Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৭ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৩ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

প্রিয় নেতার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা কিউবাবাসীর

ক্যাস্ট্রোর অন্তিম ইচ্ছা : তার নামে কোনো সৌধ নয়

| প্রকাশের সময় : ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : কিউবার বিপ্লবী নেতা ফিদেল ক্যাস্ট্রো তার সম্মানে কোনো সৌধ নির্মাণ বা কোনো রাস্তার নামকরণ না করার অন্তিম ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন। আর তাই তার এ শেষ ইচ্ছার প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ও তার ভাই রাউল ক্যাস্ট্রো।
গত শনিবার সান্টিয়াগো দ্য কিউবা নগরীতে ক্যাস্ট্রোকে সমাহিত করার আগে এক শোক সমাবেশে রাউল বলেন, চলতি মাসের শেষে জাতীয় পরিষদের পরবর্তী অধিবেশনে তার ভাইয়ের শেষ ইচ্ছা পূরণে আইন প্রণয়ন করা হবে। গত কয়েক দশকে কিউবার জনগণের মণিকোঠায় স্থান পাওয়া প্রয়াত এ কম্যুনিস্ট নেতা তার জীবদ্দশায় সবসময় বলতেন, তিনি এদেশে তার সম্মানে কোনো সৌধ চান না। ফিদেল ক্যাস্ট্রো সবসময় ব্যক্তিপূজার বিরুদ্ধে ছিলেন বলেও জানান রাউল। ক্যাস্ট্রো ১৯৫৯ সাল থেকে একদলীয় রাষ্ট্র হিসেবে কিউবা শাসন করেন। ২০০৮ সালে তিনি তার ভাই রাউল ক্যাস্ট্রোর কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন। তিনি গত ২৫ নভেম্বর ৯০ বছর বয়সে মারা যান।
রাউল ক্যাস্ট্রো তার ভাষণে বলেন, বিপ্লবী নেতা ফিদেল ক্যাস্ট্রো তার নামে কোন সৌধ করতে নিষেধ করেছেন। তিনি তার নামে কোন প্রতিষ্ঠান, প্লাজা, পার্ক, অ্যাভিনিউ, রাস্তা বা অন্য কোনো স্থানের নামকরণ না করার অনুরোধ করেছেন।
ফিদেল ক্যাস্ট্রোকে শেষ শ্রদ্ধা জানায় লাখো মানুষ
কিউবার বিপ্লবী নেতা ফিদেল ক্যাস্ট্রোকে তার জন্মভূমি সান্তিয়াগোতে শেষ বিদায় জানায় লাখো মানুষ। কিউবানরা ছাড়াও বিভিন্ন দেশের নেতারা এতে অংশ নেন। পুরো অনুষ্ঠানের নেতৃত্ব দেন তার ভাই এবং কিউবার প্রেসিডেন্ট রাউল ক্যাস্ট্রো। এই প্রক্রিয়া শেষে সেখানেই তাকে সমাহিত করার কথা।
এর আগে ফিদেল ক্যাস্ট্রোর দেহভস্ম তার জন্মস্থান সান্তিয়াগো শহরে পৌঁছায়। সমবেত বিপুল সংখ্যক মানুষ তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ‘ফিদেল চিরজীবী হোন’ সেøাগান দিতে থাকে। সেখানে যোগ দেন ভেনেজুয়েলা, নিকারাগুয়া, বলিভিয়ার নেতৃবৃন্দ এবং আর্জেন্টিনার ফুটবল তারকা দিয়েগো ম্যারাডোনা।
এর আগে হাভানা থেকে রওনা হয়ে চারদিনের যাত্রায় পথে পথে মানুষের শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সান্তিয়াগোতে পৌঁছায় ফিদেল ক্যাস্ট্রোর দেহভস্ম। গত ২৫ নভেম্বর নব্বই বছর বয়সে কিউবার বিপ্লবী এই নেতার জীবনাবসান ঘটে। সূত্র : বিবিসি ও এএফপি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ