Inqilab Logo

রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সফর ১৪৪৪

আন্তর্জাতিক মহলের কাছে মিথ্যাচার ও তথ্য গোপন করছে করছে সরকার: এমরান সালেহ প্রিন্স

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৬ আগস্ট, ২০২২, ৮:৩২ পিএম

গুমের হোতারা আন্তর্জাতিক মহলকে বিভ্রান্ত করতে মিথ্যাচার ও তথ্য গোপন করছে করছে বলে অভিযোগ করে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স।

তিনি বলেন, শোচনীয় পরিনতির আতঙ্কে তারা গুম শব্দকেই গুম করে দিয়েছে। জোর করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে তারা স্বাধীনতার মূল মন্ত্র তথা সাম্য,মানবিক মর্যাদা, ন্যায় বিচার, গণতন্ত্র ,মানবাধিকার, ভোটাধিকারকেই গুম করেছে, খুন,হত্যা করে বাংলাদেশকে রক্তাক্ত করছে।
বিএনপি চেয়ারপার্সন ,সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে তাঁর সুস্থতা ও দীর্ঘায়ু এবং চলমান আন্দোলনে নিহতদের আত্মার মাগফেরাত ও আহতদের সুস্থতা কামনায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচি অনুযায়ী
মঙ্গলবার বিকেলে ময়মনসিংহের ধোবাউড়ায় মিলাদ ও দোয়া মাহফিল পুর্ব আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, সরকার তার অনৈতিক শাসনকে দীর্ঘায়িত এবং বিরোধী দলকে দমন করতে নিরাপত্তা বাহিনীকে দিয়ে গুম,খুন করিয়ে সর্বনাশা খেলায় মেতে উঠেছে । নিজেদের অপরাধ আড়াল করতে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক মহলকে বিভ্রান্ত করতে তারা মিথ্যাচার করছে ।মনে হয় মন্ত্রীরা মিথ্যাচারের প্রতিযোগিতায় নেমেছে। গণতন্ত্র,মানবাধিকার হরণ , দুঃশাসন, দুর্নীতি ,লুটপাট ,অর্থ পাচার করে আওয়ামী সরকার দেশকে লন্ডভন্ড করে দিচ্ছে, জনজীবনে চরম অস্থিরতা,অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে । অভাবের তাড়নায় মা তার ছেলেকে বিক্রি করতে চাচ্ছে, মানুষ আত্মহত্যা করছে। উন্নয়নের নামে দুর্নীতি লুটপাটের ফলে গার্ডার,ব্রিজসহ স্থাপনা ধ্বসে পড়ছে। সড়ক,রেলে দুর্ঘটনা বাড়ছে,বাড়ছে লাশের মিছিল।
সরকারের অপরিনামদর্শী সিদ্ধান্তে জনদুর্ভোগ সৃস্টি করেছে ।জনগণ জেগে উঠছে ।তিনি বলেন,আন্দোলনের ভয়ে ভীত হয়ে আওয়ামী নেতারা পাগলের প্রলাপ বকছে। কেউ হুমকি দিচ্ছেন,কেউ মিথ্যাচার করছেন,কেউ দেশকে বেহেশত খানা বানাচ্ছেন আবার কেউ তাদের নেতাকে জাহান্নামের সর্বোচ্চ জায়গায় রাখতে দোয়া করতে বলছেন। আর প্রধানমন্ত্রী আন্দোলনকারীদের চা খাওয়ানোর কথা বলে পুলিশকে দিয়ে গুলি করে হত্যা করাচ্ছেন, আবার গ্রেফতার না করতে বলছেন। এগুলো একদিকে যেমন সরকারের অস্থিরতার বহিঃপ্রকাশ অন্যদিকে দেশ-বিদেশে বিভ্রান্তি সৃষ্টির অপকৌশল।
প্রধানমন্ত্রীকে জনগণ আর বিশ্বাস করে না। অতীতে তিনি বার বার বিশ্বাসভঙ্গ করেছেন। তিনি বলেন, জনগণের ক্ষোভকে আন্দোলনে পরিণত হচ্ছে। এবার তাদেরকে বিদায় নিতেই হবে।
তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার সাথে যে অন্যায় আচরণ করা হয়েছে,তা মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন। প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে তাঁকে রাজনীতি ও নির্বাচন থেকে সরিয়ে রাখতে , সরকার বিরোধী আন্দোলন দমন ও জনগণকে ভীত সন্ত্রস্ত করতে বেগম খালেদা জিয়াকে ফরমায়েশী রায় দিয়ে তাঁর আইনগত অধিকার কেড়ে নিয়ে আটক রাখা হয়েছে । এমনকি তাঁর সুচিকিৎসার পথে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেছে সরকার। তিনি বলেন,এসব করে বেগম খালেদা জিয়াকে জনগণ থেকে দূরে রাখতে পারেনি সরকার।দেশনেত্রীকে জনগণ হৃদয়ের মনিকোঠায় স্থান দিয়েছে।
তিনি সকলকে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি,সুস্বাস্থ ও দির্ঘায়ু কামনায় দোয়া করার আহ্বান জানিয়ে বলেন,সকল ষড়যন্ত্র ছিন্ন করে তিনি আবারও এই দেশ ও জাতিকে নেতৃত্ব দেবেন ইনশাআল্লাহ ।
ধোবাউড়া সদরে বাসস্ট্যান্ডে হাজী আব্দুল করিম এতিমখানা ও মাদ্রাসা চত্বরে
উপজেলা বিএনপির আয়োজনে অনুষ্ঠিত দোয়া মাহফিল পূর্ব আলোচনায় উপজেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব মফিজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জি এম আজহারুল ইসলাম কাজল এর সঞ্চালনায় দোয়াপূর্ব আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ উত্তর জেলা বিএনপির সদস্য
আনিসুর রহমান মানিক,ফরহাদ রাব্বানী সুমন,মোয়াজ্জেম হোসেন খান লিটন,উপজেলা বিএনপির সহ সভাপতি আজহারুল হক,
দক্ষিন মাইজপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির সরকার,ময়মনসিংহ উত্তর জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক ফরহাদ আল রাজি, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, উপজেলা কৃষক দলের আহ্বায়ক নয়ন মন্ডল, জেলা ছাত্র দলের যুগ্ম সম্পাদক ফারুক হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক ইমরান হোসাইন, সদস্য সচিব কামরুল হাসান সুমন, ছাত্রদলের আহ্বায়ক জালাল উদ্দীন, সদস্য সচিব আমিনুল হক পলাশ ।
দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে উপজেলা বিএনপির সহ সভাপতি, হাজী ইবরাহিম খলিল,হাবিবুর রহমান,আবুল হাশিম,সোলাইমান সরকার,যু্গ্ম সম্পাদক আবদুল কুদ্দুস, বিএনপি নেতা শামসুর রশিদ মজনু, জুয়েল খান,মাজহারুল ইসলাম খোকন,মাহমুদুল হাসান সোহাগ,সিদ্দিক হোসেন,শাহাবুদ্দিন, মোঃ শাজাহান, ফেরদৌস ইসলাম হযরত, মেম্বার,গাজিউর রহমান,আবুল কাশেম ডলার, আব্দুস সহিদ,রফিকুল ইসলাম,আব্দুল খালেক,মাসুদ চৌধুরী ,সহ বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ