Inqilab Logo

মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৪ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

মহানগরী সহ দক্ষিণাঞ্চলে করোনা সংক্রমন পরিস্থিতির অবনতি

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১২:১৩ পিএম

বরিশাল মহানগরী সহ দক্ষিণাঞ্চলে করোনা সংক্রমন পরিস্থিতির অবনতি অব্যাহত রয়েছে। গত ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ দিনে দক্ষিণাঞ্চলের ৬ জেলায় আরো ৬২ জনের করোনা সংক্রমনের কথা জানিয়েছে বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তর। ফলে দক্ষিণাঞ্চলে করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৫৪ হজার অতিক্রম করে আরো ৫৭ জন যোগ হল। গত ৫ দিনে মহানগরী সহ বরিশাল জেলায়ই আক্রান্ত হয়েছেন ২৬ জন। চলতি মাসের প্রথম ২০ দিনে এ অঞ্চলে ১৫২ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছিল। আগষ্টের ৩১ দিনে এ অঞ্চলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১০৮।
তবে আগের জুলাই মাসে দক্ষিণাঞ্চলে করোনা পজিটিভ শনাক্তের সংখ্যা ছিল ৮৭৩ । জুলাই মাসে করোনা সংক্রমনে ৩ জনের মৃত্যু হলেও এর পর থেকে সে ধরনের দুঃসংবাদ নেই। জুন মাসে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১৭১। এছাড়া গত মর্চে ১২০ জন, এপ্রিলে ৭ জন এবং মে মাসে মাত্র ৩ জনের দেহে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছিল দক্ষিণাঞ্চলের ৪২ উপজেলায়।
গত ৩তিন দিনে মহানগরী সহ বরিশাল জেলার সাথে পিরোজপুরের পরিস্থিতি অবনতিশীল। মঙ্গলবার সকালের পূর্ববর্তি ২৪ ঘন্টায় দক্ষিণাঞ্চলে মোট আক্রান্ত ২০ জনের ১৩ জনই ছিল মহানগরী সহ বরিশাল জেলায়। ৩ জন পিরোজপুরে। ১৯ সেপ্টেম্বর মোট আক্রান্ত ১৭ জনের মধ্যে ১১ জনই ছিল মহানগরী সহ বরিশাল জেলায়। ৪জন পিরোজপুরে। ১৮ সেপ্টেম্বর শনাক্ত ৫ জনের দুজন বরিশালে, অপর ১জন ঝালকাঠীতে এবং ২ জন বরগুনায়। ১৭ সেপ্টেম্বর কোন নমুনা পরিক্ষা ছিলনা, ফলে কেউ শনাক্ত হয়নি। ১৬ সেপ্টেম্বর শনাক্ত ১৯ জনের ১৩ জনই মহানগরী সহ বরিশালে। ৩জন বরিশাল মহানগরী সংলগ্ন ঝালকাঠীতে। এছাড়া পটুয়াখালী,ভোলা ও পিরোজপুরে ১ জন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে। ১৫ সেপ্টেম্বর শনাক্ত ১৯ জনের এ মহানগরী সহ বরিশাল জেলায় ছিল ১৩ জন। এছাড়া ভোলাতে ৩ ও পটুয়াখালীতে দুজন ছাড়াও ঝালকাঠীতে ১জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়।
মঙ্গলবার পর্যন্ত দক্ষিণাঞ্চরে শনাক্ত ৫৪ হাজার ৫৭ জন করোনা রোগীর মধ্যে সর্বাধিক সংখ্যাটা বরিশালে, ২১ হাজার ৯৫৯জন। যার মধ্যে প্রায় ১৩ হাজারই বরিশাল মহানগরীতে। যেখানে দক্ষিণাঞ্চলের মোট জনসংখ্যার ৬% মানুষের বাস। মহানগরীতে ১০৫ জন সহ এ পর্যন্ত বরিশাল জেলায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২৩৭ জনের। দ্বিতীয় সর্বাধীক আক্রান্তের জেলা ভোলাতে করোনা পজিটিভ শনাক্তের সংখ্যাটা ৮ হাজার ২৮। এ দ্বীপ জেলায় মৃত্যু হয়েছে ৯২ জনের। পটুয়াখালীতে ৭ হাজার ১৬৩ জন আক্রান্তের মধ্যে মারা গেছেন ১১০ জন। পিরোজপুরে ৬ হাজার ৪১৯ জন আক্রান্তের মধ্যে ৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। সর্বাধিক মৃত্যু হারের বরগুনাতে ৪ হাজার ৭৬৩ জন আক্রান্তের মধ্যে ৯৯ জন মারা গেছেন। আর দক্ষিণাঞ্চলের সবচেয়ে ছোট জেলা ঝালকাঠীতে ৫ হাজার ৭২৫ জন আক্রান্তের মধ্যে ৭২ জন মারা গেছেন।
অপরদিকে স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমিত হিসেবে দক্ষিণাঞ্চলে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫২ হাজার ৯৩২ জন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

৫ নভেম্বর, ২০২২
২ নভেম্বর, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ