Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

ইউক্রেন যুদ্ধে নিজের ছেলেদের পাঠাচ্ছেন রমজান কাদিরভ

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ অক্টোবর, ২০২২, ১০:১৬ এএম

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ঘনিষ্ঠ মিত্র চেচেন নেতা রমজান কাদিরভ তার তিন কিশোর ছেলেকে ইউক্রেনে যুদ্ধ করার জন্য পাঠাবেন বলে জানিয়েছেন। তারা সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নিবে বলেও তিনি জানান। সোমবার তিনি এমন তথ্য দেন। রুশ সামরিক নেতাদের পরাজয়ের ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে তাদের উপদেশ দেওয়ার সময় এমন কথা বলেন তিনি।

ইউক্রেনে যুদ্ধরত এক নিজস্ব চেচেন সেনাবাহিনীর পরিচালনায় আছেন রমজান। এর আগে তিনি দাবি করেছিলেন যে পূর্ব ইউক্রেনে নিযুক্ত রুশ বাহিনীর সেনাপতির পদক কেড়ে নেওয়া হোক এবং তাকে সম্মুখ যুদ্ধে পাঠানো হোক। তিনি কর্নেল-জেনারেল আলেকজান্ডার ল্যাপিনের সমালোচনা করে তাকে মাঝারি মানের সেনাপতি বলে অভিহিত করেছেন।

পূর্ব ইউক্রেনের অন্যতম প্রধান শহর লাইমান থেকে রুশ বাহিনীর প্রত্যাহারের পর এ চেচেন নেতা দেশটির সামরিক নেতাদের তীব্র সমালোচনা করছেন।

এছাড়া টেলিগ্রাম মেসেজিং অ্যাপে কাদিরভ তার ছেলেদের এক ভিডিও পোস্ট করেছেন। যেখানে দেখা গেছে তার ছেলে আখমত (১৬), এলি (১৫) ও অ্যাডাম (১৪) অস্ত্র দিয়ে গুলি করছেন। এরপর তিনি লিখেছেন যে তারা শীঘ্রই সম্মুখ যুদ্ধের সবচেয়ে ভয়ংকর স্থানে যাবেন।

তিনি বলেন, তার ছেলেদের ছোট বয়স থেকেই যুদ্ধের জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছিল। রমজান জোর দিয়ে বলেছেন যে তিনি কোনো তামাশা করছেন না। তার ছেলেরা সত্যিই যুদ্ধে যাচ্ছে।


রমজান কাদিরভের ছেলে আখমত (১৬), এলি (১৫) ও অ্যাডাম (১৪) অস্ত্র দিয়ে গুলি করছেন তিনি বলেছেন, ‘সত্যিকারের লড়াইয়ে নিজেদের প্রমাণের সময় এসেছে তার ছেলেদের। তাই তিনি তার ছেলেদের যুদ্ধে যাওয়ার ইচ্ছাকে স্বাগত জানান।’

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ছেলেদের যুদ্ধে পাঠানোর ঘোষণা দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রমজান কাদিরভ লিখেছেন, ‘একজন বাবার উচিত, তাদের সন্তানদের এ শিক্ষা দেওয়া যে কীভাবে তারা তাদের পরিবার, দেশের মানুষ ও পিতৃভূমি রক্ষা করবে।’

২০০৭ সাল থেকে রাশিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় চেচনিয়া প্রজাতন্ত্রের শাসক কাদিরভ। ওই বছর রমজান কাদিরভকে চেচনিয়ার প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঘোষণা করেন ভ্লাদিমির পুতিন। কাদিরভ ভ্লাদিমির পুতিনের একজন একনিষ্ঠ সমর্থক। সূত্র : আল-জাজিরা, বিবিসি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউক্রেন-রাশিয়া


আরও
আরও পড়ুন