Inqilab Logo

রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সফর ১৪৪৪

সমস্যা সমাধানে যথাযথভাবে ব্যবস্থা নেয়ার প্রস্তাব আলভির

পাকিস্তানের রাজনৈতিক অচলাবস্থা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

ক্রমবর্ধমান রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ড. আরিফ আলভি শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরীফ এবং প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান উভয়ের সাথে কাঁটাতারপূর্ণ ইস্যুতে রাজনৈতিক অচলাবস্থা কাটাতে এবং নতুন নির্বাচন এবং অর্থনীতির একটি সনদের জন্য একটি বিস্তৃত ঐকমত্য খুঁজে পাওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন।
জাতীয় নিরাপত্তার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে প্রেসিডেন্ট রাজনৈতিক দলগুলোকে সামরিক বাহিনীর সাথে রাজনৈতিক বোঝাপড়া নিয়ে বিতর্কের বিষয় এড়াতে অনুরোধ করেন।

তিনি জোর দিয়ে বলেন, সামরিক বাহিনীকে তার যথাযথ সম্মান দেয়া উচিত এবং বিতর্কিত বিবৃতি দিয়ে লক্ষ্যবস্তু করা উচিত নয়। আলভির এ বক্তব্য এমন এক সময় এল যখন পাকিস্তানের রাজনৈতিক স্টেকহোল্ডারদের মধ্যে নিরলস সংঘর্ষ, ইমরানের চিফ অব স্টাফের বিরুদ্ধে সশস্ত্র বাহিনীতে বিদ্রোহ উসকে দেওয়ার অভিযোগ আছে।
লাহোরের পাঞ্জাব গভর্নর হাউসে সাংবাদিকদের সাথে এক বৈঠকে আলভি রাজনৈতিক দল এবং মূল স্টেকহোল্ডারদের একসাথে বসার এবং অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান এবং অর্থনীতির একটি সনদ তৈরিতে একটি পরিকল্পনা তৈরির জন্য একটি পরামর্শমূলক প্রক্রিয়া শুরুর প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন।
আলভী বলেন, দেশের সব প্রতিষ্ঠানই তার কাছে সম্মানজনক এবং প্রিয়, তিনি কোনো বিতর্ক তৈরিতে বিশ্বাস করেন না।

আলভি তার কথোপকথনের সময় বলেন, তিনি দীর্ঘকাল ধরে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) প্রধান প্রবক্তা ছিলেন, এমনকি পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) এবং পরবর্তীতে পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল) এর নওয়াজ শরিফের সরকারের সময়ও।
তিনি আরো বলেন, তিনি পাকিস্তান তাহরিকে ইনসাফকে (পিটিআই) নির্বাচনের জন্য প্রযুক্তি আনার জন্য রাজি করেছিলেন। ইভিএম অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন পরিচালনার জন্য অত্যন্ত সহজ সমাধান প্রদান করে বলে মত প্রকাশ করেন। তিনি নির্বাচন প্রক্রিয়ায় প্রযুক্তি ব্যবহারের বিষয়ে ঐকমত্য গড়ে তোলার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দিয়ে বলেন, প্রযুক্তি দেশে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে শক্তিশালী করবে।

আলভি বলেন, মুফতি তাকি ওসমানির মাধ্যমে তিনি আফগান সরকারকে আফগান শিক্ষার্থীদের, বিশেষ করে মহিলা শিক্ষার্থীদের দূরশিক্ষা এবং ভার্চুয়াল শিক্ষা প্রদানের প্রস্তাব দিয়েছিলেন।
দেশের কিছু অংশে তালেবানদের আগমনের সাম্প্রতিক প্রতিবেদনের বিষয়ে মন্তব্যকালে প্রেসিডেন্ট বলেন যে, এ বিষয়ে তার কোনো মতামত নেই। তবে তিনি মনে করেন, এ জাতীয় আলোচনা সংসদে বাধ্যতামূলক করা উচিত এবং ফলাফল প্রকাশের আগে সংসদে রিপোর্ট করা উচিত।

আলভি বলেন, তিনি বিশ্বাস করেন, দুর্নীতি যে কোনো দেশের পশ্চাদপদতার একটি প্রধান কারণ। তার মতে, দুর্নীতি প্রতিরোধের সর্বোত্তম উপায় হল সব আর্থিক লেনদেন আনুষ্ঠানিক ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে করা।
অন্য এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সোশ্যাল মিডিয়া এখন এখানে থাকার জন্য ছিল তবে দুর্ভাগ্যবশত, ‘আমরা এতে অভ্যস্ত নই এবং এটি নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন’।

তিনি উল্লেখ করেন, সোশ্যাল মিডিয়ার ৯০ ভাগ ভাল ছিল এবং প্রচুর তথ্য সরবরাহ করে, কিন্তু ‘আমাদের উচিত বাকি ১০ ভাগ জাল খবর এবং শোনা কথা ফিল্টার করে মোকাবেলা করতে শেখা। তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া এবং এতে কী ঘটছে তার ওপর ফোকাস করা দরকার’। সূত্র : এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ