Inqilab Logo

শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

ঢাকা-দক্ষিণবঙ্গ রুটে বাড়ছে বাস

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ জুলাই, ২০২২, ১২:০২ এএম

পদ্মা সেতু রাজধানীর সঙ্গে দক্ষিণবঙ্গের সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ করেছে। যে দক্ষিণবঙ্গে যাতায়াতের জন কোন নির্ধারিত সময় ঠিক থাকতো না সেই এলাকা এখন এসেছে সহজ যোগাযোগ ব্যবস্থার আওতায়। দক্ষিণবঙ্গের সকল জেলার মানুষ এখন কয়েক ঘণ্টায়ই রাজধানীতে আসতে পারছেন। এসব এলাকার মানুষের কথা চিন্তা করে পরিবহন মালিকরাও বসে নেই। তারা এই রুটে নতুন নতুন সার্ভিস চালু করছেন। এতে সাধারণ মানুষের গন্তব্যে যেতে সময় লাগছে কম।
জানা গেছে, বিভিন্ন রুটে বেড়েছে দূরপাল্লার গণপরিবহন। নতুন করে বেশ কিছু কোম্পানির গাড়ি যুক্ত হয়েছে। পাঁচশর মতো গাড়ি এখন চলাচল করছে। আরও নতুন গাড়ি নামবে বলেও জানা গেছে। দক্ষিণবঙ্গের সবচয়ে বড় পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে ঢাকা-বরিশাল রুটে। এই রুটে নতুন বাস বাড়ছে উল্লেখযোগ্য হারে। পিছিয়ে নেই ঢাকা-ঝালকাঠি, ঢাকা-ভান্ডারিয়া, ঢাকা-পটুয়াখালী, ঢাকা-কুয়াকাটা, ঢাকা-বরগুনা ও ঢাকা-পাথরঘাটা রুট। ঢাকা-দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন রুটে আগে থেকে চলাচলকারী বিভিন্ন কোম্পানির পুরনো বাসগুলো ঈদুল আজহার আগেই মেরামত করা হয়েছে।
২৫ জুন পদ্মা সেতু চালুর পর পরদিন থেকে এসব গাড়ি যাত্রীসেবা শুরু করে। এ তালিকায় আছে বিআরটিসি, হানিফ, সাকুরা, ঈগল, সুগন্ধা, রাফিন-শাফিন, বেপারি, বরিশাল এক্সপ্রেসসহ কয়েকটি কোম্পানি। অন্য রুটে চলাচলকারী বিলাশবহুল কোম্পানির আধুনিক বাসও দক্ষিণের রুটগুলোতে নামছে। ইলিশ, প্রচেষ্টা, এনা, মিজান, গ্রীন সেন্ট মার্টিন, সুপার সনি, ইউনিকসহ বেশ কিছু কোম্পানির বাস। আরও কয়েকটি কোম্পানির গাড়ি শিগগিরই তালিকায় নাম লেখানোর অপেক্ষায় রয়েছে। ফেরির বিড়ম্বনা না থাকায় বিলাসবহুল বাসের সংখ্যাও বাড়ছে ধীরে ধীরে। আরিচা ফেরি হয়ে গাবতলীতে আসা যাত্রীর সংখ্যা কমলেও পদ্মা সেতু হয়ে সায়েদাবাদের যাত্রী বেড়েছে।
পরিবহন সংশ্লিষ্টরা জানান, পদ্মা সেতু চালুর পর দক্ষিণবঙ্গের দূরপাল্লার যাত্রীদের উপচেপড়া চাপ তৈরি হয়েছে। সেটি মাথায় রেখে আগেই পরিবহনের সংখ্যা দেড়-দুই গুণ বাড়ানো হয়েছে। প্রতিটি গাড়ির ট্রিপের সংখ্যাও দেড়গুণ বেড়েছে। আধঘণ্টা থেকে একঘণ্টা পর পর গাড়ি ছাড়া হচ্ছে। বরিশাল থেকে ছাড়া গাড়িগুলো সাড়ে তিন-চার ঘণ্টায় ঢাকায় পৌঁছাচ্ছে। ভান্ডারিয়াসহ অন্যান্য রুটের ক্ষেত্রে সাড়ে চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা লাগছে। ২৬ জুন থেকে ঢাকার সঙ্গে দক্ষিণবঙ্গের ৩টি রুটে প্রতিদিন ১৫টি বিআরটিসির বাস চলছে। পদ্মা সেতু উদ্বোধন ও কোরবানির ঈদকে কেন্দ্র করে পুরনো বাসগুলো মেরামত করে সেবায় যুক্ত করা হয়। এসব বাস আগে কাঁঠালবাড়ি পর্যন্ত আসা-যাওয়া করতো। এখন ১৫টি গাড়ির মধ্যে ১৪টিই এসি বাস। বাসগুলো গুলিস্তান থেকে যাতায়াত করছে।
বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ বলেন, পদ্মা সেতু চালুর পর দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন রুটে অন্তত পাঁচশ’ গাড়ি বেড়েছে। ঈদের সময় সড়কপথে উপচেপড়া ভিড় থাকলেও এখন চাপ কম।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পদ্মা সেতু


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ