Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

ইউক্রেনীদের জন্য আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে ইরানের ড্রোন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১:১৪ পিএম

ইউক্রেন অভিযানে বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে ইরানের কাছ থেকে কেনা ড্রোন ব্যবহার করছে রাশিয়া। এগুলো সস্তা এবং যুদ্ধক্ষেত্রে অত্যান্ত কার্যকর| ইতিমধ্যে ইউক্রেনীয় সেনাদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে ইরানের এ ড্রোনগুলো।

ইউক্রেনীয় সশস্ত্র বাহিনীর জুনিয়র সার্জেন্ট আন্দ্রিয়ানা আরেখতা বলেছেন, ড্রোনগুলো ক্রিমিয়া থেকে উড়েছিল তার বিশেষ বাহিনীর ইউনিটের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর খেরসনের কাছে লড়াই করার জন্য। ড্রোনগুলি সৈন্যদের প্রতিরক্ষা এড়িয়ে যায় এবং তাদের অবস্থানের উপর বোমা ফেলে, ভিতরে তাদের ক্রু সহ দুটি ট্যাঙ্ক ধ্বংস করে দেয়। ‘রাডারে এই ড্রোনগুলি দেখা খুব কঠিন,’ বলেছেন আরেখতা, যিনি গত সপ্তাহে ইউক্রেনীয় নারী সৈন্যদের একটি প্রতিনিধি দলের অংশ হিসাবে ওয়াশিংটন, ডিসি ভ্রমণ করেছিলেন, ‘এটি একটি বিশাল সমস্যা।’

গত সপ্তাহে, রাশিয়া ইরান থেকে আমদানি করা শাহেদ এবং মোহাজের যুদ্ধ ড্রোনগুলি ইউক্রেন জুড়ে বৃহত্তর সংখ্যায় মোতায়েন করেছে, যার ফলাফল বিধ্বংসী। কেউ কেউ যুদ্ধের অবস্থানে আঘাত হানে, ট্যাঙ্ক এবং সাঁজোয়া যানগুলি ধ্বংস করে দেয়, অন্যগুলো বন্দর শহর ওডেসা সহ বেসামরিক অবকাঠামোতে আঘাত করে।

শুক্রবার তার রাতের ভাষণে, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন যে, তার দেশের বিমান প্রতিরক্ষা বাহিনী পূর্ব ডিনিপ্রোপেট্রোভস্ক অঞ্চল এবং ওডেসায় এক ডজনেরও বেশি ড্রোন গুলি করেছে। ইউক্রেনীয় বিমান বাহিনী সেগুলোকে শাহেদ-১৩৬ কামিকাজে ড্রোন এবং মোহাজের-৬ ড্রোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে যেগুলো যুদ্ধাস্ত্র বহন করে এবং নজরদারীরর জন্যও ব্যবহার করা যেতে পারে।

তবে সাক্ষাতকারে, একজন ইউক্রেনীয় কর্মী এবং তিনজন সৈন্য বলেছেন যে, ইরানি ড্রোন যোদ্ধা এবং বেসামরিক উভয়ের জন্যই বড় হুমকি। যুদ্ধক্ষেত্রে ইরানি ড্রোনের আগমন পশ্চিমের জন্য অতিরিক্ত আধুনিক অস্ত্র পাঠানোর প্রয়োজনীয়তাকে আরও জরুরি করে তোলে, কারণ কিয়েভ শীতকাল শুরু হওয়ার আগে যতটা সম্ভব অঞ্চল পুনরুদ্ধার করার চেষ্টা করছে।

ইরানি ড্রোন রাশিয়ানদের জন্য একটি সম্ভাব্য গেম-চেঞ্জার বলে মনে করা হচ্ছে। তারা তুলনামূলকভাবে ছোট এবং কম উচ্চতায় উড়ে, ইউক্রেনীয় রাডার এড়িয়ে যায়। আরেখতা বলেছিলেন যে, তিনি স্টিংগার অ্যান্টি-এয়ারক্রাফ্ট ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে সেগুলো গুলি করতে পারেন, তবে কেবল দিনের বেলায় সেটি সম্ভব। কারণ মার্কিন ওই অস্ত্রগুলোর সাথে কোন নাইট-ভিশন ব্যবস্থা দেয়া হয়নি। সূত্র: পলিটিকো।



 

Show all comments
  • মোহাম্মদ ফজলে এলাহী ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৪:১০ এএম says : 0
    আসসালামু_আলাইকুম_ওয়ারহমতউল্যা???? সকল মুসলিম ভাই ভাই ???????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????? আমি ইরান এবং তার মিএ???????????? রাশিয়ার পক্ষে আছি। চিটার ???????????? যারা কথা দিয়ে কথা রাখেনা। আমেরিকা ????????????৷ নিজে জুলুম করে। অভিশাপ আমেরিকার পররাষ্ট নিতির উপর
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন