Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৩ আশ্বিন ১৪২৫, ৭ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

বিগ অ্যারেঞ্জম্যান্টের ভালো গল্পের ধারাবাহিক কাপুরুষ

বিনোদন ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ৩০ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিনোদন ডেস্ক : সিলেটের কুলাউরার চা বাগান, পাহাড় অরণ্যের মাঝে ‘কাপুরুষ’ ধারাবাহিকের শুটিং শেষ হলো। মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন শহীদ আলমগীর, সানজিদা তন্ময় এবং মৌ খান। এছাড়া রফিক উল্লাহ সেলিম ও তন্দ্রা পাহাড়ি ভাষাশৈলীর মাধ্যমে কাপুরুষকে সমৃদ্ধ করেছেন। সাখাওয়াৎ হোসেনের রচনা ও পরিচালনায় কাপুরুষের নাম ভ‚মিকায় অভিনয় করেছেন শহীদ আলমগীর। পরিচালক বলেন, এ ধারাবাহিকের নির্মাণ কাজে কোনো ছাড় দেইনি। গল্পের প্রয়োজনে দেশের মনোরম লোকেশনে শুটিং করার পাশাপাশি চরিত্রের প্রয়োজনে যাকে প্রয়োজন মনে হয়েছে তাকেই নিয়েছি। এমনকি ছোট্ট একটি চরিত্রের জন্যও প্রতিষ্ঠিত অভিনেতা-অভিনেত্রীদের নিতে কার্পণ্য করিনি। ধারাবাহিকটির একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন গুণী অভিনেত্রী শম্পা রেজা। তিনি বলেন, এম সাখাওয়াৎ হোসেনের আসমানী সিনেমাতে শুটিং করার সময় কাপুষের কাহিনী শুনে এতে অভিনয় করার আগ্রহ জাগে। কাজটি করার সময় অনুভব করি, একটি ভালো স্ক্রিপ্টে ভালো কাজ করছি। আমার কো-আর্টিস্ট শহীদ আলমগীরকে তার চরিত্রটি যথাথথভাবে রূপ দেয়ার জন্য আন্তরিক প্রচেষ্টা দেখে আমি মুগ্ধ হয়েছি। সে অনেক ভালো করেছে। ধারাবাহিকের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন অরুণা বিশ্বাস। তিনি বলেন, অনেক দিন পর একটি ভালো স্ক্রিপ্টে ভালো কাজ করতে পেরে অনেক ভালো লেগেছে, ধারাবাহিকের নামটিও অনেক সুন্দর। অভিনেতা নাদের চৌধুরী বলেন, আজকাল বক্তব্যধর্মী নাটক খুব একটা চোখে পড়ে না। সেখানে কাপুরুষ সত্যিই একটি নতুন ডাইমেনশনের ভালো নাটক। রফিক উল্লাহ সেলিম বলেন, এক সময় বিটিভিতে যুবরাজের মতো ভালোমানের কাজ হতো। কাপুরুষ তেমন মানের একটি নাটক। এতে অভিনয় করতে পেরে তৃপ্তি পাচ্ছি। অভিনেত্রি সানজিদা তন্ময় বলেন, তার জীবনে কাপুরুষ একটি বিশেষ কাজ। এতে একইসঙ্গে তিনটি চরিত্রে নিজেকে উপস্থাপন করা ছিলো চ্যালেঞ্জের। কাজটি চ্যালেঞ্জ হিসাবে নিয়ে অভিনয় করেছি। আশা করছি, একটি ভালো ধারাবাহিক দর্শক উপভোগ করতে পারবেন। অভিনেত্রী মৌ খান বলেন, পাহাড়ি এলাকায় কর্মরত একজন ডাক্তারের চরিত্রে অভিনয় করেছি। ধারাবাহিকটির রোমান্টিক একটি গানে পারফরম্যান্স করে খুবই ভালো লেগেছে। বিশেষ করে নয়নাভিরাম লোকেশনে গানটির শুটিং হওয়ায় দর্শক এর মাধ্যমে সিনেমার স্বাদও পাবেন। গানটি করার জন্য আলাদাভাবে কস্টিউম ডিজাইন করতে হয়েছে। নৃত্যপরিচালক ইউসুফ চমৎকার কোরিওগ্রাফি করেছেন। সব মিলিয়ে কাপুরুষ একটি মাইলফলক কাজ হবে বলে মনে করি। কাপুরুষের নাম ভ‚মিকায় অভিনয় করা শহীদ আলমীর বলেন, দীর্ঘসময় ধরে গবেষণা করে পরিচালক তাকে দিয়ে কাজটি বের করে নিয়েছেন। কেমন করেছি সেটা দর্শক বলবেন। তবে এটুকু বলতে পারি দর্শক হতাশ হবেন না। গবেষণাধর্মী কাজের পরিচালক হিসাবে পরিচিত এম সাখাওয়াত হোসেন নির্মাণ করেছিলেন ‘তিতুমিরের বাঁশের কেল্লা’, ‘রাজা ভাওয়াল সন্নাসী’র মতো ধারাবাহিক। এ ধারাবাহিকতায় তিনি নির্মাণ করলেন কাপুরুষ। এম সাখাওয়াৎ হোসেন বলেন, পাÐুলিপি তৈরি থেকে শুটিং লোকেশন পর্যন্ত খুব ভেবেচিন্তে কাজ করেছি। একটি ভালো ধারাবাহিক নির্মাণের জন্য চেষ্টার ত্রæটি করিনি। আমি মনে করি, টিভি চ্যানেলগুলোতে ভালো স্ক্রিপ্ট, ভালো মেকিং-এর দৈনতার মধ্যে কাপুরুষ একটি ভালো ধারাবাহিকের উদাহরণ হয়ে থাকবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ