Inqilab Logo

সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

আফগান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তহবিল ছেড়ে দিন

বাইডেনকে আন্তর্জাতিক অর্থনীতিবিদদের আহবান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

নোবেল বিজয়ী জোসেফ স্টিগলিজসহ ৭০জনেরও বেশি অর্থনীতিবিদ এবং বিশেষজ্ঞ গত বুধবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে পাঠানো একটি চিঠিতে আফগানিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সম্পদ ছেড়ে দেওয়ার জন্য ওয়াশিংটন এবং অন্যান্য দেশগুলোর প্রতি আহবান জানিয়েছেন।
চিঠিতে বলা হয়েছে, নারী ও সংখ্যালঘুদের প্রতি ক্ষমতাসীন তালেবানদের আচরণের সমালোচনা সত্তে¡ও অর্থনীতিকে কাজ করার অনুমতি দেওয়ার জন্য বিদেশী মূলধনগুলোকে আফগান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রায় ৯ বিলিয়ন ডলার সম্পদ দ্য আফগানিস্তান ব্যাংকে (ডিএবি) ফেরত দিতে হবে।
চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘আফগানিস্তানের জনগণ এমন একটি সরকারের জন্য দ্বিগুণ ভোগান্তির শিকার হয়েছে যা তারা বেছে নেয়নি’। ‘মানবিক সঙ্কট প্রশমিত করার জন্য এবং আফগান অর্থনীতিকে পুনরুদ্ধারের পথে সেট করার জন্য আমরা আপনাকে অনুরোধ করছি ডিএবিকে তার আন্তর্জাতিক রিজার্ভ পুনরুদ্ধার করার অনুমতি দিতে’।
মার্কিন অর্থমন্ত্রী জ্যানেট ইয়েলেনকে সম্বোধন করা এ চিঠিতে ৭১ জন অর্থনীতিবিদ এবং একাডেমিক বিশেষজ্ঞরা স্বাক্ষর করেছেন, যাদের অনেকেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি জার্মানি, ভারত এবং যুক্তরাজ্যের বাসিন্দা।
তাদের মধ্যে ছিলেন প্রাক্তন গ্রীক অর্থমন্ত্রী ইয়ানিস ভারোফাকিস এবং কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক স্টিগলিটজ যিনি ২০০১ সালে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন এবং ওয়াশিংটন-ভিত্তিক থিঙ্ক ট্যাঙ্ক সেন্টার ফর ইকোনমিক অ্যান্ড পলিসি রিসার্চের উপদেষ্টা বোর্ডে ছিলেন, যেটি চিঠিটি আয়োজন করেছিল।
প্রায় এক বছর আগে বিদেশী বাহিনী প্রত্যাহারের ফলে তালেবানরা ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে আফগানিস্তানের অর্থনীতি গভীর সঙ্কটে নিমজ্জিত। ইউক্রেনের সঙ্ঘাতের কারণে হঠাৎ করে সাহায্যের হ্রাস এবং মুদ্রাস্ফীতিসহ অন্যান্য কারণ অবদান রেখেছে, তবে অর্থনীতিবিদরা বলছেন যে, দেশটি তার রিজার্ভের অ্যাক্সেস ছাড়াই কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাজ করতে অক্ষমতার কারণে মারাত্মকভাবে বাধাগ্রস্ত হয়েছে।
এর ফলে আফগান মুদ্রার তীক্ষè অবমূল্যায়ন হয়েছে, আমদানির দাম বেড়েছে এবং নাগরিকরা তাদের সঞ্চয় অ্যাক্সেস করতে এবং বেতন পেতে সমস্যার সম্মুখীন হয়ে ব্যাংকিং ব্যবস্থার প্রায় পতনের দিকে নিয়ে গেছে।
চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘তার বৈদেশিক রিজার্ভের অ্যাক্সেস ছাড়া আফগানিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংক তার স্বাভাবিক, প্রয়োজনীয় কাজ সম্পাদন করতে পারে না ... অনুমান করা যায়, আফগানিস্তানের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে’ চিঠিতে বলা হয়েছে। সূত্র : এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।



 

Show all comments
  • Md Shamim ১২ আগস্ট, ২০২২, ৭:১৩ এএম says : 0
    এইটা আটকে রাখা তেই আমেরিকার আজ এই দুরবস্থা।
    Total Reply(0) Reply
  • N Irfan Shah ১২ আগস্ট, ২০২২, ৭:১৪ এএম says : 0
    As soon as US should do that job for Afgan
    Total Reply(0) Reply
  • Muhammad Faisal ১২ আগস্ট, ২০২২, ৭:১৪ এএম says : 0
    কোরআনে আছে যে, যারা মুমিন তারা আল্লাহর পথে পরীক্ষিত হবেন, অসুখ-বিসুখ রোগশোক ও সম্পদ নষ্টের দ্বারা। ইনশাআল্লাহ শত অভাব থাকলেও আফগানিস্তানের মুমিনগণ আল্লাহর অশেষ রহমতে ঈমানের সাথে এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবেন। আর আল্লাহ তায়ালার "মকর" বা কৌশলের দ্বারা পাকড়াও হওয়ার মাধ্যমে খোদাদ্রোহী বাতিল কুফরি শক্তির দম্ভ চূর্ণ হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • ibrahim.manik ১২ আগস্ট, ২০২২, ৩:১৩ পিএম says : 0
    নিশ্চয় আল্লাহ মুসলমানদের সাথে আছেন। কাফের মোশরেকরা বলেছিল আফগান মানুষেরা দুর্ভিক্ষে ও খাদ্যসঙ্কটে পরবে আরো রব্বে কারীম আল্লাহ তাদের অতটা কষ্টে রাখেনি কাফের মিডিয়া সব সময় তালেবান সরকারের বিরুদ্ধে নেগেটিভ সংবাদ প্রকাশ করে। যুক্তরাষ্ট যে ক্ষতির পরেছে তা মিডিয়া চেপে রাখতেছে
    Total Reply(0) Reply
  • Nobi ১২ আগস্ট, ২০২২, ৭:৩৪ এএম says : 0
    আমেরিকা পতনের দ্বারপ্রান্তে আগামী ১০-১৫ বছরের মধ্যে। বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা ও অন্যদের সম্পদচুরি আটকে রাখার জন্য। সবদেশ বুঝে গেছে তাূের পতারনা। তারা যদি মানবিক হতো আফগানিস্তানের রিজার্ভ আটকে রাখতো না।তারা পৃথিবির বড় বেইমান ও যুদ্ধবাজ
    Total Reply(0) Reply
  • jashim uddin ১২ আগস্ট, ২০২২, ৮:২৮ এএম says : 0
    তাদের অর্থ তাদেরকে ফেরত দেয়া হোক
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জোসেফ স্টিগলিজ
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ