Inqilab Logo

মঙ্গলবার ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১১ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

অঞ্চলকে আরো বেশি নিরাপত্তা-স্থিতিশীলতা দিতে এসসিও সম্প্রসারণ প্রয়োজন

দুশানবেতে মোদির সাক্ষাৎ : জি-২০ সম্মেলনে অংশ নেবে রাশিয়া : পুতিন সমরকন্দ ঘোষণা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম

সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার সম্প্রসারণ এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর সাথে এর গভীর সহযোগিতা এ অঞ্চলে নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা নিশ্চিতে অবদান রাখবে। শুক্রবার গৃহীত এসসিও’র সমরকন্দ ঘোষণায় একথা বলা হয়েছে।

ঘোষণায় আরো বলা হয়েছে, ‘সদস্য-রাষ্ট্রগুলো এ ধারণার ওপর জোর দিয়েছে যে, এসসিও’র সম্প্রসারণ এবং পর্যবেক্ষক রাষ্ট্রগুলোর সাথে সহযোগিতার আরো গভীরতা, এসসিও’র সংলাপ অংশীদার এবং আন্তর্জাতিক অ্যাসোসিয়েশনগুলো সংস্থার সম্ভাবনাকে গড়ে তুলবে এবং আন্তর্জাতিক দৃশ্যে এর ভূমিকা আরো বৃদ্ধিতে অবদান রাখবে। আমাদের সময়ের জরুরি সমস্যা সমাধানের জন্য একটি বহুপাক্ষিক প্রক্রিয়া, এ অঞ্চলে নিরাপত্তা, স্থিতিশীলতা এবং টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করা’।

অংশগ্রহণকারী দেশগুলো আগ্রহী রাষ্ট্রগুলোর প্রতি এসসিও’র উন্মুক্ততা নিশ্চিত করে, যাদের লক্ষ্য এবং আকাক্সক্ষাগুলো সংস্থার আইনি নথিতে থাকা মানদণ্ড এবং শর্তাবলী মেনে চলে। তারা ইরানের অন্তর্ভুক্তির পদ্ধতি চালুর জন্য দুশানবে শীর্ষ সম্মেলনে ২০২১ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর নেওয়া সিদ্ধান্তের গুরুত্ব উল্লেখ করেছে। শুক্রবার পূর্ণাঙ্গ সদস্য রাষ্ট্র হিসেবে এসসিওতে ইরানের যোগদানের উদ্দেশ্যে ইরানের প্রতিশ্রুতির একটি স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। ঘোষণাটি বেলারুশ প্রজাতন্ত্রের অন্তর্ভুক্তির প্রক্রিয়া শুরুর সিদ্ধান্তের গুরুত্বের ওপরও জোর দেয়।
ঘোষণায় বলা হয়েছে, ‘সদস্য-রাষ্ট্রগুলো বাহরাইন, মালদ্বীপ, কুয়েত, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং মিয়ানমারকে এসসিও সংলাপ অংশীদারের মর্যাদা দেওয়ার সিদ্ধান্তকে সন্তোষের সাথে নোট করেছে। তারা উল্লেখ করেছে, মিসর আরব প্রজাতন্ত্র, সউদী আরব এবং কাতারের সাথে একটি এসসিও সংলাপ অংশীদারের মর্যাদা প্রদানের বিষয়ে স্মারকলিপিতে স্বাক্ষর করা’।

এছাড়াও, সদস্য দেশগুলো আরব স্টেটস, ইউনেস্কো, এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কমিশনের জেনারেল সেক্রেটারিয়েটের সাথে এসসিও সেক্রেটারিয়েটের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরকে স্বাগত জানিয়েছে। ‘সদস্য দেশগুলো আন্তর্জাতিক সংস্থা এবং আন্তর্জাতিক ফোরামসহ পারস্পরিক স্বার্থের বৈদেশিক নীতির বিষয়ে অভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি অনুসন্ধান চালিয়ে যাবে বলে ঘোষণায় জোর দেওয়া হয়েছে।
যত দ্রুত সম্ভব ইউক্রেনের সঙ্ঘাত অবসানে সবকিছু করবে রাশিয়া : রাশিয়া যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ইউক্রেনের সঙ্ঘাতের অবসান ঘটাতে যথাসাধ্য চেষ্টা করবে, কিন্তু কিয়েভ আলোচনায় অস্বীকৃতি জানায়। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন শুক্রবার এসসিও শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে তার বৈঠকের সময় বলেন। পুতিন উল্লেখ করেছেন, ‘আমি ইউক্রেনের সঙ্ঘাতে আপনার অবস্থান জানি, আপনি উদ্বেগ প্রকাশ করেন যে, আপনি ক্রমাগত প্রকাশ করেন’।

তিনি আশ্বাস দিয়ে বলেন, ‘যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটি শেষ করার জন্য আমরা করব যা যা করতে পারি। এদিকে, তিনি তার দুঃখ প্রকাশ করেছেন, কারণ ‘অন্যদিকে, ইউক্রেনীয় নেতৃত্ব আলোচনার প্রক্রিয়াকে প্রত্যাখ্যান করেছে, বিবৃত হয়েছে যে, এটি জোর করে তার লক্ষ্য অর্জন করতে চায়। তারা যেমন বলে, যুদ্ধক্ষেত্রে’ প্রেসিডেন্ট উল্লেখ করেছেন।

রুশ নেতা ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীকে আশ্বাস দিয়েছেন যে, তিনি ইউক্রেনের পরিস্থিতি সম্পর্কে ভারতীয় অংশীদারদের অবহিত করবেন। পুতিন উল্লেখ করেছেন যে, রাশিয়া এবং ভারত আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফর্মে সক্রিয়ভাবে সহযোগিতা করে, সমস্যাযুক্ত পরিস্থিতিসহ বিশ্বের সমস্ত পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করে।

জি-২০ সম্মেলনে অংশ নেবে রাশিয়া -পুতিন : রাশিয়া নভেম্বরে ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে জি২০ শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নেবে। তিনি এ অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন কিনা তা এখনও সিদ্ধান্ত নেননি উল্লেখ করে প্রেসিডেন্ট ভøালাদিমির পুতিন শুক্রবার সাংবাদিকদের একথা বলেছেন।

উজবেকিস্তান সফরের পর এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি এটা দেখব এবং আমরা সিদ্ধান্ত নেব। রাশিয়া অংশগ্রহণ করবে’। পুতিন যোগ করেছেন, ‘আসলে আমি ইতোমধ্যেই বালিতে গিয়েছি। এটি একটি সুন্দর জায়গা, তবে এটি এখানে গুরুত্বপূর্ণ নয় এমন সুন্দর দৃশ্য নয়। অর্থনীতি এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে পরিস্থিতি কীভাবে উন্মোচিত হবে তা আমরা দেখব’।
‘আমার কাছে জি-টোয়েন্টি সম্মেলনে যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ রয়েছে। আয়োজক দেশের প্রেসিডেন্ট মস্কো সফরের সময় আমাকে এটি সম্পর্কে বলেছিলেন। পরে তিনি একটি ফোন কল করে বলেন : ‘মনে রাখবেন যে, নির্দিষ্ট চাপ রয়েছে তবে আমার অবস্থান দৃঢ়, আমরা আমি আপনাকে শীর্ষ সম্মেলনে দেখতে চাই’ রাশিয়ান নেতা উল্লেখ করেছেন। সূত্র : তাস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পুতিন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ