Inqilab Logo

বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

ভারতের পানি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে

ত্রাণ বিতরণকালে নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ জুলাই, ২০২২, ৯:২৫ পিএম

ভারত আন্তর্জাতিক সকল আইন লঙ্ঘন করে বাংলাদেশে পানি আগ্রাসন চালাচ্ছে। যখন পানির প্রয়োজন হয় তখন আমাদের পানির ন্যায্য হিস্যা থেকে বঞ্চিত করে শুকিয়ে মারে। আর বর্ষা মৌসুমে ভারত সকল বাঁধ ছেড়ে দিয়ে এদেশের মানুষকে বন্যার পানিতে ডুবিয়ে মারছে। দেশ ও জাতিকে রক্ষায় ভারতের পানি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়াতে হবে। আজ সোমবার বন্যা দুর্গত এলাকায় অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণকালে বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন।

খেলাফত আন্দোলন : বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ও ঢাকা মহানগরীর আমীর মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী বলেছেন,ভারত আন্তর্জাতিক সকল আইন লঙ্ঘন করে বাংলাদেশে পানি আগ্রাসন চালাচ্ছে। যখন পানির প্রয়োজন হয় তখন আমাদের পানির ন্যায্য হিস্যা থেকে বঞ্চিত করে শুকিয়ে মারে। আর বর্ষা মৌসুমে ভারত সকল বাঁধ ছেড়ে দিয়ে এদেশের মানুষকে বন্যার পানিতে ডুবিয়ে মারছে। দেশ ও জাতিকে রক্ষায় ভারতের পানি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়াতে হবে। আজ সোমবার নেত্রকোনা জেলার কলমাকান্দা, মদন ও আটপাড়া উপজেলায় বন্যা প্লাবিত এলাকায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে সহায়তা প্রদানকালে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দলের কেন্দ্রীয় শীর্ষ নেতা আলহাজ আতিকুর রহমান নান্নু মুন্সি, কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী আলহাজ্ব মৌলভী আবদুর রকিব, বাংলাদেশ খেলাফত যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি মাওলানা গাজী আবদুর রহিম রুহী, মুফতী জয়নাল আবেদিন, মাওলানা আব্দুল হালিম, মাওলানা মোস্তফা, মাওলানা নুরুদ্দিন, হাফেজ আবুল হোসাইন, হাফেজ শামিম, হাফেজ রবিন মুন্না, মুহাম্মদ সাখাওয়াত, হাফেজ ইকবাল হাসান আজাদ ও মাওলানা আশরাফুল ইসলাম বেলাল। শীর্ষ নেতা আলহাজ আতিকুর রহমান নান্নু মুন্সি বলেন, আমাদেরকে সব ধরনের পাপাচার পরিহার করত বেশি বেশি তওবা ও ইস্তেগফার করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, ইসলাম সহমর্মিতা ও মানবতার কল্যাণের ধর্ম। ইসলামের আদর্শই হচ্ছে একে অপরের সহযোগিতা করা, একজন আরেকজনের পাশে দাঁড়ানো। ইসলামের এই সু-মহান শিক্ষার চেতনার আলোকে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের পাশে সাধ্যমতো সাহায্যের হাত প্রসারিত করে ইসলামী নেতৃবৃন্দ ও আলেম সমাজ যে অবিস্মরণীয় অবদান রেখে চলছে তা চিরস্বরণীয় হয়ে থাকবে।

ত্রাণসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে টিন, চাউল, ডাউল, আলু, সয়াবিন তৈল, বিস্কিট, মিনারেল ওয়াটার, শিশুখাদ্য, ওরস্যালাইন, প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র ও প্রত্যেক পরিবারকে নগদ ১ হাজার টাকা করে দেয়া হয়। জাতীয় ইমাম পরিষদ বাংলাদেশ : আজ সোমবার সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের উত্তর কুশিয়ারায় জাতীয় ইমাম পরিষদ বাংলাদেশের উদ্যোগে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণকালে জাতীয় ইমাম পরিষদ বাংলাদেশের চেয়ারম্যান মুফতি আব্দুল্লাহ ইয়াহইয়া বলেছেন, হবিগঞ্জ কিশোরগঞ্জ নেত্রকোণা ও কুড়িগ্রামে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণে সারাদেশের ইমামরা নেতৃত্ব দিয়েছে। এখন বন্যা পরবর্তী পুনর্বাসনেও ইমামদের আবার নেতৃত্ব দিতে হবে।

তিনি আরো বলেন, বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ কার্যক্রমে দেশের হক্কানী উলামায়ে কেরাম সর্ব প্রথম নেতৃত্ব দিয়েছেন। বন্যাদুর্গত প্রতিটি এলাকার ঘরে ঘরে এখনো উলামায়ে কেরাম সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। এসময় অন্যান্য ইমামদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মুফতী জাকির হোসাইন, মুফতী মাশহুদুর রহমান, মুফতী মানজুর আহমাদ, মুফতী রাকিব উদ্দিন, মুফতী শাইখুল হাসান, মুফতী আবদুল্লাহ মুখতার ও মাওলানা ইকবাল হোসাইন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ