Inqilab Logo

রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সফর ১৪৪৪

ইসরাইলি বাহিনীর হাতে নাবলুসের সিংহ নিহত

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ আগস্ট, ২০২২, ১০:২১ এএম

অধিকৃত পশ্চিম তীরের নাবলুস নগরীতে প্রতিরোধ আন্দোলন আল-আকসা ব্রিগেডের কমান্ডারসহ তিনজনকে হত্যা করেছে ইসরাইলি বাহিনী। ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে। নিহত কমান্ডার ইব্রাহিম 'নাবলুসের সিংহ' নামে পরিচিত ছিলেন।


মঙ্গলবার ইসরাইলি সেনাবাহিনী স্থানীয় সময় ভোর ৫টায় ওল্ড সিটির একটি ভবন ঘিরে ফেলে। এখানেই আল-আকসা শহিদি ব্রিগেডের কমান্ডার ইব্রাহিম আল-নাবুলসি অবস্থান করছিলেন। এসময় কয়েক ঘণ্টা স্থায়ী বন্দুকযুদ্ধ হয়।

আল-নাবুলসি (৩০) ছাড়াও ৩২ বছর বয়স্ক ইসলাম সাবোহ এবং হোসাইন জামাল তাহা নিহত হন বলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়। এছাড়া অন্তত ৪০ জন আহত হন। এদের মধ্যে চারজনের অবস্থা সঙ্কটজনক।


আলজাজিরার জন হোলম্যান বলেন, আল-নাবুলসি আত্মসমর্পণ করতে অস্বীকৃতি জানান। তিনি নিহত হওয়ার আগে পর্যন্ত অন্যরা তাকে রক্ষা করে চলেছিল।

তিনি বলেন, নাবুলসিকে ধরার চেষ্টা আরো কয়েকবার করেছিল ইসরাইলি বাহিনী।

'নাবলুসের সিংহ' নামে জনপ্রিয় আল-নাবুলসি দীর্ঘ দিন ধরে পালিয়ে ছিলেন। তিনি ইসরাইলের কয়েকটি হত্যাচেষ্টা থেকেও রক্ষা পেয়েছিলেন। তবে ফেব্রুয়ারি ও জুলাই মাসে শহিদ সহকর্মীদের জানাজায় তার প্রকাশ্য উপস্থিতিতে ইসরাইলি বাহিনী বেশ ক্রুদ্ধ হয়।

ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ নিয়ন্ত্রণকারী ফাতাহ আন্দোলনের সশস্ত্র গ্রুপ হলো আল-আকসা শহিদি ব্রিগেড। ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় তার মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর খবরটি প্রচার করে। ইসরাইলি সেনাবাহিনীও তার মৃত্যুর খবর প্রচার করেছে।


তবে তাকে যখন হাসপাতালে নেয়া হয়, তখন শত শত ফিলিস্তিনি অপারেশন রুম ঘিরে থাকে। তারা আশা করছিলেন, তিনি বেঁচে যাবেন। এর আগে কেউ কেউ নাবুলসির শেষ বক্তব্য রেকর্ড করে সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়।

ইসরাইলি বাহিনীর ঘেরাও অবস্থায় তিনি বলেন, 'মাতৃভূমি রক্ষা করো। আমি এখন ঘেরাও হয়ে আছি। আমি শহিদ হওয়া পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাব। আমি আমার মাকে ভালোবাসি। অস্ত্র কখনো ত্যাগ করবে না।' সূত্র : আল জাজিরা



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফিলিস্তিনি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ