Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫, ১৪ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও বইটি ওয়েব সাইটে ছেড়ে দেয়ায় আটক ৩ জন রিমান্ডে

ব-দ্বীপ প্রকাশনীর ইসলামবিরোধী বই প্রকাশ

প্রকাশের সময় : ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : যে বইটির কারণে বই মেলার ব-দ্বীপ প্রকাশনীর স্টলটি বন্ধ করা হয়েছে, সেই বইটিতে সাংঘাতিক ও অশালীন কথা লেখা হয়েছে। এ ধরনের কথা শুধু ইসলাম নয়, যেকোনও ধর্ম সম্পর্কেই বলা উচিত নয়। ওই বইটির মাধ্যমে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়া এবং বইটি ওয়েব সাইটে ছেড়ে দেওয়ায় গ্রেফাতরকৃত ৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।
রাজধানীর শাহবাগ থানার ওসি আবু বকর সিদ্দিক বলেন, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানা ও মহানবী (সা.)-এর সম্পর্কে কটূক্তির অভিযোগে সোমবার রাতে একই থানার এসআই মাসুদ রানা বাদী হয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ৫৭ (২) ধারায় মামলা দায়ের করেন। এতে ব-দ্বীপ প্রকাশনীর মালিক শামসুজ্জোহা মানিকসহ কয়েকজনকে আসামি করা হয়। পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে প্রকাশনীর মালিক মানিক, প্রকাশনীর কর্মকর্তা ফকির তসলিম উদ্দিন কাজল ও লেখক শামসুল আলম চঞ্চলকে গ্রেফতার করে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিন করে রিমান্ড আবেদন জানিয়ে আদালতে পাঠায় পুলিশ। ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আমিরুল হায়দার চৌধুরী শুনানি শেষে ব-দ্বীপ প্রকাশনীর মালিক শামসুজ্জোহা মানিকের ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। একইসঙ্গে ব-দ্বীপ প্রকাশনীর কর্মকর্তা ফকির তসলিম উদ্দিন কাজলকে ২ দিন এবং লেখক শামসুল আলম চঞ্চলকে ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
ওসি আরও জানান, বিতর্কিত ‘ইসলাম বিতর্ক’ বইটিতে ইসলাম মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার মতো লেখা রয়েছে। বাংলা একাডেমিকে বিষয়টি জানালে ব-দ্বীপ প্রকাশনীর ১৯১ নম্বরের স্টলটিও বন্ধ করে দেওয়া হয়। ওই স্টল থেকে ৭০ থেকে ৮০টি বই জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্যদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।
এদিকে গতকাল বিকেলে শাহবাগ থানায় সংবাদ সম্মেলন করে ব-দ্বীপ প্রকাশনীর স্টল বন্ধ ও সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে মামলা করার বিষয়ে ব্যাখ্যা দেয় পুলিশ। সম্মেলনে ডিএমপি’র রমনা জোনের উপ-কমিশনার (ডিসি) আবদুল বাতেন বলেন, যে বইটির কারণে ব-দ্বীপ প্রকাশনীর স্টল বন্ধ করতে বাংলা একাডেমিকে অনুরোধ জানানো হয়, সেই বইটিতে সাংঘাতিক ও অশালীন কথা লেখা হয়েছে। এ ধরনের কথা শুধু ইসলাম নয়, যেকোনও ধর্ম সম্পর্কেই বলা উচিত নয়। বইটি প্রকাশের পেছনে কোনো উদ্দেশ্য আছে কি না এবং গ্রেফতারকৃতদের রাজনৈতিক পরিচয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
তিনি বলেন, বইটির অনলাইন সংস্করণও আছে। ‘ইসলাম বিতর্ক’ বইয়ে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন লেখার সঙ্কলন করা হয়েছে। ২০১০ সালের নভেম্বর মাসে বইটির প্রথম প্রকাশ হয় বলে এতে লেখা আছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ