Inqilab Logo

সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

ইনকিলাবের ফেনী সাবেক আঞ্চলিক অফিস প্রধান আবদুল হকের ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

ফেনী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৩ আগস্ট, ২০২২, ১০:৪৬ পিএম

রিপোর্টার্স ইউনিটির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক সহ-সভাপতি, দৈনিক ইনকিলাবের ফেনীর সাবেক আঞ্চলিক অফিস প্রধান প্রয়াত সাংবাদিক আবদুল হকের ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল (১৩ আগষ্ট) শনিবার বাদ আছর ফেনী রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত স্মরণ সভায় সভাপতিত্ব করেন রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি ও ফেনীর সময় পত্রিকার সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, এটিএন নিউজের ফেনী প্রতিনিধি ও ইউনিটির সাধারন সম্পাদক দিদারুল আলমের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন দৈনিক ভোরের কাগজের ফেনী প্রতিনিধি শুকদেব নাথ তপন,দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার ফেনীর স্টাফ রিপোর্টার যতন মজুমদার,দৈনিক দিনকাল পত্রিকার ফেনী প্রতিনিধি মফিজুর রহমান,দৈনিক নয়া শতাব্দী পত্রিকার ফেনী প্রতিনিধি আলী হায়দার মানিক ও মরহুমের বড় ছেলে দৈনিক ইনকিলাবের ফেনী জেলা সংবাদদাতা মোঃ ওমর ফারুক প্রমুখ।

এছাড়াও স্মরণ সভায় উপস্থিত ছিলেন, বণিক বার্তার ফেনী প্রতিনিধি নুর উল্লাহ কায়সার,মোহনা টিভির ফেনী প্রতিনিধি তোফায়েল আহমেদ নিলয়,দৈনিক বাংলাদেশের আলোর ফেনী প্রতিনিধি এম এ জাফর, দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশের ফেনী প্রতিনিধি জহিরুল হক মিলন, সাপ্তাহিক স্বদেশকন্ঠ পত্রিকার সম্পাদক নুর তানজিলা রহমান, দৈনিক দেশ রুপান্তর পত্রিকার ফেনী প্রতিনিধি শফি উল্লাহ রিপন, সাপ্তাহিক আলোকিত ফেনীর বার্তা সম্পাদক বকুল আক্তার দরিয়া,দৈনিক স্টার লাইন পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার আজিজ আল ফয়সাল, দৈনিক ফেনী পত্রিকার নিজস্ব প্রতিবেদক সাহাব উদ্দিন, দৈনিক আলোকিত প্রতিদিনের ফেনী প্রতিনিধি মোঃ সাইফুল ইসলাম, দৈনিক নয়াপয়গাম পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার এ এস এম জাকারিয়া ভূঁঞা।

স্মরণ সভায় বক্তারা বলেন, সাংবাদিক আবদুল হক ছিলেন মফস্বলের একজন পরিশ্রমী ও অভিজ্ঞ সাংবাদিক। তার লেখনীতে উঠে আসতো ফেনীর জনপদের উন্নয়ন, সমস্যা, সম্ভাবনা। তিনি ছিলেন ২৪ ঘন্টার সাংবাদিক। সারাদিন তিনি খবরের পিছনে ছুটতেন। তিনি সবসময় সাংবাদিকতা নিয়ে ভাবতেন। তিনি বিকল্প কোনো পেশা নিয়ে চিন্তা করতেন না। বক্তারা বলেন, তখনকার সাংবাদিকতা ছিল খুব কঠিন। সেইরকম কঠিন সময়কে তিনি জয় করেছেন,সুনাম অর্জন করেছেন খুবই দক্ষতার সাথে। তিনি নিঃসন্দেহে এ জনপদের একজন চারণ সাংবাদিক ছিলেন। তার মধ্যে কোনো প্রকার মিথ্যাচার,লোভ লালসা ছিলনা। একেবারে সাদামাঠা ও সহজ সরল জীবন যাপন করতেন তিনি। তিনি ব্যক্তিগত জীবনে একজন ধার্মিক মানুষ ছিলেন। তার সাথে ছিল সকলের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক।

তারা আরো বলেন, রিপোর্টার্স ইউনিটির প্রয়াত সাংবাদিক আবদুল হক, গোলাম মোস্তফা ভূঁঞা,সাহাব উদ্দিন মজুমদার,খলিলুর রহমান ও কবি মাহাবুব আলতামাস এসব গুণী মানুষগুলো আমাদের মাঝে আর কোনোদিন আসবেনা। কিন্তু আমরা আমাদের স্বার্থে এই মানুষগুলোকে নিয়ে চর্চা করা উচিত,তাদের ভালো দিকগুলোকে নিয়ে আলোচনা করা উচিত। এদের থেকে আমাদের অনেককিছু শিখার আছে। আমরা আমাদের পেশাগত জায়গায় থেকে তাদের ভালো কাজগুলো নিয়ে চর্চা করা উচিত। আমরা তাদের স্মৃতিকে বহন করে চলা উচিত। সভার শেষে প্রয়াত সাংবাদিক আবদুল হক ও ফেনী প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত আবদুর রহমান বিকম সহ রিপোর্টার্স ইউনিটির অন্যান্য প্রয়াত সাংবাদিক বৃন্দের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া মোনাজাত করেন ফেনী বড় জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মোঃ সাইফুল্লাহ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ