্রীবাহী বাস, ট্রাক, লড়ি, মাইক্রোবাস, মোটরসাইকেল থেকে নির্ধারিত টোল আদায় শুরু করেন সংশ্লিষ্টরা।

এসময় টোল প্লাজা এলাকার দুপাশের রাস্তায় বেশ যানজট দেখা দিলেও পদ্মার বুকে নবনির্মিত পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে কয়েক মিনিটিতে পরিবার পরিজন বা স্বজনদের নিয়ে ঢাকায় পৌঁছে যাওয়ার সপ্ন সত্যি হওয়ার আনন্দে অনেক যাত্রী টোল প্লাজার সামান্য যানজটকে তেমনটি গুরুত্ব বলে মনে করছেন না।

তবে যাত্রীদের সার্বিক ভ্রমণ নিরাপদ করতে ভাঙ্গা থানা ও হাইওয়ে থানার পুলিশ সদস্যরা টহল দেওয়ার পাশাপাশি সকল বিষয়ে সজাগ দৃষ্টি রেখে ভাঙ্গা একপ্রেস ওয়ের টোল প্লাজায় তাদের নজরদারী উপস্থিত যাত্রীদের কাছে বেশ পরিলক্ষিত হয়।

টোলপ্লাজার ম্যানেজার সিরাজুল ইসলাম ইনকিলাবকে জানান, এক্সপ্রেসওয়ের টোলপ্লাজার যানবাহনের থেকে টোল আদায়ের জন্য ৭টি বুথের মধ্য প্রথম দিনে তারা ৪টি বুথ দিয়ে আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করেছেন।

প্রাথমিকভাবে বিভিন্ন যানবাহন থেকে টোলআদায় করতে কিছুটা সময় বিলম্বিত হলেও পর্যায়ক্রমে এসব সমস্যা আর থাকবে বলে তিনি নিজের অভিমত প্রকাশ করেন।

কিন্ত টোল আদায়ের ক্ষেত্রে একটি বিষয় নিয়ে টোলপ্লাজায় কর্তব্যরত অন্যান্য সদস্যরা ইনকিলাবকে বলেন, ছোট হোক বা বড় গাড়ি সবাই ৫০০ থেকে হাজার টাকার নোট চালিয়ে দিচ্ছেন।

কিন্ত ভাংতি টাকার সরবরাহ প্রথম দিনে কম থাকায় তাদের বেশ বেগ পেতে হয়েছে। এখানে সরবচ্চ ৬৭৫ টাকা থেকে সর্বনিম্ন ১০ টাকা পর্যন্ত ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের টোল নির্ধারণ করা হয়েছে।

হামদান পরিবহনের যাত্রী দেবাশীস রায় ইনকিলাবকে বলেন, পরিবার পরিজনকে নিয়ে পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে প্রথম ঢাকায় যাচ্ছি।

ভাড়া সহনীয়। বাসের চালক ও সুপার ভাইজারসহ সকলে যাত্রীদের প্রতি বেশ আন্তরিকতা লক্ষনীয়। ভাঙ্গায় এক্সপ্রেসওয়েতে আমাদের যাত্রীবাহী পরিবহনের যাত্রীরা উচ্ছ্বাসিত হয়ে উঠেন।

এটা বাংলাদেশ না বিদেশী দেশের দৃশ্য তারা দেখছেন। এত সুন্দর করে এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ করা হয়েছে যা বঙ্গবন্ধুর কন্য আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার আছে বলেই দক্ষিণবঙ্গ এক নতুন সাজে সেজেছে বলে নিজের অভিমত প্রকাশ করেন।

ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার অফিসার ইন চার্জ হামিদ উদ্দিন আহমেদ গনমমাধ্যম কে জানান, বৃহস্পতিবার রাত থেকেই পুলিশ সদস্যরা এক্সপ্রেস ওয়ের প্রতি সজাগ দৃষ্টি রেখে সার্বিক নিরাপত্তার জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

শুক্রবার (১ জুলাই) সকাল থেকে ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ও থানার পুলিশ সদস্যরা যাত্রীরা যাতে কোন কষ্ট, হয়রানী বা নিরাপত্তাহীনতায় না থাকে এজন্য কাজ করে যাচ্ছেন। পুলিশের আন্তরিকতার সকল যাত্রীরা মহা খুশী।

উল্লেখ্য থাকে যে গত ২৫ জুন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতুর আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন করার সাত দিন পর শুক্রবার (১ জুলাই)সকাল ১১টায় আনুষ্ঠানিকভাবে ভাঙ্গা একপ্রেসওয়ের টোলপ্লাজায় টোল আদায়ের কার্যক্রম শুরু করা হয়। এর মধ্যে দিয়ে দক্ষিণবঙ্গের ২১ জেলার মানুষের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে ভাঙ্গায় টোল আদায়ের শুভযাত্রা শুরু হলো।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন