Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯, ১৫ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

এবার দুই ভাইসহ চার ফিলিস্তিনিকে হত্যা করল ইসরাইলি সেনা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ নভেম্বর, ২০২২, ৬:২৩ পিএম

অধিকৃত পশ্চিম তীরে পৃথক ঘটনায় ইসরাইলি গুলিতে দুই ভাইসহ চার ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। নিহত দুই ভাইয়ের নাম জাওয়াদ এবং ধাফর রিমাউই বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে ফিলিস্তিনি ওয়াফা নিউজ এজেন্সি। তাদের বয়স যথাক্রমে ২২ এবং ২১ বছর।

ওয়াফা বলেছে যে, তারা রামাল্লার পশ্চিমে কাফর এইন গ্রামের কাছে সংঘর্ষের সময় ইসরাইলি সৈন্যদের গুলিতে নিহত হয়েছেন। ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের বেসামরিক বিষয়ক মন্ত্রী হুসেইন আল-শেখ দুই ভাইয়ের হত্যাকে ‘ঠাণ্ডা মাথায় মৃত্যুদণ্ড’ বলে বর্ণনা করেছেন। ইসরাইলি সামরিক বাহিনী বলেছে যে, গ্রামে কর্মরত সৈন্যরা সন্দেহভাজনদের ঢিল ও ফায়ারবোমা নিক্ষেপের আক্রমণের শিকার হয়েছিল এবং সেনারা পাল্টা গুলি চালায়। তিনি ঘটনাটি পর্যালোচনা করছেন বলে জানিয়েছে।

পৃথকভাবে, ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে মুফিদ খলিল নামে একজন ফিলিস্তিনি ব্যক্তি হেবরনের কাছে সামরিক অভিযানের সময় ইসরাইলি সৈন্যদের গুলিতে নিহত হন। খলিল মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন এবং তার সাথে অন্তত আটজন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। ইসরাইলি সামরিক বাহিনী বলেছে যে, সৈন্যরা ফিলিস্তিনিদের লক্ষ্য করে গুলি করেছিল যারা অভিযানের সময় তাদের দিকে ঢিল ছুঁড়েছিল। ইসরাইলি সেনাবাহিনী বলেছে যে, ফিলিস্তিনিরাও সৈন্যদের লক্ষ্য করে গুলি চালায় এবং যান্ত্রিক সমস্যার কারণে সেনাবাহিনীর দুটি গাড়ি আটকে যায়। মঙ্গলবারই ইসরাইলের সামরিক বাহিনী বলেছিল যে, তারা গাড়ি নিয়ে হামলার চেষ্টাকালে একজন ফিলিস্তিনিকে গুলি করে হত্যা করেছে।

অধিকৃত পশ্চিম তীরে ইসরাইলি সামরিক অভিযান দীর্ঘদিন ধরে নিয়মিত ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে, যার ফলে নিরস্ত্র ফিলিস্তিনিদের আহত বা হত্যা করা হচ্ছে। ২০০৬ সালের পর এ বছর পশ্চিম তীরে ইসরাইলের হাতে সর্বোচ্চ সংখ্যক ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। ২০২২ সালের শুরু থেকে, ইসরাইলি বাহিনী পশ্চিম তীরে, পূর্ব জেরুজালেম এবং গাজা উপত্যকায় ৪৭ শিশু সহ কমপক্ষে ২০০ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে। জাতিসংঘের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুধুমাত্র পশ্চিম তীরে ৭ নভেম্বর পর্যন্ত ইসরাইলি সেনাবাহিনীর হাতে প্রায় ৮,৯০০ জন আহত হয়েছে। ফিলিস্তিনি হামলায় এ বছর ইসরাইলেও অন্তত ২৫ জন নিহত হয়েছে। সূত্র: আল-জাজিরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ