Inqilab Logo

রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সফর ১৪৪৪
শিরোনাম

উপকূলে সুপেয় পানি নিশ্চিতের দাবিতে মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার, সাতক্ষীরা থেকে | প্রকাশের সময় : ১৪ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

সাতক্ষীরা উপকূলের মানুষের জন্য সুপেয় খাবার পানির অধিকার নিশ্চিতের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সামনে বেসরকারি সংস্থা লির্ডাস, স্বদেশ, পার্টিসিপেটরি রিসার্চ অ্যান্ড অ্যাকশান নেটওয়ার্ক-প্রান ও অ্যাকশন এইড এর সহযোগিতায় জেলা নাগরিক কমিটি, জলবায়ু অধিপরামর্শ ফোরাম এবং শ্যামনগর, কালিগঞ্জ ও আশাশুনি উপজেলা যুব ফোরাম সম্মিলিতভাবে এই মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে।
‘বিনামূল্যে নিরাপদ ও পর্যাপ্ত সুপেয় পানি প্রাপ্তি আমার অধিকার’ এই প্রতিপাদ্যে আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল হামিদের সভাপতিত্বে ও স্বদেশ’র নির্বাহী পরিচালক মাধব চন্দ্র দত্তের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব ও সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি অ্যাড. আবুল কালাম আজাদ, জেলা ভূমিহীন সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুস সামাদ, জেলা প্রতিবন্ধী পুনর্বাসন কল্যাণ সমিতির নির্বাহী পরিচালক শেখ আবুল কালাম আজাদ, শ্যামনগর উপজেলা যুব ফোরামের সভাপতি মো. মমিনুর রহমান, কালিগঞ্জ উপজেলা যুব ফোরামের সভাপতি হারুন অর রশিদ, সদস্য গোবিন্দ মুন্ডা, সুন্দরবন ফাউন্ডেশনের আফজাল হোসেন প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দেশে উন্নয়ন হচ্ছে। তবে উপকূলের মানুষের জীবনমানে এখনো উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি। সাতক্ষীরা উপকূলীয় অঞ্চলে সুপেয় খাবার পানির জন্য এখনও হাহাকার চলছে। নদী ভাঙনসহ সুপেয় পানির সংকটের কারণে নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে নারী শিশুরা। লোনা পানির কারণে মাতৃত্ব হারাচ্ছে উপকূলের নারীরা। সুপেয় পানির অভাবে মানুষ পুকুরের দূষিত পানি পান করে নানাবিধ পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। বিশেষ করে নারীরা রয়েছে চরম স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে। উপকূলের এই সংকট সমাধানে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগ থাকলেও তা যথেষ্ট নয়। বক্তারা অনতি বিলম্বে উপকূলীয় এলাকায় সুপেয় পানি নিশ্চিতের দাবি জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন