Inqilab Logo

সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

সিঁধ কেটে শ্বাসরোধে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে নকলায় গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

শেরপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ আগস্ট, ২০২২, ৬:৩৫ পিএম



শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে নিজ ঘরের বিছানা থেকে ও নকলায় ধর্না থেকে ঝুলন্ত
গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। ঘটনা দুটি এলাকায় চাঞ্চেল্যর
সৃিষ্ট করেছে। এর মধ্যে নালিতাবাড়ীতে নিজ ঘরে সিঁধ কেটে ঢুকে ঘুমন্ত
স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগে ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক স্বামী জাহের
আলীকে আটক করেছে নালিতাবাড়ী থানা পুলিশ। নালিতাবাড়ীর হত্যা কান্ডটি ঘটেছে
১৫ আগষ্ট দিবাগত রাতের কোন একসময়।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্র জানায়, নালিতাবাড়ী উপজেলার দক্ষিণ রানীগাঁও
গ্রামের শামছুল হকের কন্যা শাহনাজ পারভীন (৪২) এর সাথে বাড়ির কাছাকাছি বড়
গোল্লারপাড় গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে ডাব বিক্রেতা জাহের আলীর(৩০)
বিয়ে হয় প্রায় এক বছর আগে। এর আগে জাহের আলী প্রথম বিয়ে করলে এক ছেলে
রেখে দু’জনের তালাক হয়। আবার শাহনাজ এর তিন সন্তান রেখে পরপর দুইটি বিয়ে
বিচ্ছেদ ঘটে। ফলে জাহের-শাহনাজ এর এ সংসার ছিল দ্বিতীয়-তৃতীয়। বিয়ের পর
থেকেই সংসারে বনিবনা ছিল না তাদের। শাহনাজ এক সন্তানকে নিয়ে স্বামীর
বাড়িতে শ্বাশুুড়ি-ননদের সাথে থাকলেও স্বামী জাহের আলী জামালপুরে ডাবের
ব্যবসা করতেন।

১৫ আগষ্ট সোমবার দিবাগত রাতে শাহনাজ তার চার বছর বয়সী কন্যাকে নিয়ে নিজ
ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। গভীর রাতে স্বামী জাহের আলী নিজ ঘরের সিঁঁধ কেটে প্রবেশ
করে এবং ওড়না পেচিয়ে ঘুমন্ত স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

১৬ আগষ্ট সকালে শাহনাজের পিতা মেয়েকে ডাকাডাকি করে সাড়া না পেয়ে শাহনাজের
দেবরকে ডেকে সিঁধ দিয়ে ঘরে পাঠান। পরে দরজা খোলে শাহনাজের মরদেহ বিছানায়
পড়ে থাকতে দেখেন। খবর পেয়ে আজ ১৬ আগষ্ট দুপুরে স্বামীসহ অন্যান্য স্বজন
এবং থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এসময় পুলিশের সন্দেহ হয় তার স্বামী
জাহেরের প্রতি। এ সন্দেহ থেরেকই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্বামী জাহের আলীকে
আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে প্রাথমিকভাবে হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার
করেছে জাহের আলী।

নিহত গৃহবধুর বাবা শামছুল হক বলেন, আমার মেয়েডারে পরিকল্পিতভাবে খুন
করেছে। আমি এ খুনের উপযুক্ত বিচার চাই। বিয়ের পর থেকেই আমার মেয়েডারে কোন
শান্তি দেয়নাই জাহের। এ খুনিরে যাতে ফাঁসি দেয়া হয়।

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন সহকারী পুলিশ সুপার নালিতাবাড়ী সার্কেল
আফরোজা নাজনীন জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্বামী জাহের আলীকে আটক করা
হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে জানাগেছে পারিবারিক কলহেই শাহনাজ খুন হয়েছে।
স্বামী জাহের খুন করার কথা প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছে। এ ঘটনায় আইনী
প্রক্রিয়া চলছে।

অপরদিকে আজ ১৬ আগষ্ট দুপুরে জেলার নকলা উপজেলার দক্ষিন লয়খার নিজ ঘরের
ধন্যার সাথে অজুফা (৩০) নামের এক গৃহবধু গলায় ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে।

পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন যাবৎ মানসিক সমস্যায় ভোগতেছিলেন অজুফা। পরিবারের
পক্ষ থেকে সুস্থ্যতার জন্য চিকিৎসাও করানো হচ্ছিল। পুলিশের ধারণা
অসুস্থতা থেকেই সে আত্মহত্যা করেছে। তবে ময়না তদন্তের জন্য লাশ জেলা
হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট এলেই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ
জানা যাবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: লাশ উদ্ধার


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ