Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

ইউক্রেনীয় বন্দর থেকে পাঁচটি জাহাজ ছাড়ার অনুমতি তুরস্কের

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ আগস্ট, ২০২২, ২:২২ পিএম

ইস্তাম্বুলের জয়েন্ট কো-অর্ডিনেশন সেন্টার (জেসিসি) ১৬ আগস্ট ইউক্রেনীয় বন্দর থেকে খাবারবাহী পাঁচটি জাহাজ চলাচলের অনুমোদন দিয়েছে, জেসিসি সোমবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

‘আগামীকাল, ১৬ আগস্ট চলাচলের জন্য অনুমোদিত আউটবাউন্ড জাহাজগুলি হল: চেরনোমর্স্ক থেকে ৯,১১১ মেট্রিক টন গম নিয়ে রোমানিয়ার কনস্টানজাগামী জাহাজ প্রপাস, চেরনোমর্স্ক থেকে ১১,৫০০ মেট্রিক টন ভুট্টা নিয়ে তুরস্কের মারসিন বা ইস্কেন্ডেরুনগামী জাহাজ অসপ্রে এস, চেরনোমর্স্ক থেকে ৬,১১৬ মেট্রিক টন গম নিয়ে তুরস্কের কারাসুগামী জাহাজ রামুস, ইউঝনি থেকে ২৩,৩০০ মেট্রিক টন গম নিয়ে জিবুতির পোর্ট ডি জিবুতিগামী জাহাজ ব্রেভ কমান্ডার ও ইউঝনি থেকে ৬০ হাজার মেট্রিক টন ভুট্টা নিয়ে কোরিয়া প্রজাতন্ত্রের ইনচেনগামী জাহাজ বোনিতা,’ বিবৃতি অনুসারে।

সোমবার, জেসিসি ইস্তাম্বুল থেকে চেরনোমর্স্ক পর্যন্ত তিনটি জাহাজের পরিদর্শন ও চলাচলের অনুমতি দিয়েছে। সেগুলো হচ্ছে, গ্রেট আর্সেনাল, জুমরুত আনা, ওশান এস। মঙ্গলবার, জেসিসি ইউক্রেনীয় বন্দরগামী আরও চারটি জাহাজ পরিদর্শন করবে: আদনান তোরলাক, ফিলিওজ, গ্যান্ডসায়া, কুব্রোসলি। এছাড়াও, ইউক্রেন থেকে বহির্গামী জাহাজ থো পরিদর্শন করা হবে।

বৈশ্বিক বাজারে খাদ্য ও সার সরবরাহের সমস্যা সমাধানের জন্য প্রস্তুত চুক্তিগুলির একটি প্যাকেজ ২২ জুলাই ইস্তাম্বুলে স্বাক্ষরিত হয়েছিল। রাশিয়া-জাতিসংঘের স্মারকলিপির অধীনে, জাতিসংঘ কৃষি পণ্য এবং সারের রপ্তানিকে বাধাগ্রস্ত করে রাশিয়া-বিরোধী বিধিনিষেধ তুলে নেয়ার জন্য কাজ করার অঙ্গীকার করে। আরেকটি নথিতে ইউক্রেন-নিয়ন্ত্রিত বন্দর থেকে শস্য রপ্তানির একটি প্রক্রিয়ার কথা বলা হয়েছে। রাশিয়া, তুরস্ক, ইউক্রেন এবং জাতিসংঘের মধ্যে একটি চুক্তি অস্ত্র চোরাচালান প্রতিরোধ এবং উস্কানি এড়াতে শস্য বহনকারী জাহাজ অনুসন্ধানের জন্য একটি চার-পাশের সমন্বয় কেন্দ্র স্থাপনের বিধান করে। সূত্র: তাস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ