Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

বিয়ের খাবার খেতে দেখাতে হচ্ছে আইডি কার্ড, না খেয়ে ফিরল বহু অতিথি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৩:৫৬ পিএম

বিয়েবাড়ির বড় আকর্ষণ ভালো খাওয়া-দাওয়া। বিয়ের আয়োজন কতটা ভালো হলো, তা বিয়ের খাওয়া-দাওয়ার ওপরও অনেকাংশে নির্ভর করে। এছাড়া বিয়েতে নিমন্ত্রিত অতিথিদের সাধ্য অনুযায়ী ভালোভাবে আপ্যায়ন করানোটাও একটি বহু প্রাচীন প্রথা।
সেই অনুযায়ী দল বেঁধে বিয়ে বাড়িতে খাবার খেতে গিয়েছিলেন অতিথিরা। তবে সেখানে খাবার না পেয়ে যে ফিরতে হবে তা স্বপ্নেও ভাবতে পারেননি অনেকে। কনের পরিবারের ব্যতিক্রমী কাণ্ডেই কিনা না খেয়েই ফিরতে হল বহু অতিথিকে।
মূলত বিয়ের খাবার খেতে কনের পরিবার আইডি কার্ড দেখানোর শর্ত দেওয়ার পর ভোজসভায় ঢুকতেই পারেননি বহু অতিথি। অগত্যা অনেককেই ফিরে যেতে হলো খালি পেটে। ব্যতিক্রমী এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের আমরোহা জেলায়।
গত রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টাইমস। অতিথিদের আইডি দেখানোর ও বিয়ে বাড়িতে প্রবেশের জন্য তাদের চেষ্টার একটি ভিডিও অবশ্য ইতোমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।
ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে, বিয়েতে যত জনকে নিমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল, তার থেকে অনেক বেশি অতিথি চলে আসে ঘটনার দিন। এতে করে খাবার শেষ হয়ে যায় আগেই। এতে কার্যত মাথায় হাত পড়ে যায় কনের পরিবারের। অতিথিদের আটকাতে তাই আধার কার্ড দেখানো বাধ্যতামূলক করে দেন তারা। আর যাদের আধার কার্ড ছিল না, তারা না খেয়েই ফিরে যান।
সংবাদমাধ্যম বলছে, ভারতের উত্তরপ্রদেশের আমরোহা জেলার হাসনাপুরে গত ২১ সেপ্টেম্বর পাশাপাশি দু’টি বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। একটি বিয়ে বাড়িতে যখন বরযাত্রীদের খাবার পরিবেশন করা হচ্ছিল, তখন সেখানে চলে আসেন অন্য বিয়ে বাড়ির অতিথিরাও। তারা বসেই খাবারও খাওয়া শুরু করে দেন।
তবে কনের পরিবার কিছুতেই বুঝতে পারছিল না, কারা আসলে তাদের অতিথি। এতে বেঁধে যায় গোল। খাবার শেষ হয়ে যায়। মন খারাপ হয়ে যায় কনের পরিবারের। বাধ্য হয়ে অতিথিদের প্রবেশ বন্ধ করতে আধার কার্ড দেখানোর শর্ত দেন। জানিয়ে দেন, ওই পরিচয়পত্র ছাড়া প্রবেশ নিষেধ।
যদিও প্রকৃত অনেক অতিথি তাদের আধার কার্ড ছাড়াই বিয়ের অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন এবং কনের পরিবারের দেওয়া শর্তকে তারা অপমান হিসাবে আখ্যা দেন। এতে না খেয়েই অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন অনেকে।
ক্ষুব্ধ অতিথিদের অভিযোগ, আধার কার্ড আনতে হবে নিমন্ত্রণের সময় জানানো হয়নি কেন? কে বিয়েবাড়িতে আধার কার্ড নিয়ে আসেন? বেশ কয়েকজন অতিথি এমন শর্তকে অপমান বলে ব্যাখ্যা করে না খেয়েই বিয়েবাড়ি থেকে বেরিয়ে যান।



 

Show all comments
  • Abdul Gaffar ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১:০৮ এএম says : 0
    fixed it
    Total Reply(0) Reply
  • H m emran hosain ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৪:০৭ পিএম says : 0
    কনের বাবা ঠিক করেছেন ১০০ জন মেহমান আসবে বলে ২০০জন ও আশে বিশেষ করে এটা মেয়ের পরিবারের উপর জুলম করা হয়(এ থেকে বেরিয়ে আসতে হবে
    Total Reply(0) Reply
  • 88888888888888 ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৪:২২ পিএম says : 0
    ঘটনা উত্তরপ্রদেশের। আর বুঝাই যাচ্ছে কনের পরিবার, গাভীর যোনি চোঁয়ানো পানি পানকারী, যোগীর, কট্টর সমর্থক বা দালাল।
    Total Reply(0) Reply
  • বিশ্বজিৎ চন্দ্র দাস ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৫:৫৯ পিএম says : 0
    এক একটা আবাল কোথা থেকে বের হয় জানে কে? পোষ্ট না বুঝে আজেবাজে মন্তব্য করতে থাকে।
    Total Reply(0) Reply
  • Rashed ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১০:৫২ পিএম says : 0
    Koner poribar akdom thic korece✔️
    Total Reply(0) Reply
  • কামরুল হাসান ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৯:২০ এএম says : 0
    কনের বাবাকে ধন্যবাদ দেওয়া যায়, রাসুল(সা) বলেছেন, কনের নয় বরং তুমরা যারা বিহায় করছ, তুমরা যথাসাধ্য অলিমা কর
    Total Reply(0) Reply
  • নাজমুল হুদা ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ২:২৯ পিএম says : 0
    কনের পরিবার কাজটা সঠিক করেছেন। প্রতিটা বিয়েতে এমনই হওয়া উচিত। ১০০ জন বরযাত্রী আসার কথা থাকলেও কমপক্ষে ১৮০ জন আসে। এটা আসলেই কনের পরিবারের সাথে প্রতারনা এবং জুলুম।
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃআনোয়ার হোসেন, মহেশ পুর,পত্নীতলা,নওগাঁ ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১২:১০ পিএম says : 0
    বিয়ে বাড়ি বিয়ে খেতে মানুষ যায় না,যায় কিছু মানুষরুপি শিংহ, যারা ভাত বিরিয়ানি না খেয়ে খায় শুধু মাংস।কনের বাবাদের এরকম করাই উচিত।
    Total Reply(0) Reply
  • Ismail hossain ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ২:৪৫ পিএম says : 0
    Koner poriber thik korace
    Total Reply(0) Reply
  • syed kabir M.J. ১ অক্টোবর, ২০২২, ৬:৪৪ পিএম says : 0
    সঠিক সিদ্ধান্ত তবে আগে জানানো বান্চ্ঞনীয়।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন