Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

নর্ড স্ট্রিমসের ঘটনার পেছনে থাকতে পারে যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্য

পেন্টাগন প্রধানের সাবেক উপদেষ্টার অভিমত অস্ট্রিয়ার মাধ্যমে রাশিয়ান গ্যাস সরবরাহ স্থগিত ষ ভূখণ্ডের নিয়ন্ত্রণ পুনরুদ্ধারে ইউক্রেনকে সমর্থন অব্যাহত রাখবে যুক্তরাষ্ট্র : ব্লিঙ্কেন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ অক্টোবর, ২০২২, ১২:১০ এএম

নর্ড স্ট্রিম ১ এবং নর্ড স্ট্রিম ২ পাইপলাইনে বিস্ফোরণের পেছনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যের হাত থাকতে পারে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সাবেক উপদেষ্টা ডগলাস ম্যাকগ্রেগর জাজিং ফ্রিডম পডকাস্টের উপস্থাপক অ্যান্ড্রু নাপোলিটানোর সাথে একটি কথোপকথনে একথা বলেছেন।

ম্যাকগ্রেগর বলেন, ‘আপনাকে দেখতে হবে যে, রাষ্ট্রীয় অভিনেতারা কারা এটি করার ক্ষমতা রাখে এবং এর অর্থ হল [ইউকে’স] রয়্যাল নেভি এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী। আমি মনে করি এটি বেশ পরিষ্কার’। তিনি পোল্যান্ডের প্রাক্তন পররাষ্ট্রমন্ত্রী (২০০৭-২০১৪), ইউরোপীয় পার্লামেন্ট সদস্য রাডোসলা সিকোরস্কির প্রকাশনার কথাও উল্লেখ করেছেন, যিনি তার টুইটার পৃষ্ঠায় নর্ড স্ট্রিম ১ এবং নর্ড স্ট্রিম ২ গ্যাস পাইপলাইনগুলোকে ক্ষতিগ্রস্ত করার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। পেন্টাগন প্রধানের প্রাক্তন উপদেষ্টা এ ধারণাটিকে অযৌক্তিক বলেছেন যে, পাইপলাইনে ঘটনার পেছনে মস্কো ছিল। ‘রাশিয়ানরা এটা করেনি’ তিনি বলেন, এ ঘটনায় জার্মানির সম্পৃক্ততা ‘অত্যন্ত অসম্ভাব্য’ ছিল।

চারটি নর্ড স্ট্রিম গ্যাস পাইপলাইন ফাঁস উন্মোচন করা হয়েছে, সবচেয়ে সাম্প্রতিকটি সুইডেনের কোস্ট গার্ড দ্বারা চিহ্নিত করা হয়েছে। এর আগে, নর্ড স্ট্রিম এজি কোম্পানি জানিয়েছে যে, নর্ড স্ট্রিম ১ এবং ২ অফশোর গ্যাস পাইপলাইনের তিনটি থ্রেড সোমবার অভূতপূর্ব ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন যে, মস্কো ‘খবরটি সম্পর্কে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন’ এবং নাশকতার একটি কাজে পাইপলাইনের অপারেশন ব্যাহত হতে পারে তা অস্বীকার করেনি। সুইডিশ সিসমোলজিস্টরা পরে জানিয়েছেন যে, সোমবার নর্ড স্ট্রিম পাইপলাইন বরাবর দুটি বিস্ফোরণ রেকর্ড করা হয়েছে। ডেনিশ এনার্জি এজেন্সি জানিয়েছে যে, বিপুল পরিমাণ গ্যাস সমুদ্রে ছড়িয়ে পড়েছে। বিমান এবং জাহাজগুলোকে পাঁচ নটিক্যাল মাইলেরও কাছাকাছি জায়গাটির কাছে আসতে বাধা দেওয়া হয়েছে।

অস্ট্রিয়ার মাধ্যমে রাশিয়ান গ্যাস সরবরাহ স্থগিত : গ্যাজপ্রম বলেছে, অস্ট্রিয়ান এক অপারেটরের প্রবিধানে পরিবর্তনের বিষয়ে মনোনয়ন নিশ্চিত করতে অস্বীকার করার কারণে অস্ট্রিয়ার মাধ্যমে রাশিয়ান গ্যাসের ট্রানজিট স্থগিত করা হয়েছে। রাশিয়ান কোম্পানি বর্তমানে ইতালিতে তার গ্রাহকদের সাথে একত্রে সমস্যার সমাধানে কাজ করছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘অস্ট্রিয়ান অঞ্চলের মাধ্যমে গ্যাজপ্রম এক্সপোর্ট চুক্তিতে রাশিয়ান গ্যাসের ট্রানজিট স্থগিত করা হয়েছে পরিবহন মনোনয়ন নিশ্চিত করতে অস্ট্রিয়ান অপারেটরের প্রত্যাখ্যানের কারণে। কারণটি সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে অস্ট্রিয়াতে চালু হওয়া নিয়ন্ত্রক পরিবর্তনের সাথে সম্পর্কিত। ইতালীয় গ্রাহকদের সাথে যৌথভাবে সমস্যা সমাধানে গ্যাজপ্রম কাজ করছে।

এর আগে, ইতালির এনি জানিয়েছে, তারা গ্যাজপ্রম থেকে একটি নোটিশ পেয়েছে যে, তারা অস্ট্রিয়ার মাধ্যমে ট্রানজিটের অসম্ভবতার কারণে ১ অক্টোবরে অনুরোধকৃত পরিমাণে গ্যাস সরবরাহ করতে সক্ষম হবে না।
নর্ড স্ট্রিম গ্যাস পাইপলাইনে নাশকতার পর, পশ্চিম ও মধ্য ইউরোপে রাশিয়ান গ্যাস সরবরাহের একমাত্র পথ ইউক্রেন হয়ে। এর আগে, গ্যাজপ্রম বলেছিল যে, ১ অক্টোবর, সেই লাইনের মাধ্যমে তার সরবরাহের পরিমাণ ছিল ৪১.৭ মিলিয়ন ঘনমিটার।

ভূখণ্ডের নিয়ন্ত্রণ পুনরুদ্ধারে ইউক্রেনকে সমর্থন অব্যাহত রাখবে যুক্তরাষ্ট্র -ব্লিঙ্কেন :
এদিকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন গত শনিবার ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রি কুলেবাকে টেলিফোনে কথোপকথনে বলেছেন যে, যুক্তরাষ্ট্র সর্বদা ইউক্রেনের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সীমানাকে সম্মান করবে এবং তার ভূখণ্ডের নিয়ন্ত্রণ পুনরুদ্ধারের প্রচেষ্টাকে সমর্থন অব্যাহত রাখবে। স্টেট ডিপার্টমেন্টের প্রেস সার্ভিস পরে একথা জানিয়েছে।

সেক্রেটারি অব স্টেট পুনর্ব্যক্ত করেছেন যে, ‘[মার্কিন] প্রেসিডেন্ট [জো] বাইডেনের বার্তা যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সর্বদা ইউক্রেনের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সীমানাকে সম্মান করবে এবং আমরা সামরিক ও কূটনৈতিকভাবে তার হাতকে শক্তিশালী করে তার ভূখণ্ডের নিয়ন্ত্রণ পুনরুদ্ধারের জন্য ইউক্রেনের প্রচেষ্টাকে সমর্থন অব্যাহত রাখব’ -বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

এছাড়াও, মার্কিন শীর্ষ কূটনীতিক তার প্রতিপক্ষকে এ সপ্তাহের শুরুতে ওয়াশিংটনের ঘোষিত পরবর্তী সামরিক সহায়তা প্যাকেজ, সেইসাথে ভবিষ্যত বিতরণ সম্পর্কে অবহিত করেছেন। এছাড়াও, উভয় পক্ষ ইউক্রেনের শস্য সরবরাহ এবং ইউক্রেনের পারমাণবিক স্থাপনার নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনা করেছে।

২৩ থেকে ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দোনেৎস্ক এবং লুগানস্ক পিপলস রিপাবলিকস, সেইসাথে জাপোরোজিয়ে এবং খেরসন অঞ্চল রাশিয়ার অংশ হওয়ার জন্য গণভোট অনুষ্ঠিত হয়। তাদের বাসিন্দাদের সিংহভাগই রাশিয়ান ফেডারেশনের অংশ হওয়ার পক্ষে ভোট দিয়েছে। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন এবং দোনেৎস্ক এবং লুগানস্ক পিপলস রিপাবলিক এবং জাপোরোজিয়ে এবং খেরসন অঞ্চলের প্রধানরা শুক্রবার এসব অঞ্চলগুকে রাশিয়ায় অন্তর্ভুক্ত করার বিষয়ে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছেন।

রাশিয়ান নেতা উল্লিখিত অঞ্চলগুলোর যোগদানের অনুষ্ঠানে বলেন যে, রাশিয়ান ফেডারেশন ইউক্রেনের সাথে আবার আলোচনা শুরু করতে প্রস্তুত, তবে ডনবাস, জাপোরোজিয়ে এবং খেরসন অঞ্চলের বাসিন্দাদের পছন্দের বিষয়ে আলোচনা করবে না, কারণ তারা রাশিয়ান হয়ে উঠেছে’। পুতিন জোর দিয়ে বলেন, মস্কো, ‘সব সম্ভাব্য শক্তি এবং উপায়’ দিয়ে তার নতুন অঞ্চলগুলোকে রক্ষা করবে, আর পশ্চিমের গণভোটের ফলাফল নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোনো নৈতিক অধিকার নেই। সূত্র : তাস।



 

Show all comments
  • Md. Tuhin ৩ অক্টোবর, ২০২২, ৮:২৫ এএম says : 0
    আর পাঁচ বছর পর ন‍্যাটোর অস্তিত্ব থাকবে না কারণ বিভিন্ন দেশে যে লুটপাট করে ইনকাম করে সেটা আর থাকবে না। এই লুটপাট বন্ধ হলে ন‍্যাটো অচল হয়ে পড়বে।
    Total Reply(0) Reply
  • H.M. Abu Bakar Siddik ৩ অক্টোবর, ২০২২, ৮:২৬ এএম says : 0
    এই যুদ্ধের জন্য রাশিয়ার চেয়েও বেশী দ্বায়ী ইইউ ন্যাটো ও আমেরিকা। ইইউ ন্যাটো ও আমেরিকা উস্কানীর জন্য ইউরোপ আমেরিকা এশিয়া আফ্রিকা সবাই ক্ষতিগ্রস্থ।
    Total Reply(0) Reply
  • Harun Rashid ৩ অক্টোবর, ২০২২, ৮:২৭ এএম says : 0
    রাশিয়ার কপালে বড়ো দুঃখ আছে জোর করে কোন কিছু কেড়ে নিলে সেটা কোন দিন সুফল হয়না
    Total Reply(0) Reply
  • Md Azhar ৩ অক্টোবর, ২০২২, ৮:২৭ এএম says : 0
    রাশিয়ার পতন অনিবার্য। আগে যাও ফাপরবাজী করে চলতে পারতো। তথাকথিত সুপার পাওয়ার ইমেজ নিয়ে চলতো। ইউক্রেন যুদ্ধে জড়িয়ে অর্থনীতি ইমেজ সবকিছুই গেল। ইউক্রেন একেবারে প্যান্ট খুলে নিয়েছে রাশিয়ার।
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ সবুজ হোসেন ৩ অক্টোবর, ২০২২, ৮:২৫ এএম says : 0
    বড় যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ছে হয়তো। তবে পশ্চিমাদের বুদ্ধি নাকানি-চুবানি খাইছে পুতিনের বুদ্ধির কাছে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাশিয়া


আরও
আরও পড়ুন