Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

বিদেশিদের সাথে সম্পৃক্ততা হবে শরিয়া অনুযায়ী : তালেবান নেতা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

তালেবান শরিয়া আইনের সাথে সঙ্গতি রেখে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে সম্পৃক্ত হবে বলে জানিয়েছেন ইসলামপন্থী গোষ্ঠীর সর্বোচ্চ নেতা। গতকাল আফগানিস্তানের তথ্য মন্ত্রণালয়ের শেয়ার করা বক্তৃতার এক বিবরণী থেকে একথা জানা গেছে।
কোনো বিদেশী পুঁজিতে আনুষ্ঠানিকভাবে সরকার হিসাবে স্বীকৃতি না পাওয়ায় আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার কঠোর প্রয়োগ এবং উন্নয়ন সহায়তা বন্ধ করার কারণে গ্রুপটি একটি গুরুতর অর্থনৈতিক সঙ্কটের সাথে লড়াই করছে।
ওয়াশিংটনসহ অনেক সরকার তালেবানদের ওপর চাপ সৃষ্টি করেছে যাতে তারা মহিলাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে এবং উচ্চ বিদ্যালয়ের বয়সী মেয়েদের জন্য স্কুল খুলে দেয়।
রাষ্ট্র-চালিত সংবাদ সংস্থা বাখতারের তথ্য মতে, গত বৃহস্পতিবার প্রায় ৩ হাজার উপজাতি নেতা, কর্মকর্তা এবং ধর্মীয় পণ্ডিত দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর কান্দাহারে সমবেত হন। এখানেই গোষ্ঠীর সর্বোচ্চ আধ্যাত্মিক নেতা হাইবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা অবস্থান করছেন। প্রায় এক বছর আগে দলটির ক্ষমতা নেওয়ার পর এটি ছিল দ্বিতীয় এ ধরনের সমাবেশ।
তিনি বক্তৃতায় বলেন, ‘আল্লাহর রহমতে আমরা যে স্বাধীনতা পেয়েছি, যেটি আমরা আমাদের মুজাহিদিনদের (যোদ্ধাদের) রক্ত দিয়ে অর্জন করেছি সে সম্পর্কে চিন্তা করার জন্য এ বৈঠক ডাকা হয়েছে।
আখুন্দজাদাহ বলেন, ‘আমরা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে ইসলামিক শরিয়া অনুযায়ী সম্পর্ক গড়ে তুলব...শরিয়া যদি এটিকে অনুমতি না দেয়, তাহলে আমরা অন্য কোনো দেশের সঙ্গে লেনদেন করব না’ -বলেছেন আখুন্দজাদাহ।
মার্কিন কূটনীতিকদের সাথে আলোচনা অব্যাহত রয়েছে, বিশেষ করে কীভাবে দেশের থমকে যাওয়া ব্যাংকিং খাতকে পুনরুজ্জীবিত করা যায় এবং বিদেশে রাখা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সম্পদের সম্ভাব্য মুক্তির বিষয়ে। তবে কর্মকর্তারা সতর্ক করেছেন, যে কোনো অগ্রগতিতে অনেক বাধা রয়ে গেছে।
উত্তেজনা বৃদ্ধির মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গত মাসে আল-কায়েদা নেতা আয়মান আল-জাওয়াহিরিকে হত্যা করার জন্য মধ্য কাবুলে একটি ড্রোন হামলা চালায় এবং তালেবানকে জাওয়াহিরিকে আশ্রয় দিয়ে তাদের মধ্যে একটি চুক্তি লঙ্ঘনের জন্য অভিযুক্ত করে।
বাখতার নিউজ এজেন্সি অনুসারে, বৃহস্পতিবারের সমাবেশে বেশ কয়েকটি রেজুলেশন জারি করা হয়েছে। একটি ড্রোন হামলার নিন্দা করা এবং অন্যটি বলা হয়েছে যে, কোনো প্রতিবেশী দেশ যারা এ স্ট্রাইকের জন্য তার আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি দেয় তারা জড়িত ছিল।
আকাশপথে স্থলবেষ্টিত আফগানিস্তানে প্রবেশ করতে যুক্তরাষ্ট্রকে সাধারণত প্রতিবেশী দেশগুলোর কাছ থেকে অনুমতি নিতে হয়। কর্মকর্তারা ড্রোনটির ভ্রমণের পথ প্রকাশ করেননি। তবে আফগানিস্তানের সাথে সীমান্ত শেয়ার কর পাকিস্তান বলেছে যে, তাদের আকাশসীমা হামলার জন্য ব্যবহার করা হয়নি। সূত্র : রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তালেবান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ