Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯, ১০ রজব ১৪৪৪ হিজিরী
শিরোনাম

কঠোর শূন্য কোভিড নীতি চীনের নিজস্ব ব্যর্থতা প্রমাণ করছে

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ অক্টোবর, ২০২২, ৩:৩০ পিএম

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে শূন্য কোভিড নীতি বাস্তবায়ন চীনা কর্তৃপক্ষের নেশায় পরিণত হয়েছে, যা বেইজিংকে পঙ্গু করে দিচ্ছে। কট্টর এই নীতি শুধুমাত্র চীনের অর্থনীতিতে নয়, আন্তর্জাতিকভাবেও গভীর প্রভাব ফেলছে বলে জিওপলিটিক্যার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।
শূন্য কোভিড নীতি নিয়ে সেন্টার ফর স্ট্র্যাটেজিক অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজ এক নিবন্ধে বলেছে, “চীনের অর্থনীতি ২০০০ সালের গোড়ার দিকের চেয়ে আরও খারাপ হয়ে গেছে। অর্থনৈতিক স্থবিরতা এখন সমগ্র বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ছে, মুদ্রাস্ফীতিকে ত্বরান্বিত করছে, সরবরাহ চেইন ব্যাহত করছে, চীনে বিদেশি কোম্পানিগুলো সরে আসছে এবং দেশটির গভীর বিচ্ছিন্নতা নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে।”
নিবন্ধে আরও বলা হয়, “অনেক পশ্চিমা বহুজাতিক কোম্পানি চীনে তাদের ভবিষ্যৎ পুনর্মূল্যায়ন করছে। অনেকে চীনে নতুন করে সক্ষমতা বাড়ানো বাদ দিয়েছে, কেউ কেউ উৎপাদন ব্যবস্থা চীন থেকে সরিয়ে নেওয়া শুরু করেছে।”
চীনভিত্তিক একটি থিঙ্ক-ট্যাঙ্ক শি জিনপিং সরকারের অধীনে জিরো-কোভিড নীতিতে পরিবর্তনের আহ্বান জানিয়ে বলছে, এই নীতি বাণিজ্য ও ব্যবসায় ব্যাপক ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে। ‘অ্যানবাউন্ড রিসার্চ সেন্টার’র উদ্ধৃতি দিয়ে বেশ কয়েকটি সংবাদ সংস্থা বলছে, শহরগুলো পর্যায়ক্রমে বন্ধ এবং বাণিজ্য, ভ্রমণ ও শিল্প কার্যক্রম ব্যাহত হয়ে অর্থনীতিকে ধীর করে দিচ্ছে।
অন্যদিকে মহামারী বিধিনিষেধ শিথিল করার পরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান এবং ইউরোপের অর্থনীতিগুলো আগের অবস্থায় ফিরছিল। পর্যবেক্ষকরা বলছেন, চীনের একটি থিঙ্ক-ট্যাঙ্কের পক্ষে চীনের কমিউনিস্ট পার্টি এবং এর শীর্ষ নেতার নীতির সঙ্গে প্রকাশ্যে দ্বিমত পোষণ করার ঘটনা বিরল।
এমনকি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও চীনকে তার জিরো-কোভিড নীতির বিরুদ্ধে সতর্ক করেছে। এ বছরের মে মাসে সংস্থাটি বলেছে, চীনের এই নীতি যুগপৎ নয়।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রোস আধানাম গ্র্যাব্রিয়াসুস বলেন, “যখন আমরা শূন্য কোভিড নীতি নিয় কথা বলি…ভাইরাসের আচরণ বিবেচনা করে এবং ভবিষ্যতে আমরা কী প্রত্যাশা করছি, সেই হিসাবে আমি মনে করি না যে, এটি টেকসই।”

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চীন


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ