Inqilab Logo

শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৮ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

প্রবীণদের জন্য চাই সার্বজনীন পেনশন স্কিম

ওয়েবিনারে বক্তারা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ অক্টোবর, ২০২২, ১২:০২ এএম

পরিবর্তিত বিশ্ব পরিস্থিতিতে প্রবীণদের মর্যাদাপূর্ণ জীবনযাপন নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে বেশকিছু চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রবীণদের জন্য সর্বজনীন পেনশন স্কিমের ব্যবস্থা করা দরকার। গতকাল পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন-পিকেএসএফ আয়োজিত এক ওয়েবিনারে বক্তারা এমন অভিমত ব্যক্ত করেছেন। একই সঙ্গে প্রবীণদের বিনামূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়েছেন তারা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পিকেএসএফ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. নমিতা হালদার এবং সঞ্চালনা করেন সংস্থার অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. জসীম উদ্দিন। মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পিকেএসএফ-এর উপমহাব্যবস্থাপক গোকুল চন্দ্র বিশ্বাস। বাংলাদেশে বর্তমানে ৬০ বছর বা তার বেশি বয়সীদের প্রবীণ হিসেবে বিবেচনা করা হয় এবং দেশে মানুষের গড় আয়ু ৭২ দশমিক ৬ বছর। ওয়েবিনারে বক্তারা বলেন, বার্ধক্যে পৌঁছানোর পর একজন মানুষ গড়ে ১৩ থেকে ১৫ বছর পর্যন্ত জীবিত থাকেন। এ সময়ে তারা লব্ধ জ্ঞান ও অভিজ্ঞতার মাধ্যমে সমাজে বিভিন্নভাবে ভূমিকা রাখতে পারেন। এজন্য প্রবীণদের দক্ষতার ভিত্তিতে একটি ডেটাবেজ তৈরি করা যেতে পারে। ‘পরিবর্তিত বিশ্বে প্রবীণ ব্যক্তির সহনশীলতা’ প্রতিপাদ্যে ১ অক্টোবর বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে বাংলাদেশেও যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয় আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস-২০২২। গোকুল চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, প্রবীণদের জীবন-মান উন্নয়নে বয়স্ক ভাতা, অবসর সুবিধা, বিধবা ভাতাসহ বেশকিছু পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। তারপরও পরিবর্তিত বিশ্বে প্রবীণদের মর্যাদাপূর্ণ জীবন নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে বেশকিছু চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রবীণদের জন্য সর্বজনীন পেনশন স্কিম-এর ব্যবস্থা করার প্রস্তাব করেন তিনি। একই সঙ্গে তিনি পিতা-মাতার ভরণ-পোষণ আইন-এর সঠিক প্রয়োগ নিশ্চিত করা এবং জাতীয় প্রবীণ নীতিমালা অনুযায়ী হাসপাতালগুলোতে বিনামূল্যে বা হ্রাসকৃত দামে চিকিৎসা দেয়ার পরামর্শ দেন। পিকেএসএফ পরিচালনা পরিষদের সদস্য নাজনীন সুলতানা প্রবীণদের সুরক্ষায় সর্বজনীন পেনশন স্কিম চালু এবং বিনামূল্যে চিকিৎসা নিশ্চিত করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। প্রবীণদের জীবন-মান উন্নয়নে পিকেএসএফ গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে সমন্বয় করার কথা বলেন ড. নমিতা হালদার।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ