Inqilab Logo

রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৫ মাঘ ১৪২৯, ০৬ রজব ১৪৪৪ হিজিরী
শিরোনাম

নাৎসিবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রস্তাবে সায়, ফের জাতিসংঘে রাশিয়ার পাশে ভারত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ নভেম্বর, ২০২২, ৫:০১ পিএম

জাতিসংঘে ‘বন্ধু’ রাশিয়ার আনা প্রস্তাবে সায় দিল ভারত। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে ‘নাৎসিবাদের মহিমান্বিত করার বিরুদ্ধে লড়াই’ শীর্ষক ওই প্রস্তাবের খসড়ার পক্ষে সায় দিয়েছে ১০৫টি দেশ। বিপক্ষে ভোট পড়েছে ৫২টি। ভোটদান থেকে বিরত থেকেছে ১৫টি দেশ। এদিন কমিটির তরফে মোট ৮টি খসড়ায় সম্মতি দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে নাৎসিবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সঙ্গে রয়েছে আদিবাসীদের অধিকার, ডিজিটাল যুগে গোপনীয়তার মতো নানা প্রস্তাব।

সব মিলিয়ে প্রস্তাবগুলির মধ্যে মানবাধিকার সংক্রান্ত ইস্যুর পাশাপাশি শিক্ষার অধিকার, শিশুদের যৌন নিপীড়ন থেকে সুরক্ষার মতো বিষয়গুলি রয়েছে। এর মধ্যেই অন্যতম রাশিয়ার নাৎসি সংক্রান্ত প্রস্তাবটি। ওই প্রস্তাবে নাৎসি আন্দোলন, নব্য নাৎসিবাদ, নাৎসিদের অতীত মহিমাকীর্তন করতে গণ প্রদর্শনীর মতো বিষয়গুলি নিয়ে উদ্বেগ ব্যক্ত করা হয়েছে।

তবে এপ্রসঙ্গে বেশ কয়েকজন প্রতিনিধি দাবি করেছেন, ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রুশ হামলার ‘যৌক্তিকতা’ বোঝাতে মরিয়া মস্কো। তাই এইভাবে নব্য নাৎসির সঙ্গে লড়াইয়ের কথা তোলা হচ্ছে। ইউক্রেনের প্রতিনিধি দাবি করেন, এই প্রস্তাবের সঙ্গে নাৎসিবাদ ও নব্য নাৎসিবাদের সঙ্গে প্রকৃত লড়াইয়ের কোনও সম্পর্ক নেই। একই ভাবে এই প্রস্তাবকে ইউক্রেনের হামলাকে অন্য চেহারা দেয়ার চেষ্টা বলে সমালোচনা করেছে ব্রিটেন, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশগুলি।

উল্লেখ্য, গত অক্টোবরেও জাতিসংঘে রাশিয়ার পাশে দাঁড়াতে দেখা গিয়েছিল ভারতকে। ইউক্রেনে গণভোটের মাধ্যমে চারটি অঞ্চল দখল করার রুশ প্রক্রিয়াকে বেআইনি ঘোষণা করে একটি খসড়া প্রস্তাব পেশ করা হয়েছিল। ভারত-সহ ৩৫টি দেশ সেই প্রস্তাবে ভোটদান থেকে বিরত থাকে। তার আগে আগস্টে জাতিসংঘে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টকে বলতে দেয়ার বিষয়ে এক প্রস্তাবে ভারত সায় দিয়েছিল। তখনই প্রশ্ন উঠেছিল, ভারত কি রাশিয়ার পাশ থেকে সরে যাচ্ছে? বদল আনতে চাইছে বিদেশ নীতিতে? কিন্তু তারপরই পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তরফে জানিয়ে দেয়া হয়, ভারত জেলেনস্কির ভাষণে সম্মতি দিয়েছে বটে। কিন্তু একে মোটেই রাশিয়ার বিরুদ্ধে ভোট বলা যায় না। সূত্র: টাইমস নাউ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ