Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ০৯ মাঘ ১৪২৭, ০৯ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

জলবায়ু পরিবর্তন সমগ্র মানবজাতির সমস্যা : প্রেসিডেন্ট

সময় এসেছে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন ও প্রতিশ্রুতি রক্ষার

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

জলবায়ু পরিবর্তনকে মানবজাতির জন্য বিপজ্জনক হুমকি হিসেবে বর্ণনা করে এর মোকাবেলায় বিশ্ব সম্প্রদায়ের ঐক্যবদ্ধ ও সমন্বিত প্রয়াসের ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন প্রেসিডেন্ট মো: আবদুল হামিদ।
গতকাল শুক্রবার রাজধানীর একটি হোটেলে সাউথ এশিয়া জুডিশিয়াল কনফারেন্স অন এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ক্লাইমেট চেঞ্জ’ অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত সমস্যা কেবল দক্ষিণ এশিয়ার নয়, এটি সমগ্র মানবজাতির সমস্যা। একটি দেশ বা অঞ্চল এ সমস্যা এককভাবে মোকাবেলা করতে পারবে না। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত সমস্যা মোকাবেলা ও প্রশমনের জন্য দরকার বিশ্ব সম্প্রদায়ের সমন্বিত ও ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা।
বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট ও এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) যৌথভাবে এই সম্মেলনের আয়োজন করেছে।
প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ বলেন, প্যারিস চুক্তিতে স্বাক্ষর করা প্রথম দিকের দেশগুলোর একটি বাংলাদেশ। সেই সাথে নিজস্ব সম্পদ থেকে ৪০০ মিলিয়ন ডলারের তহবিল বাংলাদেশই প্রথম করতে পেরেছে। জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এই সম্মেলন থেকে বেরিয়ে আসা সুপারিশ ও পরামর্শ পরিবেশ সুরক্ষা ও সংরক্ষণে বাস্তব পদক্ষেপ নিতে সাহায্য করবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।
প্রেসিডেন্ট বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের সমস্যা থেকে পরিবেশ ও পৃথিবীকে রক্ষা করতে বিশ্ব নেতারা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছিলেন। এখন সময় এসেছে সিদ্ধান্ত  বাস্তবায়ন ও প্রতিশ্রুতি রক্ষার।
তিনি বলেন, সংবিধান সামনে রেখে পরিবেশ সংরক্ষণ ও সুরক্ষাসংক্রান্ত মামলায় বাংলাদেশের সুপ্রিম কোর্ট ‘ধারাবাহিকভাবে অর্থপূর্ণ বিচার করে চলেছে।
তিনি বলেন, পরিবেশ সংরক্ষণের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে বাংলাদেশের বিচার বিভাগ খুবই সংবেদনশীল। একই সাথে বিচার বিভাগ পরিবেশের ভারসাম্য ও সংরক্ষণের বিরুদ্ধে সংগঠিত সব কার্যক্রম প্রতিরোধে সক্রিয় ভূমিকা রাখছে। পরিবেশ সুরক্ষায় ও এ সংক্রান্ত সাংবিধানিক বিধান রক্ষায় ‘পরিবেশ আদালত’ও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা। অন্যদের মধ্যে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, বিচারপতি আবদুল ওয়াহহাব মিঞা, পরিবেশ ও বন উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব, এডিবির জেনারেল কাউন্সেল ক্রিস্টোফার স্টেফেন্স বক্তব্য দেন। জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ছাড়াও আফগানিস্তান, ভুটান, নেপাল ও মালয়েশিয়াসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশের প্রধান বিচারপতিরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন