Inqilab Logo

শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯, ০৫ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

ফুটওভার ব্রিজ নাকি মার্কেট?

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ নভেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম


রাজধানীর নিউমার্কেট একটি জনবহুল এলাকা। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, নিউ সুপার মার্কেট, চন্দ্রিমা মার্কেট, নুরজাহান মার্কেট, গাউছিয়া মার্কেট, নীলক্ষেত বই মার্কেট ও কোচিং সেন্টার থাকায় এসব এলাকায় জনগণের ব্যাপক আসা যাওয়া থাকে সব সময়। তাই সড়কে প্রায় সময় জট লেগেই থাকে। তাছাড়া সড়ক পারাপারে ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় সবাই ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করে থাকে। এতেও সমস্যা। ফুটওভার ব্রিজের নিচ থেকে শুরু করে সিঁড়ি বেয়ে উঠতে ও নামতে এমনকি উপরের প্রায় অর্ধেকেরও বেশি অংশজুড়ে রয়েছে দোকানপাট। এ যেন বণিকদের এলাকায় পরিণত হয়েছে। ফলে স্বল্প দূরত্বের ব্রিজ পারাপারেও অধিক সময় অপচয় হচ্ছে। পথচারীদের এক ধরনের বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে। ফুটওভার ব্রিজের উপর বিভিন্ন ধরনের পণ্য বিক্রি হচ্ছে। বিক্রেতাদের হৈচৈ আর ক্রেতাদের ব্রিজে দাঁড়িয়ে পণ্য কেনাকাটা চলছে তুঙ্গে। ফলে সাধারণ পথচারীদের ধাক্কাধাক্কি করে ব্রিজ পাড়ি দিতে হয়। এভাবে ব্রিজ পারাপারের সময় মাঝে মধ্যে পকেট মারের শিকারও হয় অনেকে। আশা করি, সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ বিষয়টি গুরুত্ব উপলব্ধি করে ফুটওভার ব্রিজ সাধারণ পথচারীদের জন্য উন্মুক্ত করে দেবেন।

মো. আকিব হোসাইন
শিক্ষার্থী, ঢাকা কলেজ।

 

ডাক্তারদের অবহেলা
প্রতিদিন শতশত মানুষ সেবা নেওয়ার জন্য দৌড়াচ্ছে হাসপাতালে। এদের অধিকাংশই মধ্যম ও নিম্নআয়ের মানুষ। সকলের পক্ষে চিকিৎসা সেবা নেওয়ার জন্য উন্নতমানের বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে যাওয়ার সক্ষমতা নেই। তাই তাদেরকে ছুটতে হয় সরকারি হাসপাতালগুলোতেই। কিন্তু সেখানে গিয়ে অনেক সময় মিলছে না রোগীদের সঠিক চিকিৎসা ও যত্ন। কর্তব্যরত কোনো কোনো ডাক্তার রোগী দেখার কাজে গাফিলতি করেন। কিংবা রোগীদের কথা ঠিক মতো না শুনেই ব্যবস্থাপত্র লিখে দেন। তাছাড়া ভর্তি রোগীদের জন্যও পর্যাপ্ত বেড থাকে না। ফলে অনেকেই থাকছেন বেডের পরিবর্তে হাসপাতালের বারান্দায়। অধিকাংশ সময় নিতে হচ্ছে টাকার বিনিময়ে সেবা। এতে বাড়ছে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি। কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আমলে নেওয়ার পাশাপাশি ডাক্তারদের আরো দায়িত্বশীল হওয়ার অনুরোধ করছি।

মোহাম্মদ আল-আমিন
শিক্ষার্থী, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন