Inqilab Logo

শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

উপনির্বাচনে ৯টি আসনে একাই লড়বেন ইমরান খান

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ আগস্ট, ২০২২, ১:১০ পিএম

পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদের ন'টি আসনে উপনির্বাচনের কথা ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। ন'টি আসনে নিজেই প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে জানিয়েছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

গত ১১ এপ্রিল পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে অপসারিত হয়েছিলেন ইমরান। আর তারপরই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই)-এর ১২৩ জন সদস্য পদত্যাগপত্র জমা দেন। কিন্তু স্পিকার তাদের মধ্যে ১১ জনের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছিলেন। এই ১১ জন ইমরান খান নেতৃত্বাধীন মন্ত্রিসভার সদস্য ছিলেন। পদত্যাগী মন্ত্রীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলেন শিরিন মাজারি, ইজাজ আহমেদ শাহ, আলি মহম্মদ খান এবং ফারুক হাবিব।

খালি হওয়া ১১টি আসনের মধ্যে দুটি আসনে ইতিমধ্যে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছেন। বাকি নটি আসনের জন্য উপনির্বাচন ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর খালি হওয়া আসনে ভোটগ্রহণ। সেই নটি আসনে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই)-এর পক্ষে প্রার্থী হিসেবে ইমরান খান প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।

পাক নির্বাচন কমিশনের নিয়ম অনুযায়ী, নিবার্চনে যে কোনও ব্যক্তি একাধিক আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন। তাই ইমরানের নটি আসনে লড়াইয়ে আইনি কোনও বাধা নেই। কিন্তু নির্বাচনে কোনও প্রার্থী একাধিক আসনে জিতলে, সেক্ষেত্রে একটি আসন ধরে রাখতে পারবেন। ২৫ সেপ্টেম্বরের উপনির্বাচনে ইমরান যদি নটি আসনের মধ্যে একাধিক আসনে জয়ী হন, সেক্ষেত্রে নিয়ম অনুসারে একটি আসন ধরে রাখতে পারবেন তিনি। ফলে বাকি আসনগুলিতে ফের ভোটের সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে। আর সেক্ষেত্রে ফের আগামী ৬০ দিনের মধ্যে ভোট করতে হবে কমিশনকে।

আসলে নটি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ইমরানের খানের এই সিদ্ধান্তকে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন ওই দেশের বিশেষজ্ঞ মহল। এর মাধ্যমে আগাম সাধারণ নির্বাচনের জন্য শেহবাজ শরিফ সরকারের উপর চাপ সৃষ্টির কৌশল বলে মনে করছেন কেউ কেউ। কেনানা, দেশের বর্তমান পরিস্থিতির জন্য শেরিফ সরকারকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে ফের পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচনের পক্ষে সওয়াল করেছে ইমরানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই)।

যদিও ইমরান খানের দাবি নস্যাৎ করেছে বর্তমান পাক সরকার। তবে, উপনির্বাচনে যদি ইমরান একাধিক আসনে জেতে, সেক্ষেত্রে আগাম নির্বাচনের দাবিতে ফের পাকিস্তান উত্তাল হতে পারে বলে মনে করছে কূটনৈতিক মহল। সূত্র: টিওআই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ