Inqilab Logo

রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সফর ১৪৪৪

এটিএম বুথে ব্যবসায়ী খুন

নিরাপত্তা নিয়ে আতঙ্কে সাধারণ মানুষ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

রাজধানীর উত্তরার সোনারগাঁও জনপদের এটিএম বুথে টাকা উত্তোলন করার সময় ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে শরিফ উল্লাহ (৪৪) নামে এক টাইলস ব্যবসায়ী খুন হয়েছেন। পরে ওই ছিনতাইকারীকে ধাওয়া করে আব্দুস সামাদ নামের একজনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন নিরাপত্তাপ্রহরী। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার সময় এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর পর গুরতর জখম অবস্থায় শরিফকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এটিএম বুথের মতো নিরাপদ জায়গায় ছিনতাইকারীর হাতে ব্যবসায়ী খুনের ঘটনায় রাজধানীর সাধারন মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। গতকাল দুপুরে মালিবাগে কথা হয় ফল ব্যবসায়ী মজিদ আহমেদের সাথে। তিনি ইনকিলাবকে বলেন, উত্তরায় এটিএম বুথের ভেতরে টাকা উঠানোর সময় ছুরিকাঘাতে এক ব্যবসায়ী খুন হয়েছেন। এটি গতকাল সকাল থেকে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে আছে। সাধারণ মানুষ যেখানে নিরাপদ মনে করে, সেই এটিএম বুথের মধ্যেই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। মানুষ আর কোথায় নিরাপদ থাকবে।
তিনি বলেন, সকাল থেকেই আমার মনে হচ্ছে পাশেই মনে হয় কোন অপরাধী রয়েছে। কখন যে আমাকে আক্রমন করে বসে। আমরা আর নিজেদের নিরাপদ ভাবতে পারছি না। শুধু আমি নই আমার মতো মালিবাগের অনেক ব্যবসায়ীর মধ্যেও বিষয়টি নিয়ে আতঙ্ক বিরাজ করছে বলে ব্যবসায়ী মজিদ আহমেদ মন্তব্য করেন।
নিহত শরীফের ভাতিজা নুরুল ইসলাম বলেন, উত্তরা ১২ নম্বর সেক্টরে তার স্যানিটারি দোকান বন্ধ করে রাতে বাসায় ফেরার পথে এই ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটে। পুলিশের মাধ্যমে খবর পেয়ে আমরা উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এসে তাকে মৃত অবস্থায় পাই।
উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, হামলাকারীরা এটিএম বুথের ভিতর শরীফের ওপর ছুরি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে। তার ডান পাশের কানের নিচে ও গলায় ধারালো অস্ত্রের বড় জখম এবং বাম পাশের কানের নিচে দুটি ক্ষতচিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ছুরিকাঘাতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তিনি মারা গেছেন।
ওসি আরো বলেন, ছিনতাইকারী আব্দুস সামাদের কাছ থেকে হামলায় ব্যবহৃত ছুরিটি উদ্ধার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে আব্দুস সামাদ জানিয়েছেন, নিহত শরীফের কাছ থেকে কোনো টাকা ছিনতাই করতে পারেনি। তবে ছিনতাইয়ের সময় তার সঙ্গে আরো দুই একজন ছিনতাইকারী জড়িত থাকতে পারে। এ জন্য আমরা এটিএম বুথের সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ পর্যবেক্ষণ করছি। এ ঘটনায় নিহতের ভাই আনোয়ার উল্লাহ বাদী হয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। হত্যা মামলায় আব্দুস সামাদকে আসামি করা হয়েছে। তাকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।
গতকাল শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। নিহতের পারিবারিক সূত্র জানায়, জানাযা শেষে লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জের মধুপুর গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে লাশ দাফন করা হবে।
পুলিশের উত্তরা বিভাগের ডিসি মোর্শেদ আলম বলেন, ওই ছিনতাইকারীর বাসা টঙ্গীতে। এই গ্রুপটি টঙ্গী থেকে রাতে উত্তরা এলাকায় প্রবেশ করে ছিনতাইসহ নানা অপকর্ম করে পালিয়ে যায়। ঘটনার দিন রাতে ওই ছিনতাইকারী বেশ কয়েকটি এটিএম বুথের সামনে রিকশায় করে পর্যবেক্ষণ করে। পরে সোনারগাঁও জনপথ রোডের ডাচ-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথের সামনে এসে দেখে যে একজন ব্যক্তি টাকা তুলতে বুথে প্রবেশ করছে। তখন সে বুথের ভিতর ঢুকে ব্যবসায়ী শরীফ উল্লাহকে এলোপাথাড়ি ছুরি মারতে থাকে। এসময় বুথের সিকিউরিটি গার্ড বিষয়টি টের পেয়ে চিৎকার করতে থাকেন। ছিনতাইয়ে ব্যর্থ হওয়ার পর আব্দুস সামাদ ছুরি নিয়ে বুথ থেকে বের হওয়ার পর জনতা তাকে ধাওয়া করে ধরে ফেলে।

 

 

 



 

Show all comments
  • কাজী সেলিম ১ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৬:৪৪ পিএম says : 0
    হতভাগা আমার ক্লাস ফ্রেন্ড বিষয়টা মেনেই নিতে পারছিনা
    Total Reply(0) Reply
  • কাজী সেলিম ১ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৬:৩৮ পিএম says : 0
    হতভাগা আমার ক্লাস ফ্রেন্ড বিষয়টা মেনেই নিতে পারছিনা
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ