Inqilab Logo

রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সফর ১৪৪৪
শিরোনাম

আইসিএসবির উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী পালন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ আগস্ট, ২০২২, ৮:১০ পিএম

ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড সেক্রেটারিজ অব বাংলাদেশ (আইসিএসবি) যথাযোগ্য মর্যাদা ও শ্রদ্ধার সঙ্গে ১৫ই আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালন করে। আইসিএসবি এর ঢাকা রিজিওনাল চ্যাপ্টার (ডিআরসি) সাব কমিটির তত্ত্বাবধানে কাউন্সিল মেম্বার, ইনস্টিটিউট এর সদস্য, ছাত্র ও কর্মকর্তাগণ আজ সোমবার জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালন করেন।

দিবসটি শুরু হয় ভোরে জাতীয় পতাকা উত্তোলন (অর্ধনমিত) এর মাধ্যমে। আইসিএসবি এর সচিব ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ জাকির হোসেন, ডিআরসি এর চেয়ারম্যান মোঃ জাহাঙ্গীর আলম মানিক এফসিএস ও কাউন্সিল মেম্বার সহ বিপুল সংখ্যক আইসিএসবির সদস্য ও কর্মকর্তাগনের অংশগ্রহনে দোয়া মাহফিল আয়োজন করা হয় ও ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট এ শাহাদত বরণকারী সকল শহীদের আত্নার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

বিকেলে বিপুল সংখ্যক আইসিএসবির কাউন্সিল মেম্বার, সদস্য, ছাত্র ও কর্মকর্তাগনের অংশগ্রহনে স্বাধীনতার মহান স্থপতি, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর বর্নাঢ্য জীবন সম্পর্কে একটি আলোচনা অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব এ কে এম আলী আহাদ খান, অতিরিক্ত সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। অংশগ্রহণকারীরা বাংলাদেশের স্বাধীনতা-উত্তর পুনর্গঠন ও উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান আলোচনা ও স্মরণ করেন।

আইসিএসবির সচিব ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ জাকির হোসেন অনুষ্ঠানটিতে সূচনা বক্তব্য প্রদান করেন এবং এই অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের পরিচয় করিয়ে দেন। ডিআরসির চেয়ারম্যান ও কাউন্সিল সদস্য মোঃ জাহাঙ্গীর আলম মানিক এফসিএস অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন। প্রেসিডেন্ট মোজাফফর আহমেদ তার স্বাগত বক্তব্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এর অতিরিক্ত সচিব এ কে এম আলী আহাদ খানকে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার জন্য ধন্যবাদ জানান। আহমেদ তার বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধের আগে জাতির পিতার অবদান এবং মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে ক্যারিশম্যাটিক নেতৃত্ব, দেশের মানুষের প্রতি ভালবাসা, স্নেহ এবং এই দেশের জন্য তাঁর জীবনব্যাপী ত্যাগের কথা স্মরণ করেন। তিনি বঙ্গবন্ধুকে জীবন দার্শনিক হিসেবে আখ্যায়িত করেন, যিনি সর্বদা স্বপ্ন দেখেছিলেন এবং তার স্বল্প সময়ের জীবদ্দশায় এই জাতির কল্যাণের জন্য কাজ করেছিলেন।

আইসিএসবিএর সদ্য সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ সানাউল্লাহ এফসিএস উল্লেখ করেন যে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একজন অতুলনীয় ব্যক্তি। তিনি শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের। তিনি চার্টার্ড সেক্রেটারি অ্যাক্ট, ২০১০ পাস করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

প্রধান অতিথি এ কে এম আলী আহাদ খান বঙ্গবন্ধু ও তার শহীদ পরিবারের সদস্যদের প্রতি শ্রদ্ধা প্রকাশ করেন। তিনি উল্লেখ করেন, ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর ক্যারিশম্যাটিক নেতৃত্বের কথা উল্লেখ করেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য অর্জনে আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমাদের সর্বাত্মক সমর্থন করার প্রয়োজনীয়তার কথা তিনি উল্লেখ করেন।

আলোচকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সেলিম আহমেদ এফসিএস, ট্রেজারার, মোঃ শরীফ হাসান এফসিএস, কাউন্সিল সদস্য, নেয়ামুল হক এফসিএস, মোঃ আহসান হাবীব এসিএস, তানভীর আহমেদ সিদ্দিকী এসিএস, মোসাম্মাৎ আফরোজা সুলতানা।

এ উপলক্ষে সদস্যদের শিশুদের জন্য একটি চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। বিভিন্ন বয়সী ছেলেমেয়েরা প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।

অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে, ৬ জন অংশগ্রহণকারীকে (প্রতিটি গ্রুপ থেকে ৩ জন) পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত করা হয় এবং অন্যান্য অংশগ্রহণকারীদেরকে সান্ত্বনা পুরস্কার দেয়া হয়।

পরিশেষে, বঙ্গবন্ধু এবং তার শহীদ পরিবারের সদস্যদের আত্মার শান্তি ও মহান আল্লাহর রহমতের জন্য বিশেষ দোয়া করা হয়।

জেসমিন অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস এর প্রধান নির্বাহী জেসমিন আক্তার এফসিএস ইনস্টিটিউটের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ