Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

পাকিস্তানের সমস্যা মেটাতে আগ্রহী ট্রাম্প

ট্রাম্প-শরীফ ফোনালাপ

| প্রকাশের সময় : ২ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল ট্রাম্প বলেছেন, পাকিস্তান যাতে তার রষ্ট্রীয় সমস্যার সমাধান খুঁজে পায়, সে জন্য তিনি যে কোনো ভূমিকা রাখতে ইচ্ছুক। গত বুধবার তিনি পাক-প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের সঙ্গে টেলিফোনে আলাপকালে এ ইচ্ছার কথা জানান। ডনের খবরে বলা হয়, টেলিফোনে কথোপকথনের সময় নওয়াজ বিজয়ের জন্য ট্রাম্পকে অভিনন্দন জানান। এ সময় ট্রাম্প বলেন, পাকিস্তানের সমস্যা সমাধানে ভূমিকা রাখতে পারলে আমি সম্মানিত হব এবং এ জন্য যা প্রয়োজন তা ব্যক্তিগতভাবেই করব। সিবিএস নিউজে বলা হয়, আলাপকালে ট্রাম্প নওয়াজের প্রশংসা করে বলেন, আপনি অসাধারণ মানুষ। দেশের জন্য আপনার কাজ চোখে পড়ার মতো। এসময় শিগগিরই নওয়াজ শরিফের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার ইচ্ছা পোষণ করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ট্রাম্প পাকিস্তানকে অসাধারণ সুযোগের এক বিস্ময়কর দেশ বলে অভিহিত করেন এবং দেশটিতে কিছু অত্যন্ত বুদ্ধিজীবী মানুষ রয়েছে বলে মন্তব্য করেন। পাক-প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্টকে পাকিস্তান সফরের আমন্ত্রণ জানান। উত্তরে তিনি বলেন, পাকিস্তান সফর ও দেশটির জনগণের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে তিনি আগ্রহী। এর আগে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার আগে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে কাশ্মীর ইস্যু সমাধানে মধ্যস্ততা করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন ট্রাম্প। ডন।

পাক, চীন সীমান্ত বরাবর কৌশলগত রেললাইন গড়বে ভারত
ইনকিলাব ডেস্ক : ভারত সরকার চীন, পাকিস্তানসহ প্রতিবেশি দেশগুলোর সীমান্ত বরাবর রেললাইন বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানালেন দেশটির কেন্দ্রীয় রেল প্রতিমন্ত্রী রাজীব গোঁহাই। গত বুধবার লোকসভায় এক লিখিত জবাবে তিনি জানান, কৌশলগত কারণে চীন, নেপাল ও পাকিস্তান সীমান্তে রেললাইন তৈরির প্রস্তাবটি তুলেছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। মোট ১৪টি কৌশলগত দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ লাইন চিহ্নিত করা হয়েছে, যার মধ্যে প্রথম দফায় চারটির কাজ হাতে নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এগুলো হলো, ৩৭৮ কিমি দীর্ঘ মিসামারি-তেঙ্গা-তাওয়াং লাইন, ৪৯৮ কিমি বিলাসপুর-মানালি-লেহ লাইন, ২২৭ কিমি পাসিঘাট-তেজু-রুপাই লাইন ও ২৪৯ কিমি নর্থ লখিমপুর-বামে-শিলাপাথার লাইন। যদিও এগুলোর একটিও চূড়ান্ত অনুমোদন পায়নি বলে জানান মন্ত্রী। তিনি বলেন, সবক’টি প্রকল্পই যাবে দুর্গম হিমালয়ের মধ্য দিয়ে, তাই ওখানকার ভূতাত্ত্বিক চেহারা, স্থিতিশীলতা, নিরাপত্তা সংক্রান্ত সবদিকই আগে ভালো করে পরীক্ষা করে দেখা হবে। সেইমতো ফাইনাল লোকেশন সার্ভের (এফএলএস) কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে। এজন্য খরচ হবে ৩৪৫ কোটি টাকা। ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জন্য প্রতিরক্ষামন্ত্রণালয় এ জন্য ৮৭.১৮ কোটি টাকা দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সূত্র : ইকনোমিক টাইমস।



 

Show all comments
  • Tawhidul Islam ২ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১০:১৩ এএম says : 0
    হে কি সমস্যা মিটাইব হে ত নিজেই একটা সমস্যা
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ