Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ১৭ জুলাই ২০১৯, ০২ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৩ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

ইরাক যুদ্ধ নিয়ে আবারো তদন্তের মুখে ব্লেয়ার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইরাক যুদ্ধের কারণে টনি ব্লেয়ারের বিরুদ্ধে নতুন করে সংসদীয় তদন্ত শুরু হতে পারে। ব্রিটিশ সংসদের একদল এমপি নতুন তদন্তের দাবিতে একটি প্রস্তাব সংসদে উত্থাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ব্রিটেনের প্রভাবশালী দৈনিক টেলিগ্রাফের অনলাইন সংস্করণের খবরে দ্য অবজারভার পত্রিকার বরাত দিয়ে গত রোববার বলা হয়, ছয়টি দলের কয়েকজন এমপি সংসদের পক্ষ থেকে একটি কমিটি গঠনের দাবি উত্থাপন করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন যে কমিটি চিলকট তদন্ত কমিটির কাছে টনি ব্লেয়ারের পেশ করা প্রমাণাদি এবং তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের কাছে ইরাকযুদ্ধে জড়িত হওয়ার ব্যাপারে তার দেয়া মৌখিক নিশ্চয়তার মধ্যে কী পার্থক্য রয়েছে তা পরীক্ষা করে দেখবে। ইরাক যুদ্ধের সময়কার ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ার মাত্র গত সপ্তাহেই নতুন করে রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়ার আভাস দেন। তিনি বলেন, জেরেমি করবিনের অধীনে লেবার পার্টি এবং থেরেসা মের ব্রেক্সিট সমর্থক সরকার এই উভয়ের ব্যাপারে যারা অসন্তুষ্ট তিনি তাদের প্রতি সমর্থন দেবেন। স্কটিশ ন্যাশনালিস্ট পার্টির জন্য বরাদ্দ দেয়া বিতর্কের সময়ে বুধবার এমপিরা ওই প্রস্তাবের ওপর বিতর্কে লিপ্ত হবেন। প্রস্তাবে এমপিদের প্রতি আহ্বান জানানো হবে যেন তারা এই স্বীকৃতি দেন যে, তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ও অন্যান্যদের দেয়া যেসব বিভ্রান্তিকর তথ্যের ভিত্তিতে তৎকালীন সরকারের ইরাক আগ্রাসন নীতি পরিচালিত হয়েছিল তার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের সঙ্গে গোপন যোগাযোগ এবং সংসদে ও জনসমক্ষে দেয়া বিবৃতিতে যে বৈপরীত্ব ছিল চিলকট তদন্তে তা স্পষ্টভাবে তুলে ধরার মতো যথেষ্ট প্রমাণাদি উপস্থাপন করা হয়েছে। একইসঙ্গে প্রস্তাবে সরকারি ও ব্যক্তিগত নীতির মধ্যে কী পার্থক্য রয়েছে তা তদন্ত করে দেখার জন্যও কমন্স সভার পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন এবং সাংবিধানিক বিষয়ক কমিটির প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। প্রস্তাবটি যারা উপস্থাপন করেছেন তাদের মধ্যে রয়েছেন স্কটিশ ন্যাশনালিস্ট পার্টির (এসএনপি) এমপি এবং স্কটল্যান্ডের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী অ্যালেক্স স্যালমন্ড, প্লেইড সিমরু থেকে নির্বাচিত ওয়েস্টমিনিস্টারের নেতা হাইওয়েল উইলিয়ামস এবং গ্রিন পার্টির কো-লিডার ক্যারোলাইন লুকাস। স্যালমন্ড বলেন, তারা যে কমিটি চাচ্ছেন সেটি টনি ব্লেয়ারের প্রিভি কাউন্সিলরের সদস্যপদ কেড়ে নিতে পারে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ারের একজন মুখপাত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান। দ্য টেলিগ্রাফ।   



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ