Inqilab Logo

সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ১৪ রজব ১৪৪৪ হিজিরী
শিরোনাম

স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করলেন সারিকা, গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ নভেম্বর, ২০২২, ৫:৫৬ পিএম

ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী এবং মডেল সারিকা সাবরিন। বিয়ে নিয়ে বরাবরই আলোচনায় থাকেন এ অভিনেত্রী। চলতি বছর ২ ফেব্রুয়ারি পারিবারিকভাবে বিয়ে করেন স্বামী জি এস বদরুদ্দিন আহমেদ রাহীকে। বছর না ঘুরতেই দ্বিতীয় বিয়ে নিয়েও পড়েছেন টানাপোড়নে। সম্প্রতি তার দ্বিতীয় স্বামী রাহীর বিরুদ্ধে যৌতুক ও শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে মামলা করেছেন এ অভিনেত্রী। তাই ‘৫০ লাখ টাকা যৌতুকের জন্য’ মারধরের ঘটনায় করা মামলায় জিএস বদরুদ্দিন আহম্মেদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ফারাহ দিবা ছন্দার আদালতে সারিকা সাবরিন বাদী হয়ে মামলাটি করেন। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন। এরপর মামলাটি আমলে নিয়ে বদরুদ্দিন আহম্মেদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। গ্রেফতার সংক্রান্ত তামিল প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ২১ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত ২ ফেব্রুয়ারি পারিবারিকভাবে সারিকা ও বদরুলের বিয়ে হয়। বিয়েতে ২০ লাখ টাকা দেনমোহর ধার্য করা হয়। বিয়ের সময় সারিকার বাবা-মা আসামি বদরুদ্দিনকে ২৫ লাখ টাকার স্বর্ণালংকারসহ বাসার যাবতীয় আসবাবপত্র উপহার হিসেবে প্রদান করেন। বিয়ের কিছুদিন যেতে না যেতেই আসামি বদরুদ্দিন সারিকার পরিবারের কাছে ৫০ লাখ টাকা দাবি করে তাকে মারধর করতে থাকেন।

গত ৫ নভেম্বর সারিকার কাছে ৫০ লাখ টাকা যৌতুকের টাকা এনে দিতে বলেন বদরুদ্দিন। যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় সারিকার চুলের মুঠি ধরে এক কাপড়ে তার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়।

এরপর গত ১৯ নভেম্বর ঢাকার ধানমন্ডিতে এ বিষয়ে এক সালিস বৈঠক হয়। বৈঠকে কথোপকথনের একপর্যায়ে আসামি বলেন যে, ব্যবসার জন্য তাকে ৫০ লাখ টাকা দিতে হবে। দাবি করা টাকা না দিলে সারিকার সঙ্গে সংসার করবে না এবং তাকে তালাক দিয়ে বেশি টাকা যৌতুক দিয়ে অন্যত্র বিয়ে করবেন জানিয়ে দ্রুত চলে যান।

এ বিষয়ে অভিনেত্রী সারিকা সাবরিন গণমাধ্যমকে বলেন- অবশ্যই কিছু না কিছু একটা তো হয়েছেই। তা নাহলে বিষয়টি তো আর মামলা পর্যন্ত গড়াতো না। তবে এ বিষয়ে এখনই কিছু বলতে চাই না। খুব শিগিগরই এসব বিষয় নিয়ে বিস্তারিত কথা বলবো।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২ ফেব্রুয়ারি (২.২.২২) দুই পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে সারিকা-রাহীর বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। এর আগে ২০১৪ সালে মাহিম করিম নামে এক ব্যবসায়ীকে বিয়ে করেন সারিকা। তবে ২০১৬ সালে তাদের ডিভোর্স হয়ে যায়। সেহরিশ আনায়া নামে তাদের এক কন্যাও রয়েছে।

২০০৬ সালে মডেলিং দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করেন সারিকা। তারপর একটি মোবাইল ফোন সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনের কারণে বেশ আলোচিত হন। তখন থেকে বেশ ধারাবাহিকভাবেই মডেলিংয়ে যুক্ত ছিলেন। সারিকা অভিনয় শুরু করেন ২০১০ সালে। নির্মাতা আশুতোষ সুজনের ‘ক্যামেলিয়া’ নাটকটি ছিল অভিনয়ে তার প্রথম কাজ। এরপর অভিনয় ও মডেলিংয়ে তুমুল ব্যস্ত হয়ে পড়েন তিনি। তবে মাঝে অভিনয়ে তুলনামূলক কম দেখা গেছে তাকে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ