Inqilab Logo

রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সফর ১৪৪৪

কিশোর কর্মচারীর রহস্যজনক মৃত্যু

বড়াইগ্রাম (নাটোর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৪ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

নাটোরের বড়াইগ্রামের বনপাড়া বনলতা অটো ব্রিকস লিমিটেডে তারেক বাবু (১৭) নামে অপ্রাপ্ত বয়স্ক এক কর্মচারীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। নিহত তারেক বাবু দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার মধ্য মাগুড়া গ্রামের আজাদ আলীর ছেলে। গতকাল শনিবার বিকালে নিহতের লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে।
অটো ব্রিকস কর্তৃপক্ষ জানান, গত শুক্রবার রাত দু’টায় ফ্যাক্টরির উত্তর পাশের বৈদ্যুতিক লাইনে কবুতর বসেছিল। সিকিউরিটি গার্ড তারেক বাবু কবুতরটি ধরার জন্য বৈদ্যুতিক খুঁটি বেয়ে ওপরে ওঠে। এ সময় ৩৩ হাজার ভোল্টেজের বৈদ্যুতিক লাইনের কাছাকাছি যেতেই সে বিদ্যুতায়িত হয়ে নিচে পড়ে মারা যায়। তবে স্থানীয় সূত্র ও কয়েকজন শ্রমিক জানান, রাত ৮টার দিকে অটো ব্রিকসের ভেতরে আভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে শ্রমিকদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এ সময় সেখানে হৈহুল্লোড়সহ হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর মধ্যরাতে তারেক বাবুর লাশ পাওয়ার বিষয়টি জানা যায়। এদিকে, গত শনিবার সংবাদকর্মীরা সেখানে গিয়ে ঘটনার সময়ের সিসিটিভির ফুটেজ দেখতে চাইলে ফ্যাক্টরি কর্তৃপক্ষ তা দেখাতে আপত্তি জানান। এক পর্যায়ে বেশি চাপাচাপি করলে সিসিটিভি নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তি ছুটিতে থাকায় ফুটেজ দেখানো সম্ভব হচ্ছে না বলে জানানো হয়। এ ব্যাপারে ফ্যাক্টরির জেনারেল ম্যানেজার শহিদুল ইসলাম শাহীন জানান, কিছু মানুষ এক জায়গায় থাকলে হৈচৈ হয়েই থাকে, তবে শ্রমিকদের মধ্যে হাতাহাতির অভিযোগ সঠিক নয়। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়েই সে মারা গেছে। তবে সে বৈদ্যুতিক খুঁটিতে ওঠার সময় অন্য কেউ দেখেনি। এ কারণে তাকে সেখানে উঠা থেকে নিবৃত্ত করা সম্ভব হয়নি বলে তিনি জানান। বড়াইগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক জাহিদ জানান, ঘটনাস্থল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। ফ্যাক্টরি কর্তৃপক্ষ বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যাবার বিষয়টিই বলছে। কিন্তু কিছুটা সন্দেহ হওয়ার কারণেই লাশের ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে তার মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন