Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯, ১০ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

যিলহাজ্জের গুরুত্বপূর্ণ ইবাদাত কোরবানি

লাব্বাইকা আল্লাহুম্মা লাব্বাইক

মুহাম্মদ সানাউল্লাহ | প্রকাশের সময় : ৩ জুলাই, ২০২২, ১২:০৬ এএম

কোরবানি একটি মহৎ ইবাদাত। বলা হয় ইসলামের বড় বড় শাঈরা বা নিদর্শনাবলীর অন্যতম একটি শাঈরা বা নিদর্শন হচ্ছে কোরবানি। কোরবানির মাধ্যমে একদিকে যেমন মহান আল্লাহর নৈকট্য হাসিল করা যায়, অন্যদিকে এর মাধ্যমে গরীব, দুঃখী, ফকীর, মিসকীনদের যথেষ্ট পরিমাণে বছরে একবার ভালো খাবারের ব্যবস্থা হয়। কোরবানি বাস্তবায়নের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় হচ্ছে কোরবানির জন্তু বা পশু। কোরবানি যেহেতু একটি ইবাদাত সেহেতু অন্যান্য ইবাদতের ন্যায় শরীয়াতের দিক নির্দেশনা মেনেই ইবাদাতটি পালন করতে হবে। নিজের খেয়াল-খুশিমত কোরবানি করলে সেটা আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য ইবাদাত হিসেবে বিবেচ্য হবে না। তাই কোরবানির পশু সম্পর্কে শরীয়াতের দিক-নির্দেশনা মেনে আমাদের কোরবানি করতে হবে। যে কোনো পশু কোরবানি করা যাবে না। একমাত্র শরীয়াত কর্তৃক নির্ধারিত পশুই আমাদেরকে কোরবানি করতে হবে।

কোরবানির পশুর জাতি : কোরবানির পশুর জাতি দ্বারা উদ্দেশ্য কোন জাতীয় পশু দ্বারা কোরবানি করা বৈধ। আল্লাহ আমাদের জন্য অনেক পশু হালাল করেছেন, কিন্তু সব হালাল পশু দ্বারা কোরবানী করাকে বৈধ করেননি। তাই আমরা এখানে জানবো কোন জাতীয় পশু দ্বারা কোরবানি করা জায়েয।
আলেমগণ একমত পোষণ করেছেন যে, কোরবানির পশু হতে হবে গৃহপালিত চতুষ্পদ গবাদি পশু তথা উট, গরু, ছাগল। কোনো বন্যজন্তু অথবা পাখি জাতীয় প্রাণী দ্বারা কোরবানি করা যাবে না। আল্লামা ইবনুু রুশদ আল হাফীদ আল মালেকী (রহ.) বলেছেন :

‘আলেমগণ একমত পোষণ করেছেন যে, কোরবানি বৈধ সব ধরনের গৃহপালিত চতুষ্পদ গবাদি পশু দ্বারা। (বেদায়াতুল মুজতাহিদ) আল্লামা আবুল হাসান আর-রাজরাজী আল মালেকী (রহ.) বলেছেন : এ বিষয়ে কোনো মতভেদ নেই যে, কোরবানি হবে না গৃহপালিত চতুষ্পদ গবাদি পশু ছাড়া, বন্য পশু বা পাখি দ্বারা হবে না। (মানাহিযুত তাহসীল ওয়া লাতাইফুত তাবীল ফি শারহীল মুদাওয়ানা ওয়া হাল্লি মুুশকিলাতিহা- ৩/২৫৩)
ইমাম আবুু ইসহাক আশ-সিরাজী আশ-শাফেয়ী (রহ.) বলেছেন : কোরবানিতে গৃহপালিত চতুষ্পদ গবাদি পশু তথা উট, গরু, ছাগল ছাড়া অন্য কিছু যথেষ্ট হবে না। (আল-মুহাযযাব ফি ফিকহিল ইমাম আশ শাফেঈ-১/৪০৩)
আল্লামা ইবনুু কুদামাহ আল-হাম্বলী (রহ.) বলেছেন : কোরবানিতে গৃহপালিত চতুষ্পদ গবাদি পশু ছাড়া চলবে না। (আল কাফী ফি ফিকহিল ইমাম আহমাদ- ১/৫৪৩) তিনি গবাদি পশুর ব্যাখ্যায় বলেন : তা হল, উট, গরু ও ছাগল। (আল মুগনী-৯/৪৪০)

আল্লামা আবুল হুসাইন আল কুদুরী (রহ.) বলেছেন : কোরবানির পশু হতে হবে উট, গরু ও ছাগল হতে।
পূর্বের আলোচনা থেকে আমরা স্পষ্ট জানতে পারলাম যে, প্রসিদ্ধ চার মাযহাবের আলেমগণসহ অধিকাংশ আলেম একমত পোষণ করেছেন যে, কোরবানির জন্য অবশ্যই গবাদি পশু তথা উট, গরু, ছাগল, এই তিন জাতের থেকে হতে হবে। এই তিন জাতীয় পশু ছাড়া কোরবানি করা যাবে না। বরং অনেকে এ বিষয়ে ইজমা সংঘটিত হওয়ার দাবি করেছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হজ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ