Inqilab Logo

বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৫ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

রাজনীতি থেকে সরিয়ে রাখতে মামলা দিচ্ছে-মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

| প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : মহান বিজয় দিবস, স্বৈরাচার পতন দিবস ও শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে নানা কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। গতকাল বুধবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যৌথসভা শেষে কর্মসূচি ঘোষণা করেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, সরকারের সিদ্ধান্তের ওপর কর্মসূচি নির্ভর করছে। তবে আশা করি, আমাদের কর্মসূচি পালনের অনুমতি দেবে সরকার। ৬ ডিসেম্বর স্বৈরাচার পতন দিবস, ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস উপলক্ষে কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
ফখরুল জানান, সরকার রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে তাদের বিরুদ্ধে একের পর এক মামলা দিচ্ছে। স্বৈরাচার পতন দিবস উপলক্ষে ৬ ডিসেম্বরও আলোচনা সভার আয়োজন করা হবে। এই সভাটিরও অনুমতি দেয়া হলে স্থান পরে জানানো হবে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা। তবে সভার স্থান যেদিন পাব  সেদিন জানাব। এ ছাড়া ওইদিন সকালে কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ দেশের সব কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে।পাশাপাশি সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে বিজয় দিবস উপলক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে যাবেন বিএনপি  চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। সেখান থেকে ফিরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধি জিয়ারত করবেন খালেদা জিয়া।
ফখরুল বলেন, বিজয় দিবসকে বরণ করার জন্য বিজয় র‌্যালি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। এজন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে। আশা করি তারা সুযোগ দেবেন। এ ছাড়া মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ২৮ ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ করবে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল। বিজয় দিবস উপলক্ষে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও গুলশান কার্যালয়ে আলোকসজ্জা করা হবে। বিএনপি মহাসচিব বলেন, ১৪ ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবী দিবসে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিত করে কালো পতাকা উত্তোলন করা হবে। নয়াপল্টন ও গুলশানসহ দেশের সব দলীয় কার্যালয়ে সকাল ৬টায় এ কর্মসূচি পালন করা হবে। বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষেও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। তবে সরকার অনুমতি দিলে পরে সভার স্থানের বিষয়টি জানানো হবে।
কর্মসূচি সফল করতে বিএনপির অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। যৌথসভায় উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, বিলকিস জাহান শিরিন, আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, আব্দুল আউয়াল খানসহ যুব বিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী নেয়াজ, নির্বাহী কমিটির সদস্য আ ক ম মোজ্জামেল হক, জাসাসের সভাপতি আব্দুল মালেক, সাধারণ সম্পাদক মনির খান, মহিলা দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ