Inqilab Logo

সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ১৪ রজব ১৪৪৪ হিজিরী
শিরোনাম

সেই মেসিতেই রক্ষা আর্জেন্টিনার!

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ নভেম্বর, ২০২২, ৩:২৯ এএম
 
মেক্সিকোর বিপক্ষে আর্জেন্টিনার ম্যাচটি তখন দুই তৃতীয়াংশ শেষ।বাচা মরার ম্যাচে তখনও গোলের পায়নি আলবিসেলেস্তেরা।দাত দাত চেপে তৈরী করা মেক্সিকোর রক্ষণ দেয়াল যে খুব দ্রুত ভাঙতে পারবে ডিবালা-ডি মারিয়ারা তারও কোন ইঙ্গিত মিলছিল না।সমর্থকদের মুখে স্পষ্ট হতে শুরু করেছিল চিন্তার ছাপ।জয় না পেলে যে প্রিয় দলের বিদায় নিশ্চিত।দলের এমন কঠিন সময়ে ফের একবার ত্রাতা হয়ে এলেন আর্জেন্টিনার ইতিহাসের সবচেয়ে বড় তারকা লিওনেল আন্দ্রেস মেসি।৬৪ তম মিনিটে ২০ গজের বাইরে থেকে প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডারদের বাধা এড়িয়ে নিলেন দূরপাল্লার শট।বা পায়ের সেই মাপা শটে ততক্ষণ পর্যন্ত দুর্দান্ত খেলা মেক্সিকো গোলরক্ষক ওচোয়াও ছিলেন অসহায়। সর্বোচ্চ চেষ্টা করেও বলের জালে জড়ানো রুখতে পারেননি তিনি। সঙ্গে সঙ্গে উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়ে মাঠে খেলা দেখতে আসা হাজারো আর্জেন্টিনা সমর্থক,স্বস্তি ফিরে খেলোয়াড়দের মাঝে।
 
 পরে এনসো ফের্নান্দেসকে দিয়ে করিয়েছেন একটি গোল।এই তারকা ফরোয়ার্ডের একক নৈপুণ্যে শেষ পর্যন্ত মেক্সিকোকে ২-০ ব্যবধানে হারায় আলবিসেলেস্তেরা।
 
কাতারের লুসাইল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত এই লড়াইটি মেসিদের জন্য ছিল মহাগুরুত্বপূর্ণ এক ম্যাচ।এই ম্যাচে জয় না পেলে কাতার বিশ্বকাপ শেষ হয়ে যেত লাটিন আমেরিকার দেশটির।
 
এদিন ম্যাচের শুরু থেকে আর্জেন্টিনা ছিল আক্রমণাত্মক।পাস,বল পজিশন নিজেদের দখলে রেখে সুযোগ তৈরি করায় মনোযোগ দেয় মেসিরা।প্রথম দশ মিনিটে ৮০ শতাংশ সময়ে বল ছিল আর্জেন্টিনার দখলে।সেই চাপে ৩-৫-২ ফরমেশনে খেলতে নামা মেক্সিকো বল মাঝমাঠ পেরোলেই হয়ে যাচ্ছিল ৫-৩-২। বল দখলে রাখলেও মেক্সিকোর জমাট রক্ষণের সামনে খুব বেশি সুবিধা করতে পারছিলেন না মেসি-ডি মারিয়ারা। তাদের বেশিরভাগ আক্রমণই নিশ্চিদ্র মেক্সিকো অর্ধে গিয়ে খেয়ে হারিয়ে ফেলছিল।
 
৩৫ তম মিনিটে বা প্রান্ত থেকে মেসির ফ্রি কিকে নেওয়া বাঁকানো শট লাফিয়ে ওঠে ঠেকান মেক্সিকোর গোলরক্ষক ওচোয়া। ৪০ তম মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে মেসির বাড়িয়ে দেওয়া লফটেড পাস থেকে হেড নিয়েছিলেন লাউতারো মার্টিনেজ। অল্পের জন্য সেটি লক্ষচ্যুত হয়।
 
এ সময় গোল না পাওয়ার হতাশা আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়দের পেয়ে বসেছিল।নিজেদের বক্সের বাইরে আর্জেন্টিনা ডিফেন্ডার মন্টিয়েল এক দৃষ্টিকটু ফাউল করে বসেন মেক্সিকোর এরিক গুটেরেজকে। হলুদ কার্ড দেখান রেফারি,বাজান ফ্রি কিকের বাশি। ডি বক্সের ঠিক বাইরে থেকে নেওয়া সেই ফ্রি কিকে আলেক্সিস ভেগরা আর্জেন্টিনার সমর্থকদের প্রায় স্তব্ধ করে দিয়েছিলেন। ফ্রি-কিক থেকে তার নেওয়া কার্ল শট দারুণ দক্ষতায় ঠেকান আর্জেন্টিনা গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্টিনেজ।
 
প্রথমার্ধে গোল না পাওয়ায় তাই চাপটা আরো বাড়ে আর্জেন্টিনা দলের উপর।বিরতির পরও প্রথম ১৫ মিনিট খেলার গতি প্রকৃতি ছিল একই।আক্রমণে স্কেলোনির দল,ঠেকাতেই ব্যাস্ত মেক্সিকো।এরপর ৬৪ তম আসে মিনিটে মেসি ম্যাজিক।১-০ গোলে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা গোল খাওয়ার পর মেক্সিকো বেশ কিছু পরিবর্তন এনে সমতা ফেরানোর আশায় ছিল।সেটি আর হয়নি।দ্বিতীয়ার্ধে আর্জেন্টিনার আধিপত্য এতটাই প্রবল ছিল যে এ সময়টাতে মেক্সিকো একটিও অন টার্গেট শট নিতে পারেনি।উল্টো ম্যাচের শেষদিকে এসে হজম করে বসে আরেকটি গোল।৮৬ তম মিনিটে মেসির বাড়ানো বলে বিশ্বকাপে নিজের প্রথম গোল করেন বেনফিকার আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার এনজো ফার্নান্দেজ।২-০ গোলে এগিয়ে থাকা আর্জেন্টিনা জয় তখন হয়ে ওঠে সময়ের ব্যাপার মাত্র।
 
এই জয়ের দুই ম্যাচে তিন পয়েন্ট নিয়ে সি গ্রুপের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এলো স্কলোনির দল।সমান ম্যাচে চার পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে পোল্যান্ড। গ্রুপের নিজেদের শেষ ম্যাচে শেষ ম্যাচে পরস্পরের মুখোমুখি হবে এই দুই দল।
 
 


 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাতারবিশ্বকাপ২০২২

২৩ ডিসেম্বর, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন