Inqilab Logo

রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সফর ১৪৪৪

সামরিক শাসনামলে দেশে মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন হয়েছে : শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে গণভবনে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাচেলেট গতকাল গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ সামরিক শাসনামলে মানবাধিকার লঙ্ঘন প্রত্যক্ষ করেছে। সে সময় মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছে। বাংলাদেশ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডের পর দীর্ঘ সামরিক শাসনামলে মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন প্রত্যক্ষ করেছে। ওই সময় আমাদের বিচার চাইতেও বাধা দেওয়া হয়েছে। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তার পরিবারের বেশিরভাগ সদস্যকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। আমি এবং আমার ছোট বোন শেখ রেহানা ১৯৭৫ সালের হত্যাযজ্ঞ থেকে বেঁচে গিয়েছিলাম। কারণ, আমরা তখন বিদেশে ছিলাম। ওই হত্যাকাণ্ডের বিচার বন্ধ করতে তৎকালীন সেনা সমর্থিত সরকার ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করেছিল।

জোরপূর্বক নির্বাসন থেকে দেশে ফেরার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ওই ইনডেমনিটি অধ্যাদেশের কারণে তাদের বিচার চাইতে বাধা দেওয়া হয়েছে। তৎকালীন সামরিক সরকার বঙ্গবন্ধুর খুনি ও যুদ্ধাপরাধীদের রাজনীতিতে পুনর্বাসিত করেছিল।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার ও দু’বার চিলির প্রেসিডেন্ট থাকা ব্যাচেলেট বলেন, আমার পরিবারকেও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর মতো অমানবিক নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে। যখন তার দেশে একটি অত্যাচারী সরকার ক্ষমতায় ছিল। তিনি কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের জন্য শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করতে প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেন।

জাতিসংঘের হাইকমিশনার বলেন, বাংলাদেশের ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন’ নিয়ে জাতিসংঘ আইন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কাজ করছে এবং এ লক্ষ্যে কিছু পর্যবেক্ষণ দিয়েছে। জাতিসংঘের হাইকমিশনার বলেন, তিনি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করে ‘গভীরভাবে আলোড়িত’ হয়েছেন। যেখানে জাতির পিতাকে তার পরিবারের অধিকাংশ সদস্যের সঙ্গে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিল। বৈঠকে তারা বর্তমান বিশ্ব সমস্যা নিয়ে আলোচনা করেন এবং একমত হন যে, চলমান কোভিড-১৯ মহামারি, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ, নিষেধাজ্ঞা ও পাল্টা নিষেধাজ্ঞা বিশ্বজুড়ে সঙ্কট তৈরি করেছে।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গারা তাদের নাগরিক তা মিয়ানমার অস্বীকার করে না। তবে, তারা এখনও তাদের বাস্তুচ্যুত নাগরিকদের প্রত্যাবাসনে সাড়া দেয়নি। মিয়ানমারকে তাদের নাগরিকদের তাদের দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে হবে। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ কখনও কারও সঙ্গে যুদ্ধ চায় না।

পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তির কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, শান্তি চুক্তির পর ৬২ হাজার শরণার্থী বাংলাদেশে ফিরেছে এবং ১৮০০ সশস্ত্র ক্যাডার আত্মসমর্পণ করেছে। ভাসান চরে রোহিঙ্গাদের জন্য তারা শিক্ষা সুযোগের ব্যবস্থা করতে পারেন।

বাংলাদেশের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতু দেশের দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের উন্নয়নে অবদান রাখছে। আমরা কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্প স্থাপনের পাশাপাশি দেশের উন্নয়নের জন্য কৃষির ওপর জোর দিচ্ছি। আশ্রয়ণ প্রকল্পের অধীনে ১ দশমিক ৮৭ লাখেরও বেশি পরিবার বিনামূল্যে বাড়ি পেয়েছে। কারণ, সরকার প্রতিটি গৃহহীন এবং ভূমিহীন মানুষকে আবাসন প্রকল্পের আওতায় আনার জন্য কাজ করছে।

ব্যাচেলেট বৈষম্য দূর করার জন্য বাংলাদেশের এসডিজি বাস্তবায়নের অগ্রগতি এবং কাজের প্রশংসা করেন। তিনি বাংলাদেশকে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত করার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানান।
উভয়ে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব নিয়েও আলোচনা করেন। এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা উপকূলীয় অঞ্চলে বনায়নের ওপর জোর দিয়েছেন। কারণ তারা জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ।

এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস এবং ঢাকায় জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়ক গুয়েন লুইস উপস্থিত ছিলেন।



 

Show all comments
  • Md Noyon ১৮ আগস্ট, ২০২২, ৬:৩৮ এএম says : 0
    শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল।
    Total Reply(0) Reply
  • Mukta Ahmed ১৮ আগস্ট, ২০২২, ৬:৩৭ এএম says : 0
    যোগ্য পিতার যোগ্য সন্তান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
    Total Reply(0) Reply
  • Anis Rahman ১৮ আগস্ট, ২০২২, ৬:২৯ এএম says : 0
    মানবাধিকার মানে মানব অধিকারের অর্থই আজ পর্যন্ত বুঝতে পারলাম না। দয়া করে কেও কি আমাকে এর অর্থটা বুঝিয়ে দেবেন। আমি অতি আগ্রহী এর অর্থ বুঝতে।
    Total Reply(0) Reply
  • Hasan Shah ১৮ আগস্ট, ২০২২, ৬:৩০ এএম says : 0
    এখন কি হচ্ছে সেটাই দেখার বিষয়
    Total Reply(0) Reply
  • Md Udoy ১৮ আগস্ট, ২০২২, ৬:৩৭ এএম says : 0
    মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য অন্তর থেকে অনেক অনেক দোয়া ও শুভকামনা অবিরাম।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শেখ হাসিনা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ