Inqilab Logo

সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৬ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

সৈয়দপুরে জোরপূর্বক বাল্যবিয়ে মেয়ের বাবার কারাদন্ড

| প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সৈয়দপুর (নীলফামারী) উপজেলা সংবাদদাতা : সৈয়দপুরে এক মাদরাসায় সপ্তম শ্রেণিপড়–য়া মেয়েকে জোরপূর্বক বাল্যবিয়ের দেয়ার দায়ে তার বাবা নবিউল ইসলাম কালাকে (৪৫) ভ্রাম্যমাণ আদালতে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদ- দেয়া হয়েছে। গতকাল (বুধবার) দুপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আবু ছালেহ মো: মুসা জঙ্গি ওই দ-াদেশ দেন। পরে তাকে নীলফামারী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, সৈয়দপুর উপজেলার ১ নম্বর কামারপুকুর ইউনিয়নের নিজবাড়ি আলোকদিপাড়া গ্রামের মুরগী ব্যবসায়ী নবিউল ইসলাম কালার মেয়ে (১২)। সে একই ইউনিয়নের আইসঢাল খিয়ারপাড়া আলিম অ্যান্ড ভোকেশনাল মাদরাসার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। গত বুধবার (২৩ নভেম্বর) রাতে পার্শ্ববর্তী রংপুরের তারাগঞ্জের রাজমিস্ত্রী লুৎফর রহমানের সাথে তার বিয়ে ঠিক করা হয়। তার বাল্যবিয়ের আয়োজনের কথা জানতে পেরে ওই ছাত্রী তাৎক্ষণিক বিষয়টি মাদরাসার সুপারকে জানায়। মাদরাসা সুপার মাওলানা আফজাল বিন নাজির সাথে সাথে ঘটনাটি সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে (ইউএনও) অবগত করেন। পরে ইউএনওর নির্দেশে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল করিম লোকমান ওই বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেন। কিন্তু ওইদিন গভীর রাতে সপ্তম শ্রেণিতে পড়–য়া ওই মেয়েকে পাশের তারাগঞ্জ উপজেলায় এক নিকটাত্মীয়ের বাড়িতে নিয়ে জোরপূর্বক বাল্যবিয়ে দেয় তার বাবা।
জোরপূর্বক বাল্যবিয়ে দেয়ায় অভিযুক্ত বাবা মুরগী ব্যবসায়ী নবিউল ইসলাম কালা গা ঢাকা দেয়। পুলিশ তাকে গ্রেফতারে চেষ্টা করছিল। গতকাল বুধবার সে তার বাড়ির পাশের চিকলীবাজারে ঘোরাঘুরি করছিল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ