Inqilab Logo

বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সিঙ্গাপুর শ্রমবাজারে ভাটার টান চলছে

| প্রকাশের সময় : ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সর্বোচ্চ কূটনৈতিক উদ্যোগ নেয়া জরুরি : জঙ্গিবাদের আতঙ্ক কেটে গেছে -হাই কমিশনার
সিঙ্গাপুর থেকে শামসুল ইসলাম : সিঙ্গাপুর শ্রমবাজারে ভাটার টান চলছে। বিশ^ বাজারে জ¦ালানী তেলের মূল্য হ্রাস পাওয়ায় সিঙ্গাপুরের শিপইয়ার্ডগুলো নতুন নতুন প্রজেক্ট হাতে নিতে পারছে না। এতে প্রতিষ্ঠানগুলোতে নিয়োজিত কর্মীদের চাহিদার গতি ধীরে ধীরে কমছে। বৃহৎ শিপইয়ার্ড কোম্পানি ক্যাপেল ফেলস চলতি বছর ব্রাজিলের সাথে একটি প্রজেক্টের চুক্তি করতে ব্যর্থ হওয়ায় তাদের কাজের গতিতে চরম ভাটা দেখা দেয়। উল্লেখিত প্রজেক্টটি চীনা কোম্পানির ভাগ্যে জোটে। ক্যাপেল ফেলস কর্তৃপক্ষ প্রায় ৬০% বাংলাদেশী কর্মীদের ছাটাইয়ের চিন্তাভাবনা করে। ইতিমধ্যেই প্রায় ১০ থেকে ১৫ হাজার প্রবাসী দক্ষকে দেশে পাঠিয়ে দিয়েছে। এসব কর্মীদের পুনরায় আনার আশ^াসও দেয়া হয়েছে। সিঙ্গাপুরে বর্তমানে জঙ্গিবাদের কোনো আতঙ্ক নেই। গত ডিসেম্বর ও জানুয়ারিতে কতিপয় বাংলাদেশিকে জঙ্গিবাদ হিসেবে গ্রেফতারের বিষয়টি ছিল একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা। ঐ সময়ে প্রবাসী বাংলাদেশীদের মাঝে কিছুটা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছিল। বাংলাদেশি কর্মীদের কোনো জঙ্গি বা সন্ত্রাসী কাজে জড়িত হবার সুযোগ নেই। সিঙ্গাপুরের নিয়োগকারীরা বাংলাদেশী কর্মীদের সবচেয়ে বেশি পছন্দ করেন। বাংলাদেশীরা কঠোর পরিশ্রম করে আধুনিক সিঙ্গাপুরের অর্থনৈতিক উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখছে। গতকাল শুক্রবার ১৯ ক্যাপেল রোডস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশনের হাইকমিশনার মাহবুব উজ-জামান তার দপ্তরে ইনকিলাবের সাথে আলাপকালে একথা বলেন। সিঙ্গাপুর থেকে প্রবাসীদের রেমিটেন্সর গতিও হ্রাস পাচ্ছে। ২০১৪-২০১৫ অর্থ বছরে সিঙ্গাপুর থেকে প্রবাসীরা বৈধ পথে ৪৪৩ দশমিক ৪৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দেশে পাঠিয়েছে। ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরে প্রবাসীরা ৩৮৭ দশমিক ২৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দেশে পাঠিয়েছে। গত জুলাই মাসে ২৮ দশমিক ৫৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, আগস্ট মাসে ৩১ দশমিক ৭৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং সেপ্টেম্বর মাসে ২৭ দশমিক ১২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দেশে পাঠিয়েছে। লেম্বু রোডস্থ অগ্রণী এক্সচেঞ্জ হাউজ প্রাইভেট লিমিটেডের সিইও এন্ড ডিরেক্টর শামসুল হক রেমিটেন্স প্রসঙ্গে বলেন, কাজের অভাবে কিছু কিছু দেশে চলে যাচ্ছে এবং হুন্ডি ব্যবসায়ীদের দৌরাত্বেও রেমিটেন্সের গতিতে ভাটা পড়ছে। ১০এ, রোবার্টস লেনস্থ ন্যাশনাল মার্নি ট্রান্সফার প্রা: লিমিটেডের চীফ এক্সিকিউটিভ অফিসার মুহাম্মদ জাকারিয়া হাবিব ব্যাংকের গ্রাহক সংখ্যা দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে। ২০১৫ সালের জানুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত ন্যাশনাল ব্যাংকের গ্রাহক ছিল ১ লাখ ৩৩ হাজার। ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে গত নভেম্বর পর্যন্ত ১ লাখের নীচে নেমে এসেছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, হুন্ডির মাধ্যমে কর্মীরা দেশে রেমিটেন্স পাঠাতে বেশি আগ্রহী হয়ে পড়েছে। এসব অবৈধ হুন্ডি ব্যবসায়ীদের দমনে সরকারের বাস্তবমুখী উদ্যোগ নেয়ার উপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, বৃহৎ শিপইয়ার্ড ক্যাপেল ফেলস কোম্পানি থেকে প্রায় ১৫ হাজার কর্মীকে দেশে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। প্রবাসী কর্মীরা ন্যাশনাল ব্যাংকের মাধ্যমে ২০১৫ সালের জানুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত ৫৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দেশে পাঠিয়েছে। ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত কর্মীরা ন্যাশনাল ব্যাংকের মাধ্যমে ৩৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দেশে পাঠিয়েছে।  
সিঙ্গাপুরে হুন্ডি ব্যবসা জমজমাট আকার ধারণ করায় বৈধ পথে রেমিটেন্সের পরিমাণ ব্যাপক হারে কমছে। হুন্ডি ব্যবসা রোধে উভয় সরকারের যৌথ উদ্যোগ নিতে হবে। ভারত সরকার সিঙ্গাপুর সরকারের সহায়তায় ইতিমধ্যেই প্রায় ৪০% হুন্ডি ব্যবসা কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে। হাই কমিশনের লেবার কাউন্সেলর আয়েশা সিদ্দিকা শেলী এতথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশিদের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। শ্রমবাজার সম্প্রসারণে সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে কূটনৈতিক উদ্যোগ নেয়ার চিন্তাভাবনা চলছে বলে তিনি জানান। এক প্রশ্নের জবাবে লেবার কাউন্সেলর শেলী বলেন, বিশ^ বাজারে জ¦ালানী তেলের দাম পড়ে যাওয়ায় সিঙ্গাপুরের মেগা কোম্পানিগুলো নতুন প্রজেক্ট হাতে নিতে পারছে না। হাউজিং খাতেও মন্দা ভাব বিরাজ করছে। সে জন্য নির্মাণ খাতেও কাজের কিছুটা অভাব দেখা দিচ্ছে। আগামী ২/১ বছরের মধ্যে অর্থ নৈতিক মন্দা কেটে উঠলে বাংলাদেশিদের জন্য এ শ্রমবাজার ব্যাপক প্রসার লাভ করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।  বাংলাদেশ বিজিনেস চেম্বার অব সিঙ্গাপুর (বিডিসিএইচএএম)-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের গতকাল ইনকিলাবকে বলেন, সিঙ্গাপুর নিয়োগকারীরা বাংলাদেশিদের নিয়োগ দিতে বেশি আগ্রাহী। তিনি বলেন, অবৈধ হুন্ডি ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ব্য বেড়ে যাওয়ায় রেমিটেন্স প্রবাহ থেকে সরকার প্রচুর রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। চাঙ্গী প্রিজন ও এ্যাডরিরালটি প্রিজনে প্রায় ১শ’২২জন বাংলাদেশী কর্মী বিচারাধীন রয়েছে। এদের মধ্যে নিজেরা নিজেরা ডরমিটরিতে মারামারি এবং মেয়াদ শেষে পালিয়ে গিয়ে অবৈধভাবে কাজ করার অপরাধে ধরা পড়ে জেল খাটছে। কয়েকজন বাংলাদেশী মিলে একজন কর্মীকে পিটিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় বর্তমানে ৬জন জেলে আটক রয়েছে। আগামী ১০ জানুয়ারি এ ব্যাপারে আদালতে শুনানী হবার কথা রয়েছে। হাইকমিশন সূত্র তথ্য জানিয়েছে। ২০১৫ সালে সিঙ্গাপুরের কর্মক্ষেত্রে ৬ জনের মৃত্যু জনিত ঘটনায় হাই কমিশনের সহায়তায় মৃত ব্যক্তিদের স্বজনরা ৩ কোটি ৯ লাখ ৪৮ হাজার টাকা, ২০১৪ সালে ৮জনের মৃত্যু জনিত কারণে ৪ কোটি ৯৮ লাখ ৭৬ হাজার টাকা এবং ২০১৬ সালে ৭ জনের মৃত্যু জনিত কারণে ৫ কোটি ২৪ লাখ ২০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরনের আদায় করার প্রক্রিয়া চলছে। সিঙ্গাপুর প্রবাসী কর্মীরা নতুন পাসপোর্ট অথবা পাসপোর্ট নবায়ন করতে কিউ নাম্বার নিতে অনলাইনে সুবিধা পাচ্ছে। তবে ঢাকা থেকে পাসপোর্ট সরবরাহে কূটনৈতিক ব্যাগেজে পাসপোর্ট আসতে ২০/২৫ দিন বিলম্ব হওয়ায় নতুন অথবা নবায়ন করতে প্রায় ১ মাস সময় লেগেছ। সিঙ্গাপুরে ভারত ও ইন্দোনেশিয়া দূতাবাস কর্তৃপক্ষ তাদের দূতাবাসের ভেতরেই পাসপোর্ট তৈরি করে স্ব-স্ব দেশের কর্মীদের হাতে তুলে দিতে মাত্র ২/৩ দিন সময় নেয়। এদিকে, সিঙ্গাপুর থেকে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে (৩শ’ কিলোমিটার) মাটির নীচ দিয়ে বুলেট প্রুফ দ্রুতগামী রেল প্রজেক্টের কাজ জোরেশোরে শুরু হয়েছে। এ প্রজেক্টেও প্রচুর বাংলাদেশী কর্মীর কর্মসংস্থানের সুযোগ রয়েছে।
স্কাই ই এন্ড সি সল্যুশন প্রা. লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী শিং-এর পাঁচটি আউট সোর্সিং কোম্পানির প্রায় ৩শ’ বাংলাদেশী কর্মী দীর্ঘ দিন যাবত পুরো মাস কাজ পাচ্ছে না। এসব কর্মীরা মাসে ১২/১৫ দিন কাজ পাচ্ছে মাত্র। কারো কারো মাসের খাবারের টাকাও জুটছে না। গতকাল শুক্রবার মোস্তফা প্লাজার মিনি মাঠে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন কর্মী এতথ্য জানিয়েছে। হাই কমিশনের পাসপোর্ট উইং-এর কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম ইনকিলাবকে বলেন, সিঙ্গাপুরের মিনিস্ট্রি অব ম্যানপাওয়ার-এর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে বাংলাদেশ হাইকমিশনের নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে। নিয়োগকারীদের সাথেও হাইকমিশন যোগাযোগ রক্ষা করে চলছে। তিনি বলেন, মেরিন, নির্মাণ ও ক্লিনিং সেক্টর বাংলাদেশিদের দখলে রয়েছে। দেশটিতে বাংলাদেশিরা দীর্ঘ ১৮ বছর পর্যন্ত নবায়নের ভিত্তিতে কাজ করার সুযোগ রয়েছে বলে তিনি জানান।    



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সিঙ্গাপুর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ