Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

প্রচারণায় ব্যস্ত মেয়র প্রার্থীরা সংঘাতের শঙ্কা কাউন্সিলর নিয়ে

| প্রকাশের সময় : ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

নারায়ণগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার : নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান বুধবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মহানগরের বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ করেন।  আইভী বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৪ নং ওয়ার্ডের আমিরাবাদ, নবীগঞ্জ বাজার, কাইতাখালী, নোয়াদ্দা, বক্তারকান্দি, দেউলি এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন এবং নৌকায় ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই, আওয়ামী লীগ নেতা আরজু রহমান ভূইয়া, খুরশীদ আলম উপস্থিত ছিলেন।
বিকালে ৯ নং ওয়ার্ডের জালকুড়ি বাসস্ট্যান্ড থেকে প্রধান সড়কে নেতাকর্মী নিয়ে গণসংযোগ করেছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান। বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ, নরসিংদী জেলা বিএনপির সভাপতি খায়রুল কবির খোকন, সাবেক প্রতিমন্ত্রী লুৎফর রহমান আজাদ, সাবেক এমপি নাজিমুদ্দিন আলম, মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, আলী নেওয়াজ মো. খৈয়াম ও সাবেক এমপি আতাউর রহমান খান আ্গংুর, ডেমরা থানা বিএনপির সভাপতি নবী উল্লাহ নবী, ওয়ার্ড বিএনপি সভাপতি বাবুল আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক রফিক দেওয়ান, থানা  যুবদলের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল প্রধান, বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাজেদুল ইসলামসহ জাতীয় ও স্থানীয় নেতারা এই প্রচারণায় অংশ নেন। প্রচারণার শুরু থেকেই বিভিন্ন স্লোগানে নেতাকর্মীদের সরগরম রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন। দুপুরে নাসিকের ১১, ১২ ও ১৩ নং ওয়ার্ডে মিলনের স্লোগানে প্রচারণা করে ভোট চেয়েছেন সাখাওয়াত হোসেন খান।  এ সময় নেতাকর্মীরাও তার সঙ্গে বিভিন্ন স্লোগানের তালে তালে ভোটারদের কাছে ভোট চান।
কাউন্সিলর নিয়ে সংঘাতের শঙ্কা
নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীদের কর্মী সমর্থকদের মাঝে দ্বন্দ্ব-সংঘাতের সম্ভাবনা না থাকলেও কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মাঝে সংঘাতের আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন নগরীর বিশিষ্টজনরা। ইতোমধ্যে প্রতিপক্ষ প্রার্থীর সমর্থকদের উপর চড়াও হচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩ ওয়ার্ডের জনৈক কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকরা। আর তাই একের পর এক রিটার্নিং কর্মকর্তার নিকট অভিযোগ পড়ছে তার বিরুদ্ধে।
গত ১২ ডিসেম্বর নির্বচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলেন একই ওয়ার্ডের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। ঠিক তার এক দিন পরেই (১৩ ডিসেম্বর) রবিউল হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন অপর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী শাহ ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজ। শহরের হাজীগঞ্জ এলাকায় বরফকলে জনৈক কাউন্সিলরের নির্বাচনি ক্যাম্প হামলা ও ভাংচুর করা হয়। কোন কোন প্রার্থী অপর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সমর্থকদের প্রাণনাশের হুমকিও দিচ্ছেন বলে অভিযোগও করেছেন। এই পরিস্থিতিতে নগরীর বিশিষ্টজন ও সাধারণ ভোটারদের মাঝে আতংক দানা বাঁধছে।
গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার নির্বাচন
নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) নির্বাচনকে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার নির্বাচন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি নারায়ণগঞ্জবাসীর উদ্দেশে বলেছেন, বাংলাদেশের অধিকার বঞ্চিত মানুষের প্রতিনিধি হয়ে আজকে আমরা এই নির্বাচনে আপনাদের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে শরিক হতে এসেছি। আপনাদের জন্য বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান এখন একটি প্রতীক। এই প্রতীক অন্যায়ের বিরুদ্ধে, আপনাদের অধিকার আদায়ের প্রতীক।
মঙ্গলবার (১৩ ডিসেম্বর) নারায়ণগঞ্জের বন্দরে নাসিক নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খানের প্রতীক ধানের শীষের পক্ষে প্রচারণাকালে তিনি এ কথা বলেন। ফখরুল বলেন, এই নির্বাচন আপনাদের গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার নির্বাচন। যেই নারায়ণগঞ্জ বিগত দিনে আন্দোলন-সংগ্রামে সরকারের বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিল, আমরা দেখতে চাই এই নির্বাচনে এই নারায়ণগঞ্জ কী সিদ্ধান্ত নেয়।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, আপনারা দেখছেন এখন আমাদের নেতাকর্মীরা রাতে ঘুমাতে পারে না। তাদের রাতের আধারে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। এই অত্যাচারীদের বিরুদ্ধে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী সাখাওয়াতের পক্ষে আপনাদের রায় আমরা দেখতে চাই।
প্রচারণায় সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, আপনারা দেখেছেন বিগত ১৩ বছরে উনি (আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী) আপনাদের সমস্যা সমাধান করতে পারেননি, আমি নির্বাচিত হলে আপনাদের সব সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবো।
এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, চেয়ারপারসনের আরেক উপদেষ্টা ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, যুগ্ম-মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, যুগ্ম-মহাসচিব ও বরিশালের সাবেক মেয়র মজিবর রহমান সারোয়ার, জাতীয় গণতান্ত্রিক পাটির (জাগপা) সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপিসাধারণ সম্পাদক কাজী মনিরুজ্জামান, সাবেক সংসদ সদস্য আবুল কালাম, কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য ও যুবদলের সহ-অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান দিপু ভুইয়া, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাহাঙ্গীর ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান হাফিজ প্রমুখ।
গণতন্ত্রে সরকারের আস্থা নেই
গণতন্ত্রের প্রতি বর্তমান সরকারের আস্থা নেই অভিযোগ করে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সেনা বাহিনী মোতায়নের দাবী করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়রম্যান মেজর (অব.) হাফিজুর রহমান। গতকাল বুধবার সকাল ১০ টায় নগরীর পুরান কোর্ট এলাকায় বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াতের নির্বাচনী ক্যাম্পে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে ওই কথা বলেন তিনি।
এ সময় আরও উপস্থিতি ছিলেন, কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম ফজলুল হক মিলন, মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আব্দুস সালাম, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. তৈমূর আলম খন্দকার, নির্বাহি কমিটির সদস্য মু. গিয়াসউদ্দিন, অ্যাড. আবুল কালাম ও মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত।
মুফতী মাসুম বিল্লাহ হাতপাখা প্রতীক নিয়ে প্রচারণা
গতকাল পীর সাহেব চরমোনাই মনোনীত ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মেয়র প্রার্থী গতকাল মুফতী মাসুম বিল্লাহ হাতপাখা প্রতীকসহ বিকেল থেকে নেতা কর্মীদের নিয়ে বন্দর শাখার শান্তিনগর, লাক্ষার চর, উত্তরপাড়া, ইসলামপুর ও মদনগঞ্জ এলাকায় গণসংযোগ করেন। এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন দলের নারায়ণগঞ্জ শহর শাখার জয়েন্ট সেক্রেটারি মুহা. আব্দুর রহমান প্রধান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস ছোবহান, ১৯নং ওয়ার্ড সভাপতি মুহা. ইসমাঈল হোসেনসহ  ইশা ছাত্র আন্দোলন, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন, ইসলামী যুব আন্দোলনের ওয়ার্ডের নেতৃবৃন্দ।
গোল টেবিল বৈঠক : কাউন্সিলরদের নিয়ে ‘শঙ্কা’ প্রকাশ
নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীদের কর্মী সমর্থকদের মাঝে দ্বন্দ্ব-সংঘাতের সম্ভাবনা না থাকলেও কাউন্সিলর প্রার্থীদের মাঝে সংঘাতের আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন নগরীর বিশিষ্টজনরা। গতকাল বুধবার নারায়ণগঞ্জ ক্লাব মিলনায়তনে ‘আশা-শঙ্কা’ শীর্ষক দৈনিক প্রথম আলো’র গোল টেবিল বৈঠকে ওই আশঙ্কার কথা প্রকাশ করেন তারা।
গোল টেবিল বৈঠকে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রধান দুই প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী, বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী অ্যাড. সাখাওয়াতসহ অন্যান্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থী উপস্থিত ছিলেন।
প্রথম আলো’র যুগ্ম-সম্পাদক সোহরাব হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত গোল টেবিল বৈঠকটি বেলা ১১ টায় শুরু হয়ে শেষ হয় দুপুর ১ টায়। এতে প্রার্থীদের পাশাপাশি নগরীর বিশিষ্টজনরা উপস্থিত ছিলেন।
তাদের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সভাপতি এবি সিদ্দিক বলেন, নারায়ণগঞ্জে গণতন্ত্রের সুবাতাস বইছে। এ বাতাস সারা দেশে ছড়িয়ে যাবে। সংস্কৃতিকর্মী রফিউর রাব্বি বলেন, মানুষের উন্নয়ন রেখে গণতন্ত্রের কথা বলা হচ্ছে। নির্বাচনের এ চিত্র স্থানীয় উন্নয়নের বড় প্রতিবন্ধকতা।
কাউন্সিলর প্রার্থীর বিরুদ্ধে হত্যার হুমকীসহ নানা অভিযোগ
১৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী কামরুল হাসান মুন্নার বিরুদ্ধে হত্যার হুমকীসহ নানা অভিযোগ তুলেছেন তারই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কবীর হোসন। গতকাল নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাব এ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে মুন্নার বিরুদ্ধে ওই অভিযোগ উপস্থাপন করা হয়। কবীর হোসেন বলেন, কাউন্সিলর প্রার্থী হওয়ার পর থেকে কামরুল হাসান মুন্না আমাকে হত্যার হুমকীসহ আমার কর্মীদের নানা হুমকী দিয়ে আসছে। আমি যদি ‘খুন’ হই, তার জন্য দায়ী থাকবে মুন্না ও তার বোনের স্বামী শাহজাহান। তিনি বলেন, আমার এবং আমার কর্মীদের কোন রকম ক্ষয়ক্ষতি হলে তার জন্য সম্পূর্ণভাবে দায়ী থাকবেন কাউন্সিলর প্রার্থী মুন্না। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে কবীর হোসেন জানান, আমি এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট থানা ও নির্বাচন কমিশনে লিখিত অভিযোগ করবো।
সিদ্ধিরগঞ্জে সাখাওয়াতের গণসংযোগ
সিদ্ধিরগঞ্জ উপজেলা সংবাদদাতা :বুধবার বিকেলে নগরীর ৯ ওয়ার্ডের সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি বাসস্ট্যান্ড থেকে প্রধান সড়কে কয়েকশ’ নেতা-কর্মী নিয়ে গণসংযোগ করেছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান। বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ, নরসিংদী জেলা বিএনপির সভাপতি খায়রুল কবির খোকন, সাবেক প্রতিমন্ত্রী লুৎফর রহমান আজাদ, সাবেক এমপি নাজিমুদ্দিন আলম, মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, আলী নেওয়াজ মো: খৈয়াম ও সাবেক এমপি আতাউর রহমান খান আঙ্গুর, ডেমরা থানা বিএনপির সভাপতি নবী উল্লাহ নবী, ওয়ার্ড বিএনপি সভাপতি বাবুল আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক রফিক দেওয়ান, থানা  যুবদলের সাধারন সম্পাদক জুয়েল প্রধান, বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাজেদুল ইসলামসহ জাতীয় ও স্থানীয় নেতারা এই প্রচারনায় অংশ নেন। ধানের শীষের শ্লোগানে এসময় মুখরিত হয়ে পুরো এলাকা। শত শত নারী পুরুষ সড়কের পাশে দাড়িয়ে প্রচারনাকারীদের হাত তালি দিয়ে স্বাগত জানান।
সাখাওয়াতের পক্ষে কেন্দ্রীয় নেতাদের বিরামহীন প্রচারণা
সাখাওয়াতের পক্ষে সিদ্ধিরগঞ্জে কেন্দ্রিয় নেতাদের প্রচারনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে সিদ্ধিরগঞ্জের ১০টি ওয়ার্ড এলাকা।
এ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল ও এ,জেড,এম জাহিদ হোসেন
ভিপি সাইফুল
বগুড়া শহর বিএনপির সভাপতি মাহবুবুর রহমান বকুল, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক পরিমল চন্দ্র দাশ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মেহেদী হাসান হিমু, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আরাফাতুর রহমান আপেল, শহর যুবদলের সভাপতি মাসুদ রানা মাসুদ, পৌর বিএনপির সভাপতি আহসান বিপ্লব রহিম ও যুবদল নেতা এসএম আরিফ প্রমুখ।
এছাড়া নাজিমুদ্দিন আলম  নির্বাহী কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম সিকদার,সাইফুল ইসলাম শিশির, রনলক ইসলাম টিপু, আবুল খায়ের খাজা, আবুল হোসেন, ছাত্র দলের মামুন হাসানসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা।
মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস, সাধারন সম্পাদক সুলতানা আহম্মেদ এর নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক মহিলা দল নেত্রী নগরীর ১ ও ২ নং ওয়ার্ডে ঘরে গিয়ে ধানের শীষ প্রতীকে ভোট চেয়েছেন ।
নির্বাচনে সিদ্ধিরগঞ্জের ১০ ওয়ার্ডের প্রধান সমন্বয়ক বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ বলেছেন, সিদ্ধিরগঞ্জের ১০ টি ওয়ার্ডে প্রতিদিনই কেন্দ্রিয় নেতাদের সমন্বয়ে গঠিত প্রচার টিম ছাড়াও জাতীয় নেতারা বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করছেন।
শাখাওয়াত আইভীর পাল্টাপাল্টি অভিযোগ
সাখাওয়াতের অভিযোগ আইভী তেমন কোনো উন্নয়ন করেনি, অপরদিকে আইভীর পাল্টা অভিযোগ সাখাওয়াত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে স্টান্ডবাজির আশ্রয় নিচ্ছেন। গতকাল (বুধবার) সকালে নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে প্রথম আলো আয়োজিত ‘নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন: আশা ও শঙ্কা’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে তারা একে অপরের প্রতি এভাবেই অভিযোগ পাল্টা অভিযোগ করেন।
তবে বৈঠকের এক পর্যায় এসে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মেয়র প্রার্থীরা নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হোক- সেই দাবির পক্ষেই মতামত ব্যক্ত করেছেন।
এদিকে এবারের নির্বাচনে জয়ী হলে নির্বাচিতরা কী করবেন? সে ব্যাপারে নিজ নিজ ভাবনা তুলে ধরেছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা।গোলটেবিল বৈঠকে সরকার দলীয় মেয়র প্রার্থী আইভী বলেন, আমি কোনো সন্ত্রাসী পালন করি না। দলবাজি আমার কাছে প্রশ্রয় পায় না। নির্বাচন করতে এসে আমি চাই না মেয়র প্রার্থীদের সাথে আমার সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যাক।
তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন যাতে এ নির্বাচনে কোনো ভাবেই সরকারকে প্রশ্নবিদ্ধ না করেন। তারা চাইলে এনসিসি নির্বাচনে যে কোন বাহিনীকে নিয়ে আসতে পারেন।
তিনি আরো বলেন, সবাই প্রশ্ন করে সব দলের কেন্দ্রীয় নেতারা তাদের প্রার্থীকে সমর্থন জানানোর জন্য আসে। আপনার কেন্দ্রীয় নেতারা কই? এসব প্রশ্ন করে তারা কি বোঝাতে চান?এ নির্বাচনকে পেছন থেকে যারা কলঙ্কিত করতে চাচ্ছেন তাদের নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করে আইভী বলেন, পরিবার তন্ত্রের নামে আমার পরিবার কখনোই মানুষের উপর জুলুম করে নাই।তিনি ভোটারদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমার চলমান কাজগুলোকে শেষ করার জন্য ভোটারদের কাছে সুযোগ চাচ্ছি।
অপরদিকে বিএনপির মেয়র প্রার্থী অ্যাড. সাখাওয়াত দাবি করেন তার কর্মী সমর্থকদের বৈধ অস্ত্র দিয়ে ভয়ভীতি ও হুমকি দেয়া হচ্ছে।এছাড়া নির্বাচনে কোন মানুষের গায়ে যাতে একটি টোকাও না লাগে এমন নির্বাচনী পরিবেশ সৃষ্টির জন্য তিনি দাবি রাখনে নির্বাচন কমিশনের কাছে।
সাখাওয়াত সেলিনা হায়াৎ আইভীর বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে বলেন,  সিটি করপোরেশন উন্নয়নে কতগুলো তুঘলকি কা- লক্ষ্য করেছি। বিগত সময়ে সিটি কর্পোরেশন ব্যবসা করেছেন। হোল্ডিং ট্যাক্স এবং ট্রেড লাইসেন্স এর টাকা মানুষের কাছ থেকে বেশী আদায় করা হয়েছে। সে সাথে তিনি উদ্যেগের অভাবে অনেক কাজ হয়নি বলে অভিযোগ করেন।
শাখাওয়াত হোসেন খাঁন বলেন, নারায়ণগঞ্জের মানুষ মুষ্টিমেয় সন্ত্রাসের জন্য কলঙ্কিত হয়েছে। যিনি নগর পিতা হবেন, দল-মত-বর্ণ-নির্বিশেষে নাগরিক ঐক্য গড়ে তুলবেন।নারায়ণগঞ্জের দুর্নাম মুছে ফেলে সত্য, সুন্দর ও সুস্থ নগর হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সচেষ্ট হবেন বলেও তিনি জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নাসিক নির্বাচন

২৩ ডিসেম্বর, ২০১৬
২২ ডিসেম্বর, ২০১৬

আরও
আরও পড়ুন