Inqilab Logo

শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৮ মাঘ ১৪২৮, ১৮ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

লজ্জার বিশ্ব রেকর্ড বাংলাদেশের

| প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস রিপোর্টার : ১, ২, ০, ২, ২, ০, ২, ০, ৫- না, কোনো মুঠোফোনের নম্বর নয়; বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের ব্যক্তিগত রানের টালি এটি! দুই অঙ্কের কোটা পেরিয়েছেন মাত্র দু’জন- রুমানা আহমেদের ব্যাট থেকে এসেছে ১১, জাহানারা আলমের ১২। ওহ, এর সঙ্গে অবশ্য পাকিস্তানি বোলারদের অতিরিক্ত ৮ রানের বদান্যতাও ছিল। সব মিলিয়ে স্কোর যা হলো, লজ্জার ‘ইতিহাস’ গড়েছে রুমানা আহমেদের দল। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সবচেয়ে কম রানে অলআউট হওয়ার নতুন রেকর্ড গড়েছে তারা। পাকিস্তানের কাছে ৯ উইকেটে হারা ম্যাচে ৪৪ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। ক্রিকেটের এই সংস্করণে এটা যে কোনো দলের ক্ষেত্রেই সর্বনিম্ন রান।
সর্বনিম্ন রানের লজ্জাটা অবশ্য আগে থেকেই ছিল তাদের। ভারতের বিপক্ষে এবারের আসরের প্রথম ম্যাচে করা ৫৪ ছিল বাংলাদেশের আগের সর্বনিম্ন। ওই ম্যাচেই শ্রীলঙ্কার সবচেয়ে কম রান করার আগের বিব্রতকর রেকর্ড ভাঙে তারা। ২০১২ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষেই ৫৭ রান করেছিল দলটি। মেয়েদের টি-টোয়েন্টিতে এখন সর্বনিম্ন চারটি স্কোরের তিনটিই বাংলাদেশের। এর আগে ২০১৪ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৯ উইকেটে ৫৮ রান করেছিল তারা।
গতকাল ব্যাংককের এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি মাঠে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের কেউই দায়িত্ব নিয়ে খেলতে পারেনি। ১২ রানে অপরাজিত থাকেন জাহানারা আলম। অধিনায়ক রুমানা করেন ১১ রান। ৯ জন এক অঙ্কের ঘরে ফেলা দলটি অলআউট হয় ১৫ ওভার ৩ বলে। মাত্র ৫ রানে তিন উইকেট নিয়ে পাকিস্তানের সেরা বোলার অধিনায়ক সানা মির। আইমান আনোয়ার দুই উইকেট নেন ৯ রানে। জবাবে ৯ ওভার ৫ বলে আয়েশা জাফরকে হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় পাকিস্তান। ২৬ রানে অপরাজিত থাকেন জাভেরিয়া খান। ইমরান জাভেদ করেন অপরাজিত ১৭ রান। পাকিস্তানের একমাত্র উইকেটটি নেন খাদিজা তুল কুবরা।
দায়িত্ব নিয়ে মহিলা ক্রিকেট দলের কোচ ডেভিড ক্যাপেল বলেছিলেন, ‘ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের ব্যর্থতা এখন ইতিহাস। মহিলা এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টিতে দেখা যাবে অন্য বাংলাদেশকে’। তা তো হয়ইনি, বরং লজ্জার রেকর্ডটি লেখা হলো আরো ‘উজ্জ্বল’ভাবে! টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছে ৬৪ রানে হারে বাংলাদেশ। স্বাগতিক থাইল্যান্ডকে ৩৫ রানে হারিয়ে প্রথম জয় পায় রুমানার দল। পরের ম্যাচে নেপালকে হারায় ৯২ রানে। ছয় দলের এই টুর্নামেন্টের সেরা দুই দল খেলবে ফাইনালে।
বাংলাদেশ : ৪৪/১০ (১৫.৩ ওভার) সানজিদা ১, নিগার ২, শায়লা ০, ফারজানা ২, রুমানা ১১, সালমা ১, ফাহিমা ০, আয়েশা ২, জাহানারা ১২*, পান্না ০, খাদিজা ৫; আয়মান ২/৯, আলিয়া ১/৭, সানা মীর ৩/৫, আনাম ১/২, জাভেরিয়া ১/১২, নিদা ১/৭।
পাকিস্তান : ৪৫/১ (৯.৫ ওভার) আয়েশা ২, জাভেরিয়া ২৬*, ইরাম ১৭*; খাদিজা ১/১৮, জাহানারা ০/১০, রুমানা ০/১৪, ফাহিমা ০/১৪।
ফল : পাকিস্তান ৯ উইকেটে জয়ী।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নারী ক্রিকেট


আরও
আরও পড়ুন