Inqilab Logo

রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সফর ১৪৪৪
শিরোনাম

বিশ্বে সর্বাধিক দ্রুতগতিতে বাড়ছে সউদী অর্থনীতি : আইএমএফ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

মধ্যপ্রাচ্যের বৃহত্তম দেশ সউদী আরবের অর্থনীতি সবচেয়ে দ্রুতগতিতে বাড়ছে বলে মনে করে পৃথিবীর ২য় বৃহত্তম ঋণদাতা সংস্থা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। সংস্থাটির হিসাব অনুযায়ী, চলতি সময়ে সউদীর অর্থনীতি বৃদ্ধির শতকরা হার ৭ দশমিক ৬ শতাংশ। দেশটির বিনিয়োগবিষয়ক মন্ত্রণালয় (মিসা) গতকাল সোমবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে এসব তথ্য।
মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, সউদীর অর্থনৈতিক, অবকাঠামোগত ও শাসন ব্যবস্থায় যেসব সংস্কারমূলক পদক্ষেপ গত কয়েক বছরে নেয়া হয়েছে, সেসবকেই দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির মূলভিত্তি বলে মনে করে আইএমএফ।
২০১৭ সালে সউদী রাজপরিবারের সন্তান মোহাম্মদ বিন সালমান দেশটির যুবরাজের পদে অভিষিক্ত হন। তারপর থেকেই দেশের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক বিভিন্ন সংস্কামূলক পদক্ষেপ নেয়া শুরু করেন তিনি। সউদী আরবের সংবাদমাধ্যম সউদী গেজেটের তথ্য অনুযায়ী, গত ৫ বছরে দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে গৃহীত সংস্কারমূলক পদক্ষেপের সংখ্যা ৬শ’রও বেশি।
সেসব পদক্ষেপের সুফলও অবশ্য পাওয়া গেছে অল্প সময়ের মধ্যেই। মিসার অধীন সংস্থা ন্যাশনাল ইনভেস্টমেন্ট স্ট্র্যাটেজির (নিস) তথ্য অনুযায়ী, ২০২১ সালে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিনিয়োগের যে লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছিল সউদী সরকার, তার ১১২ শতাংশ ইতোমধ্যে পূরণ হয়েছে।
অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক- দুই ধরনের বিনিয়োগেই গত বছর ব্যাপকভাবে সফল ছিল সউদী আরব। ২০২১ সালে দেশটির সরকারের অভ্যন্তরীণ বিনিয়োগের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৬১ লাখ ৪০ হাজার কোটি রিয়াল। কিন্তু বছর শেষে দেখা যায়, বিনিয়োগ হয়েছে ৬৩ লাখ ৮০ হাজার কোটি রিয়াল; অর্থাৎ এক্ষেত্রে দেশটি লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে ১০৪ শতাংশ সফল।
আন্তর্জাতিক বিনিয়োগে সে বছর সউদী সরকারের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৭ হাজার ২০০ কোটি রিয়াল। কিন্তু বছর শেষে দেখা যায় এ ক্ষেত্রেও দেশটি ১৭২ শতাংশ সফল।
বিনিয়োগবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ২০১১ সালে সউদী আরবের প্রবৃদ্ধি ছিল ১১ দশমিক ৮ শতাংশ। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ফলে দেশটিতে বেকার সমস্যাও কমেছে। সরকারি হিসেব অনুযায়ী দেশটিতে ২০২২ সালে দেশটিতে বেকারত্বের হার কমেছে ১০ দশমিক এক শতাংশ।
দেশটির অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির মূল কারণ হিসেবে জ্বালানি তেলের উৎপাদন বৃদ্ধিকে উল্লেখ করেছে মন্ত্রণালয়। জ্বালানি তেল উৎপাদন ও রফতানিকারক দেশগুলোর জোট ওপেক প্লাসের সঙ্গে চুক্তির ভিত্তিতেই ২০১১ সাল থেকে জ্বালানি তেলের উৎপাদন বৃদ্ধি করেছিল সউদী। তার সুফল পাওয়া যাচ্ছে এখন। সূত্র : সউদী গেজেট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আইএমএফ

৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ