Inqilab Logo

শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯, ১২ রজব ১৪৪৪ হিজিরী
শিরোনাম

মনোবল হারাচ্ছে ইউক্রেনীয় সেনারা

খেরসনে প্রতিদিন প্রায় ২০০ সেনার মৃত্যু পাল্টা আক্রমণ ঠেকাতে প্রতিরক্ষা শক্তিশালী করছে রুশ সেনা ‘ডার্টি বোম্ব’ ফাটিয়ে মস্কোর ঘাড়ে দোষ চাপাতে চায় কিয়েভ পারমাণবিক অস্ত্রের অধিকারী হত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ অক্টোবর, ২০২২, ১২:০০ এএম

ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনী প্রতিদিন খেরসন ফ্রন্টে তাদের শত শত সৈনিককে হারাচ্ছে। সেখানকার ডেপুটি গভর্নর কিরিল স্ট্রেমাসভ সোমবার চ্যানেল ওয়ান টিভি সম্প্রচারের সময় এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, খেরসনের কাছে অবস্থানরত ইউক্রেনীয় সেনারা মনোবল হারাচ্ছে, আক্রমণে যেতে রাজি নয়।

‘ইউক্রেনীয় সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা যুদ্ধে যেতে চায় না, কারণ তারা ক্রমাগত ভাড়াটে সেনা এবং ইউক্রেনীয় নাৎসি উভয়ের দলেরই শত শত সদস্যের মৃত্যু দেখতে পায়। প্রতিদিন তাদের প্রায় ২০০ জন সেনা নিহত হচ্ছে,’ স্ট্রেমাসভ বলেন। স্ট্রেমাসভ আরও উল্লেখ করেছেন যে, খেরসন দিক থেকে লাইন দখল করার সমস্ত ইউক্রেনীয় প্রচেষ্টা নিষ্ফল ছিল। ‘যারা আজ খেরসন অঞ্চলে আসতে ইচ্ছুক, অনুশীলনে দেখা গেছে, তারা সেখানে থাকা লাইনগুলিকে ব্যর্থভাবে ভেদ করার চেষ্টা করছে,’ তিনি যোগ করেছেন।

খেরসন অঞ্চলের ভারপ্রাপ্ত গভর্নর ভøাদিমির সালদো এর আগে ঘোষণা করেছিলেন যে, খেরসন অঞ্চলের ডিনিপার নদীর ডান তীরে বসবাসকারী বেসামরিক নাগরিকদের বন্যার হুমকির কারণে এর বাম তীরে সরিয়ে নেয়া হবে, যা কাখোভকায় জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রে ইউক্রেনীয় সামরিক হামলার কারণে শুরু হতে পারে। সালদো সতর্ক করেছিলেন যে, ইউক্রেন নিকোলায়েভ এবং ক্রিভয় রোগের কাছে যথেষ্ট বাহিনী জমা করছে। ভারপ্রাপ্ত গভর্নরের মতে, স্থানীয় বাসিন্দাদের স্থানান্তরিত করার সিদ্ধান্তটি ব্যাপক প্রতিরক্ষামূলক দুর্গ নির্মাণের কারণেও হয়েছিল।

পাল্টা আক্রমণ ঠেকাতে প্রতিরক্ষা শক্তিশালী করছে রুশ সেনা : ইউক্রেনের সম্ভাব্য পাল্টা আক্রমণের মধ্যে অধিকৃত লুহানস্ক অঞ্চলে রাশিয়া তার প্রতিরক্ষা শক্তিশালী করার জন্য একটি বড় প্রকল্প শুরু করছে। ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সোমবার এ দাবি করেছে। সর্বশেষ গোয়েন্দা আপডেটে, প্রতিরক্ষা প্রধানরা বলছেন, ওয়াগনার গ্রুপের প্রধান ইয়েভজেনি প্রিগোজিন একটি অনলাইন পোস্টে দাবি করেছেন যে, তার ইঞ্জিনিয়ারিং দল লুহানস্কে একটি সুরক্ষিত প্রতিরক্ষা লাইন তৈরি করছে। ওয়াগনার গ্রুপ হল একটি বেসরকারী সামরিক কোম্পানী যেটি সরকারের সাথে যোগাযোগ সহ একটি রাশিয়ান ভাড়াটে সংস্থা হিসাবে কাজ করে। তবে ক্রেমলিন এ দাবি অস্বীকার করে আসছে।

ইউক্রেনের স্যাটেলাইট চিত্রগুলোতে ইউক্রেনের পূর্বে ওব্লাস্টে ক্রেমিনার দক্ষিণ-পূর্বে নবনির্মিত অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক প্রতিরক্ষা এবং ট্রেঞ্চ সিস্টেমের একটি অংশ দেখা গেছে বলে মন্ত্রণালয় টুইট করেছে। তারা লিখেছে, ‘পরিকল্পনাগুলো যদি প্রিগোজিনের দাবির মতো ব্যাপক হয়, তাহলে আংশিকভাবে ২০১৫ সালের নিয়ন্ত্রণ রেখা অনুসরণ করে সম্ভবত সিভারস্কি ডোনেৎস্ক নদীকে প্রতিরক্ষামূলক অঞ্চলে একীভূত করা হচ্ছে। ‘প্রকল্পটি পরামর্শ দেয় যে, রাশিয়া বর্তমান ফ্রন্টলাইনের পিছনে গভীরভাবে প্রতিরক্ষা প্রস্তুত করার জন্য একটি উল্লেখযোগ্য প্রচেষ্টা করছে, সম্ভবত কোনও দ্রুত ইউক্রেনীয় পাল্টা আক্রমণকে বাধা দিতে পারে,’ এতে যোগ করা হয়েছে। এদিকে, ইউক্রেনের রাষ্ট্রীয় বিদ্যুৎ সরবরাহকারী ইউক্রেনারগো বলেছেন, শনিবারের রুশ হামলায় দেশের পশ্চিমে তার সিস্টেমের সবচেয়ে বিধ্বংসী ক্ষতি হয়েছে। রাজধানী কিয়েভ সহ ইউক্রেনের ২৪টি অঞ্চলের মধ্যে দশটি এবং ১৫ লাখ লোক এতে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

‘ডার্টি বোম্ব’ ফাটিয়ে মস্কোর ঘাড়ে দোষ চাপাতে চায় কিয়েভ : ইউক্রেন অভিযানে ব্যাপক ধ্বংসাত্মক অস্ত্র ব্যবহার করার অভিযোগে রাশিয়াকে দোষারোপ করতে কিয়েভ সরকার একটি কম ক্ষমতা সম্পন্ন পারমাণবিক বোমা বিস্ফোরণের পরিকল্পনা করেছে, যা ডার্টি বোম্ব নামে পরিচিত। রাশিয়ান সেনাবাহিনীর বিকিরণ, রাসায়নিক ও জৈবিক সুরক্ষা বাহিনীর প্রধান লেফটেন্যান্ট-জেনারেল ইগর কিরিলোভ সোমবার এ তথ্য জানিয়েছেন।

‘প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে প্রমাণ রয়েছে যে, কিয়েভ সরকার একটি তথাকথিত নোংরা বোমা বা একটি কম ক্ষমতা সম্পন্ন পারমাণবিক ডিভাইসের বিস্ফোরণ জড়িত একটি উস্কানির পরিকল্পনা করছে। উস্কানির উদ্দেশ্য হল রাশিয়াকে ইউক্রেনের গণবিধ্বংসী অস্ত্র ব্যবহার করার জন্য অভিযুক্ত করা। অপারেশন থিয়েটার, এইভাবে মস্কোর প্রতি আস্থা ক্ষুণ্ন করার লক্ষ্যে বিশ্বজুড়ে একটি বড় রাশিয়ান বিরোধী প্রচারণা শুরু করা হয়েছে,’ তিনি বলেছিলেন।
কিরিলোভ স্মরণ করেন যে, ১৯ ফেব্রুয়ারী মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোাদিমির জেলেনস্কি ইউক্রেনের পারমাণবিক অবস্থা পুনরুদ্ধার করার তার অভিপ্রায় ঘোষণা করেছিলেন। ‘এটাও লক্ষণীয় যে বিশেষ সামরিক অভিযানের সময় জেলেনস্কি বারবার ন্যাটো দেশগুলিকে রাশিয়ায় হামলা চালানোর আহ্বান জানিয়েছিল,’ কিরিলোভ বলেছিলেন। উপরন্তু, তিনি স্মরণ করেন যে, ২২ অক্টোবর কানাডিয়ান টেলিভিশন চ্যানেলের সাথে একটি সাক্ষাতকারে জেলেনস্কি বিশ্বকে ক্রেমলিনে হামলার মোকাবিলা করার আহ্বান জানিয়েছিলেন যদি রাশিয়া ব্যাঙ্কোভায়া স্ট্রিটে ‘সিদ্ধান্ত গ্রহণ কেন্দ্রে’ আঘাত করে, যেখানে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের কার্যালয় অবস্থিত।

পারমাণবিক অস্ত্রের অধিকারী হতে চায় ইউক্রেন, উদ্বিগ্ন রাশিয়া : রাশিয়া পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের সম্ভাবনা নিয়ে পশ্চিমা বক্তব্যকে অত্যন্ত উদ্বেগজনক বলে মনে করছে, রাশিয়ার বিদেশী গোয়েন্দা পরিষেবা এসভিআর-এর পরিচালক সের্গেই নারিশকিন সোমবার গণমাধ্যমকে বলেছেন। রাশিয়ান হিস্টোরিক্যাল সোসাইটির চেয়ারম্যান নারিশকিন বলেন, ‘আমি পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের সম্ভাবনা নিয়ে পশ্চিমা বক্তব্যকে অত্যন্ত উদ্বেগজনক বলে মনে করি। এটা অনুমিত।’ তিনি ইঙ্গিত করেছেন যে, বিশ্বের এমন পরিস্থিতির অনুমতি দেয়া উচিত নয় যেখানে কিয়েভের পারমাণবিক অস্ত্র থাকবে।

‘বর্তমান কিয়েভ সরকার যে, পারমাণবিক অস্ত্রের অধিকারী হতে চায় তা তারা বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশ করেছে। যেদিন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি মিউনিখে একটি নিরাপত্তা সম্মেলনে বক্তৃতা করেছিলেন, পরমাণু অস্ত্রের অধিকারী হওয়ার তার উচ্চাকাঙ্খা তখনই স্পষ্ট ছিল। বিশ্বের এটা ঘটতে দেয়া উচিত নয়,’ নারিশকিন বলেছিলেন। রাশিয়ার বিদেশী গোয়েন্দা প্রধান রোববার রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সের্গেই শোইগু এবং তুরস্ক, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্সে তার সমকক্ষদের মধ্যে কথোপকথনের কথা স্মরণ করেছেন। শোইগু তার সহকর্মীদের কাছে একটি তথাকথিত ‘নোংরা বোমা’র বিষয়ে ইউক্রেনের সম্ভাব্য উসকানি সম্পর্কে রাশিয়ার উদ্বেগ জানিয়েছিলেন। শুক্রবার এবং রোববার, শোইগু পেন্টাগনের প্রধান লয়েড অস্টিনের সাথে ফোনে কথা বলেছেন। সূত্র : ইভনিং স্ট্যান্ডার্ড, তাস, রয়টার্স, এপি।



 

Show all comments
  • Asad Bin Zul Hossain ২৫ অক্টোবর, ২০২২, ৭:০২ এএম says : 0
    রাশিয়ার উচিৎ হবে ইউক্রেনে হামলার ক্ষেত্রে আমেরিকার আফগান ইরাক নীতি অনুসরণ করা।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Abdul Karim ২৬ অক্টোবর, ২০২২, ৮:৪১ এএম says : 0
    ইহুদী নেতা জেলেস্কী এই জন্য
    Total Reply(0) Reply
  • Harun Ur Rashid ২৫ অক্টোবর, ২০২২, ৮:১৮ এএম says : 0
    Americans like to see people will die like babui pakhi.Then they will sit for meeting,voting,table talking,arms supplying,flying one desh to another,steeling gold,oil,girls etc.
    Total Reply(0) Reply
  • Rezaul Karim ২৫ অক্টোবর, ২০২২, ৭:০৪ এএম says : 0
    আমরা দেখেছি আমেরিকার কিভাবে ইরাকের বেসামরিক স্থাপনা গুড়িয়ে দিয়েছিল ব্যাপক আকারে ধ্বংস লিলা চালিয়েছিলো এবার ঠিক আমেরিকার কারনে ইউক্রেনে রাশিয়া হামলা পরিচালনা করতেছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Biplob Chandra Chakraborty ২৫ অক্টোবর, ২০২২, ৭:০৪ এএম says : 0
    ইউক্রেন এখন বিশ্বে অশান্তির অন্যতম কারণ। রাশিয়ার আগ্রাসন নৈতিকভাবে সমর্থন যোগ্য নয়। তবে, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের মতো কোনো প্রেসিডেন্ট পৃথিবীতে যেন আর নির্বাচিত না হয়। পশ্চিমারা যেভাবে ইরাক, লিবিয়া, সিরিয়াকে ধ্বংস করে দিয়েছে একই পরিণতি অপেক্ষা করছে ইউক্রেনের জন্য। আমরা শান্তি চাই, দলাদলি বা যুদ্ধ নয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdur rob ২৫ অক্টোবর, ২০২২, ১:৪০ পিএম says : 4
    আমি বুঝিনা আমাদের দেশের অধিকাংশ লোক রাশিয়াকে সমর্থন করার কারণ কি অথচ ইউক্রেন একটি মজলুম রাষ্ট্র আরে ..বাচ্চারা বরং তোমরা বল রাশিয়া আমেরিকা উভয় ধ্বংস হোক এই যুদ্ধে
    Total Reply(1) Reply
    • osman ২৮ অক্টোবর, ২০২২, ৬:৫৪ পিএম says : 0
      karon ai ucrain iraq afganistan a hajar hajar mojlim moslimke horta korese amirecar sater jodde ongso nea
  • Shariful Islam ২৫ অক্টোবর, ২০২২, ৭:০২ এএম says : 0
    ইউক্রেনের সাথে মুসলমানদের ঐতিহাসিক কোন শত্রুতা নেই তারপরও ইউক্রেনের উপর এই হামলায় মুসলিমরা কতো খুশি, এরকম হামলা যদি ইসরাইলের ওপর হত তাহলে মুসলিমরা কতই না খুশি হত।
    Total Reply(0) Reply
  • Shahed Chowdhury ২৫ অক্টোবর, ২০২২, ৭:০৪ এএম says : 0
    খুবই দুঃখজনক!! একটা স্বাধীন দেশকে এভাবে ধ্বংস করে দেওয়া?!!
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউক্রেন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ