Inqilab Logo

শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১৩ মাঘ ১৪২৯, ০৪ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

সাংবাদিকরা হয় বাংলা বোঝেন না অথবা ইচ্ছা করেই মিথ্যাচার করেন : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ অক্টোবর, ২০২২, ১১:৩৩ এএম

সাংবাদিকদের অনেকে যুক্তরাষ্ট্রকে সরকারের শত্রু বানাতে প্রচারণা চালিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। গতকাল শনিবার গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় স্থানীয় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ অভিযোগ করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সাংবাদিকরা হয় বাংলা বোঝেন না অথবা ইচ্ছা করেই মিথ্যা অপপ্রচার চালান। ’

উল্লেখ্য, গত বুধবার এক অনুষ্ঠানে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক মীজানুর রহমান বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি যুদ্ধের অর্থনীতি।

যুদ্ধ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি চলবে না। এ জন্য বিশ্বের কোথাও না কোথাও তারা যুদ্ধ-বিগ্রহ চালিয়ে যায়।
ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। পরে অধ্যাপক মীজানুর রহমানের বক্তব্য বিভিন্ন গণমাধ্যমে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে প্রকাশিত ও প্রচারিত হয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ প্রসঙ্গে শনিবার সাংবাদিকদের বলেন, 'গত ২৬ অক্টোবর প্রেস ক্লাবে কলামিস্টদের এক অনুষ্ঠানে আমি যে বক্তব্য দিয়েছি ১৭টি গণমাধ্যম তা নিয়ে যে হেড লাইন করেছে তার সঙ্গে আমার বক্তব্যের কোনো ধরনের সম্পর্ক নেই। সেখানে আমি নাকি ‘আমেরিকাকে যুদ্ধবাজ’ বলেছি। ১৭টি গণমাধ্যমই মিথ্যা, বানোয়াট ও কাল্পনিক তথ্য দিয়েছে।

সাংবাদিকদের ‘দুর্বল’ ও ‘অপরিপক্ব’ উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের দেশে সাংবাদিকতা যারা করেন তাদের মধ্যে দুর্বলতা আছে। তাদের পরিপক্বতা দরকার। সাংবাদিকরা যারা এটা করেছেন তাদের জন্য এটা লজ্জার বিষয়। আর আপনাদের (গোপালগঞ্জের সাংবাদিকদের) জন্য দুঃখের বিষয়। আপনাদের সহকর্মীরা এ ধরনের বানোয়াট কথা বলেন। '

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘সাংবাদিকরা হয় বাংলা বোঝেন না অথবা ইচ্ছা করে এ ধরনের মিথ্যা প্রচারণা করেছেন উদ্দেশ্যমূলকভাবে। মিথ্যা প্রচারণার ফলে যেটা অসুবিধা হয়েছে তা হলো যুক্তরাষ্ট্র সরকার মনে করবে আমরা তাদের শত্রু। যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে শত্রু বানানোর জন্য প্রচারণা চালানো হয়েছে। '

বিষয়টি খুবই দুঃখজনক ও লজ্জাজনক উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, 'এ জন্য সাংবাদিকদের গবেষণা করা উচিত। এর আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাবেক রাষ্ট্রদূতদের নিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান। পরে তারা বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন।

এ সময় অ্যাম্বাসাডর-অ্যাট-লার্জ মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন ও পররাষ্ট্রসচিব (সিনিয়র সচিব) মাসুদ বিন মোমেন, অ্যাসোসিয়েশন অব ফরমার বিসিএস অ্যাম্বাসাডসের (এওফা) প্রেসিডেন্ট শমসের মবিন চৌধুরী, সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হাসান এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারাসহ গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মুন্সি আতিয়ার রহমান, জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা, টুঙ্গিপাড়া পৌরসভার মেয়র শেখ তোজাম্মেল হক টুটুল উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ